Categories
সারাদেশ

ফেনীর বারাহিপুরে স্ত্রী তাহমিনা হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদন্ড

ফেনীর বারাহিপুরে আলোচিত ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রী তাহমিনা আক্তারকে হত্যার দায়ে স্বামী ওবায়দুল হক টুটুলের মৃত্যুদন্ড সহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে আদালত।

পারিবারিক কলহের জেরে ফেসবুক লাইভে এসে তাহমিনা আক্তারকে কুপিয়ে হত্যা করেন স্বামী ওবায়দুল হক টুটুল। ২১ অক্টোবর দুপুরে মামলার রায় ঘোষণা করেন জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছা ।

২০২০ ডিসেম্বর ১৫ তারিখে তাহমিনা হত্যা মামলায় একমাত্র আসামি করে ওবায়দুল হক টুটুলের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. ইমরান হোসেন জানান, গত ১১ নভেম্বর টুটুলকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল স্ত্রী তাহমিনাকে কুপিয়ে হত্যা করেন ওবায়দুল হক টুটুল। এ ঘটনায় তাহমিনার বাবা সাহাব উদ্দিন বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

আদালত সূত্র জানায়, তাহমিনা হত্যা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে টুটুলের বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন পাবলিক প্রসিকিউটর হাফেজ আহম্মদ ও বাদীপক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু। আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক তুলে ধরেন আইনজীবী আবদুস সাত্তার।

চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি এই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। মামলায় মোট ১৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

পরিবার সূত্র জানায়, প্রায় পাঁচ বছর আগে ফেনী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড বারাহিপুর এলাকার গোলাম মাওলা ভূঁঞার ছেলে ওবায়দুল হক ভূঁঞা টুটুল কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আকদিয়া গ্রামের সাহাব উদ্দিনের মেয়ে তাহমিনা আক্তারকে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে তাফান্নুন আরোয়া মায়োস নামে দেড় বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে।

ঘটনার দিন টুটুল ফেসবুক লাইভে এসে পারিবারিক অশান্তির জন্য স্ত্রীকে দায়ী করেন। তার পরিবারকে নিজ স্ত্রী ‘ব্ল্যাকমেইল’ করতেন বলেও দাবি করেন। ওই লাইভ ভিডিওতে তিনি তার মেয়েকে দেখভালের জন্য সবার কাছে অনুরোধ করেন। স্ত্রীকে হত্যার আগে ফেসবুক লাইভে এসে টুটুল সবার কাছে মাফ চান এবং ঘটনার জন্য নিজেই দায়ী বলে স্বীকার করেন।

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
ভিডিও সংবাদ সারাদেশ

নিয়মিত উষ্ণতা ছড়ান সুচিত্রা সেনের নাতনি রাইমা

বাংলা সিনেমায় রোমান্টিক জুটির কথা আসলেই সবার উপরে থাকবে উত্তম-সুচিত্রা। তাদের ছবিতেই বিশ শতকের মধ্যভাগের বাঙালিরা খুঁজে পেত প্রেম-বিরহ। সফল অভিনেত্রী সুচিত্রা সেনের মেয়ে মুনমুন সেন। তিনিও ছিলেন এক সময়ের দাপুটে অভিনেত্রী। যার রূপ আর অভিনয়ে নব্বইয়ের দশকে মুগ্ধ ছিলেন রসিক বাঙালি।

এই পরিবারেরই সন্তান রাইমা সেন, মুনমুনের কন্যা তিনি। বলিউড ও কলকাতার সিনেমায় দাপটের সঙ্গে কাজ করছেন তিনি। চোখে মুখে অদ্ভুত মায়া রাইমার। যা দেখে পুরুষের হৃদয়ে দোলা লাগবেই। সোশ্যাল মিডিয়ায়ও দারুণ অ্যাকটিভ এই অভিনেত্রী। বিশেষ করে নতুন কোনও ফটোশুট হলেই রাইমা কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করতে একটুও দেরি করেন না। খোলামেলা পোশাকে প্রায়ই ছবি শেয়ার করেন তিনি। এরমধ্যে অনেক ছবিতে শুধু অন্তর্বাস পরা আবার অনেক ছবিতে অন্তর্বাস ছাড়াই। কিছু ছবিতে তার বক্ষদেশ প্রায় উন্মুক্ত আবার অনেক ছবিতে নিম্নাঙ্গ অনাবৃত। আবার অনেক ছবিতে কোনো পোশাকই থাকে না। সিগারেট ঠোটে স্বল্প বসনে সম্প্রতি ছবি দিয়ে বেশ আলোচিত হয়েছিলেন তিনি।

খোলামেলা ছবি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ারের পর অশালীন মন্তব্য করার থেকে নিজেকে আটকাতে পারেন না বহু ভক্ত-অনুরাগী। সবার একই কথা, সব ছবিতেই রাইমা একেবারে আগুন!

সম্প্রতি তার একটি ছবিতে দেখা যায়, সারা শরীরে নেই কোন কাপড় নেই । সেই ছবি শোরগোল ফেলে দিয়েছিল সোস্যাল মিডিয়া । রাইমা সেনের এই হট ফোটোশ্যুট যেমন নজর কেড়েছে নেটিজেনদের তেমনই নোংরা অশ্লীল কটাক্ষেরও মুখে পড়েছিলেন রাইমা। তিনিও চুপ থাকার পাত্রী নন, টপলেস হতে তিনি যে একটুও লজ্জা পান না তা সাফ জানিয়ে দিলেন নেটিজেনদের।

এসব ছবি ও ভক্তদের মন্তব্য প্রায়ই গণমাধ্যমের শিরোনাম হয় রাইমা । অভিনয়ের চেয়ে ব্যক্তি জীবন নিয়ে আলোচনা থাকনে এই অভিনেত্রী। সম্প্রতি তার খোলামেলা পোশাকের ছবি তুলেছেন এক ফটোগাফার। যেসব ছবিতে নামমাত্র পোশাকে দেখা গেছে রাইমা সেনকে।
এখন গুঞ্জন শুরু হয় রাইমা ওই ফটোগ্রাফারের সঙ্গে প্রেম করছেন। এসব গুঞ্জন পৌঁছায় অভিনেত্রীর কানেও। তিনি সঙ্গে সঙ্গে এসবকে গুজব বলে উড়িয়ে দিনে। একই সঙ্গে জানিয়ে দিলেন, তিনি আর বিয়েই করবেন না।

ভয়েসটিভি/এসএফ/এএস

Categories
সারাদেশ

কুতুপালংয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ ৬ রোহিঙ্গা ডাকাত আটক

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত আটক করেছে ১৪ এপিবিএন।  গোপন সংকবাদের ভিত্তিতে রাত পৌনে ৩ টার দিকে ক্যাম্প-৫ এর এ-ব্লকের জি/৪ সাব ব্লকে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প জি/৪ সাব ব্লকের চানমিয়া মাঠের পূর্ব পাশে সিরাজুল ইসলামের চা-পানের দোকানে অস্ত্রসজ্জিত ২৫/৩০ জন লোকজন ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে সমবেত হয়েছে। তৎক্ষনাৎ ইরানী পাহাড় পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী ক্যাম্প কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার পিযুষ চন্দ্র দাস ফোর্স নিয়ে জি/৪ সাব ব্লকে অভিযান পরিচালনা করে। ঘটনাস্থলে পৌছামাত্র আসামিরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে ছয়জনকে দেশীয় অস্ত্র সহ হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো ক্যাম্প- ১৭, ব্লক- বি, সাব ব্লক- এইচ/১০২-এর আবুল হাসিমের ছেলে মো. জাবের (২৪), ক্যাম্প- ৫, ব্লক- সি, সাব ব্লক- ইই/৫-এর মৃত আবুল বশর প্রকাশ বাশারের শফিকুল ইসলাম (৩২), ক্যাম্প- ৫, ব্লক-বি, সাব ব্লক- জি/৫৭-এর নূর হোসেনের ছেলে সৈয়দ মোহাম্মদ (৫২), ক্যাম্প-৫, ব্লক- ডি, সাব ব্লক- ইই/৪-এর নূর আলমের ছেলে মো. জমির (২৭), ক্যাম্প- ১/ডব্লিউ, ব্লক- সি/১২-এর মৃত আব্দুর শুক্কুরের ছেলে মৌলভী হামিদ হোসেন (৪১) ও ক্যাম্প- ৭, ব্লক- এফ/১০-এর মৃত নজির আহম্মদের ছেলে মো. হোসেন প্রকাশ ইদ্রিস (৪৩)।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ১ টি রামদা, ১ টি কিরিচ, ১ টি বক্রাকৃতি দামা, ২ টি লম্বাকৃতি দামা, ১ টি নান চাকু ও ১ টি রড জব্দ করে।

পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা তাদের সহযোগী ও পলাতক পাঁচ জনের নাম-ঠিকানা প্রকাশ করে। এরা হলো ক্যাম্প-১৭, ব্লক- এ, সাব ব্লক- এইচ/ ৯২এর লাল মিয়ার ছেলে হাবিবুর রহমান প্রকাশ হাবিরুন (৪০), ক্যাম্প-৮/ ডব্লিউ, ব্লক- সি, সাব ব্লক- আই/১৭-এর মৃত মকবুল আহমদের ছেলে আব্দুল হাই (৪০), ক্যাম্প – ১৭, ব্লক- এ, সাব ব্লক- এইচ-/৯২-এর সৈয়দ আলমের ছেলে ইলিয়াস (৩২), ক্যাম্প -৫, ব্লক- ইই/৫-এর মৃত আবুল বশরের ছেলে মৌলভী অলি, আকিজ প্রকাশ সহিদুল ইসলাম (৪২) ও ক্যাম্প-৫ ব্লক- জি/৪-এর নূর আহম্মদের ছেলে মুফতি জিয়া রহমান (৩০)।

কক্সবাজার ১৪ এপিবিএন অধিনায়ক এসপি মো নাইমুল হক জানান, ‘আসামিগণ সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্য এবং তারা রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। তা ছাড়া তারা ঘটনাস্থলে ডাকাতি করার উদ্দেশ্যে সমবেত হয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ করার সময় কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়। ডাকাতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

 ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

তেঁতুলিয়ায় ২৪ ঘন্টায় ৫৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড

পঞ্চগড়ে গত ২৪ ঘন্টায় ৫৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আবহাওয়া অফিস বলছে, বর্তমানে মৌসুমী বায়ু সক্রিয় রয়েছে। এর পাশাপাশি বঙ্গোপসাগরের উপরে জমে থাকা মেঘ দেশের উত্তরবঙ্গে ছড়িয়ে পড়ায় বৃষ্টি হচ্ছে। এদিকে বৃষ্টিপাতের কারণে দিনভর উত্তরের হিমালয় থেকে কিছুটা ঠাণ্ডা বাতাস বয়ে আসতে শুরু করেছে।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাসেল শাহ্ জানান, বৃষ্টিপাতের এই দিনে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৩ দশমিক ৯ ডিগ্রি রেকর্ড করা হলেও বিকেলে দিনের সর্বচ্চো তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২৪ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গেল ২৪ ঘন্টায় পঞ্চগড়ে তেঁতুলিয়ায় ৫৫ মিলি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হলেও মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত ৪০ মিলিমিটার রেকর্ড করা হয়।

সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির পাশপাশি মুষলধারে বৃষ্টিতে জনসাধারণকে ঘর বন্দি থাকতে দেখা গেছে। টানা বৃষ্টিতে তেঁতুলিয়া উপজেলাসহ পঞ্চগড়ের অধিকাংশ সড়ক ও নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। সড়কে মানুষের তুলনায় স্বল্পসংখ্যক যানবাহন থাকায় অনেকে বৃষ্টিতে ভিজেই বাজারসহ অফিসে ছুটছেন।

গত সোমবার (১৮ অক্টোবর) সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৪ দশমিক ২ ডিগ্রি রেকর্ড করা হয়। একই দিন দিনের সর্বচ্চো তাপমাত্রা ৩০ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। মূলত মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় সাগরের মেঘ ছড়িয়ে পড়ায় এই বৃষ্টিপাত হচ্ছে বলে রাসেল শাহ্ আরো জানান।

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

ভূরুঙ্গামারীতে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান যুবতির

কুড়িগ্রামে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দীর্ঘদিন মেলামেশা করে অন্যত্র বিয়ের চেষ্টা করায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে প্রেমিকা। প্রেমিকার দাবী বিয়ে না করা পর্যন্ত তিনি এ বাড়ি ছেড়ে যাবেন না।

ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রাম উপজেলার সদর ইউনিয়নের বারাইটারী নামক গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান, একই গ্রামের শ্রী নরেশ চন্দ্রের পুত্র শ্রী নিমাই চন্দ্র (২৪) এর সাথে কামাত আঙ্গারিয়া গ্রামের এক যুবতীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নিমাই কয়েকবার অবৈধ মেলামেশা করে। এদিকে তাদের প্রেমের সম্পর্কের বিষয়টি জানাজানি হলে নিমাইয়ের পরিবার কুড়িগ্রামের ফুলবাড়িতে বিয়ে করানোর জন্য পাত্রী খুঁজে চুক্তিপত্র ও আশির্বাদ সম্পন্ন করে।

এদিকে নিমাই কয়েকদিন থেকে যোগাযোগ বন্ধ করে দিলে প্রেমিকা মূল ব্যাপারটি জেনে যায়। অন্যত্র পাত্রী দেখা ও আশির্বাদ সম্পন্ন করার খবর পেয়ে সে সোমবার বিকাল ৫টার দিকে প্রেমিক নিমাইয়ের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে  প্রবেশের চেষ্টা করলে বাড়ির লোকজন তাকে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়।  অতঃপর ভুক্তভোগী বাড়ির সামনে অবস্থান নেয় এবং বৃষ্টিতে ভিজে অসুস্থ হয়ে পড়ে। ঘটনা জানাজানি হয়ে গেলে পর এলাকার লোকজন বাড়িতে জমায়েত হতে থাকে। অবস্থা বেগতিক টের পেয়ে নিমাই তৎক্ষণাৎ আত্মগোপন করেন।

বিষয়টি সমাধানের জন্য স্থানীয় গণ্যমান্যরা এসে প্রেমের বিষয়টি সত্যতা পেয়ে নিমাইয়ের আত্মীয় স্বজনকে নিমাইয়ের সাথে বিয়ে দিতে বলে। ছেলে পক্ষ বুধবার বিয়ের তারিখ দিলে অসুস্থ প্রেমিকাকে তার আত্মীয় স্বজনরা ঐ বাড়ি থেকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি করান।

এ বিষয়ে ভুরুঙ্গামারী থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতাদের উপস্থিতিতে তারা মিমাংসা করবেন বলে মেয়েটিকে তার অভিভাবকের জিম্মাায় দেয়া হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

চাপ বেড়েছে অন্তঃসত্ত্বা রোগীর, চিকিৎসক সংকটে ভোগান্তি

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে গাইনি বিভাগে নির্ধারিত সিটের চেয়ে বেশি রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। গত এক সপ্তাহে ওয়ার্ডে ৪০ সিটের বিপরীতে ভর্তি হয়েছেন ১২০ রোগী। তার মধ্যে অন্তঃসত্ত্বা রোগী আছেন ৫৫ জন। ১০০ শয্যার হাসপাতালে বাড়তি রোগীদের বারান্দা ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। সেবা গ্রহিতারা হাসপাতালে চিকিৎসক সংকটের কথাও বলছেন। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ৫০ চিকিৎসকের বিপরীতে মাত্র ১৯ জন কর্মরত আছেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ১০০ শয্যার সদর হাসপাতালটির ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় পুরুষ বিভাগের মেডিসিন, সার্জারি, অর্থোপেডিক, মহিলা বিভাগের গাইনি, অর্থোপেডিক, মেডিসিন, সার্জারিসহ ৯টি ওয়ার্ডে রোগীদের ৮০টি শয্যায় চিকিৎসা দেওয়া হয়। আর হাসপাতালের তৃতীয় তলায় ২০ শয্যায় করোনার রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়।

তবে গত এক সপ্তাহে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে রোগীর চাপ বেড়েছে। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত হাসপাতালটিতে ৮০ শয্যার বিপরীতে ১৭৬ জন রোগী ভর্তি আছেন।

হাসপাতালে ২৪ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মধ্যে ৯ জন কর্মরত আছেন। আর ২৬ জন চিকিৎসকের বিপরীতে আছেন ১০ জন। হাসপাতালটিতে ৫০ জন চিকিৎসকের পদ থাকলেও সেখানে বর্তমানে ১৯ জন চিকিৎসক সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এর মধ্যে ৯ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অন্তর্বিভাগে ভর্তি রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন।

হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া রাবেয়া বেগম বলেন, গত শনিবার সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। সোমবার কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। ভর্তি হওয়ার পর থেকেই বারান্দার মেঝেতে থাকতে হচ্ছে। রাবেয়া বেগমের বাড়ি ভেদরগঞ্জ মনুয়া এলাকায়।

গোসাইরহাট উপজেলার সোনিয়া বেগম বলেন, আমার বোনের আজ ছেলে সন্তান হয়েছে। কোথাও সিট পাই না। না পেয়ে আশ্রয় নিয়েছি মহিলা ও শিশু ওয়ার্ডের বারান্দায়। এখানে কোনও ফ্যান নাই, প্রচণ্ড গরম। ছেলে বারবার ঘেমে যাচ্ছে। কী আর করবো, বাধ্য হয়েই থাকতেছি।

ডামুড্যায় ধানকাটি এলাকা থেকে আসা হারুণ অর রশিদ জানান, তার বাবা গত রবিবার হাসপাতালে ভর্তি করেছে। তার ক্যান্সার হওয়াতে কেমোথেরাপি দেওয়ার পর শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছেন। এখানে আসার পর ডাক্তার নার্স কাউকে ঠিকমতো পাচ্ছেন না।

সদর হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রাবেয়া বুশরা জানান, রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়া চিকিৎসা সেবা দিতে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। বিছানা, চাদর পর্যাপ্ত না থাকায় ঝামেলায় পড়েছি, রোগীরাও হেনস্তা হচ্ছে।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মুনীর আহমেদ খান বলেন, গত এক সপ্তাহে হাসপাতালে রোগীর চাপ বেড়ে গেছে। জ্বর, ঠাণ্ডা ও ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী বেশি। আবহাওয়া পরিবর্তন হওয়ার কারণে শিশু ও বয়স্করা অসুস্থ হচ্ছেন। অন্তঃসত্ত্বা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ডাক্তার কম থাকায় চিকিৎসা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

অবশেষে আটকে পড়া পর্যটকরা ফিরছেন সেন্টমার্টিন থেকে

বৈরী আবহাওয়ায় সাগর উত্তাল থাকায় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে নৌযান চলাচল বন্ধ ছিল। এ কারণে তিন শতাধিক পর্যটক সেন্টমার্টিনে দুই দিন আটকে পড়েন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় অবশেষে তারা ফিরছেন।

সকালে একে একে ১৪টি ট্রলার সেন্টমার্টিন থেকে টেকনাফের উদ্দেশ্যে পর্যটকদের নিয়ে রওনা দেন। এরই মাঝে বেলা ১১টায় ৮০ জনের যাত্রীবাহী দুটি ট্রলার পৌরসভার কায়ুকখালী ঘাটে পৌঁছায়।

সেন্টমার্টিন কোস্ট গার্ড স্টেশন কর্মকর্তা লে. তারেক আহমেদ জানান, আবহাওয়া কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় মঙ্গলবার সকাল থেকে সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকরা ফিরতে শুরু করেছেন। এর আগে নৌযান চলাচল বন্ধ থাকায় ভ্রমণে এসে আটকে পড়েন তারা। তবে পর্যটকরা যাতে ঠিকমতো টেকনাফ পৌঁছান, সে ব্যাপারে খোঁজ-খবর রাখা হচ্ছে।

সেন্টমার্টিন বোট মালিক সমিটির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম জানান, মঙ্গলবার সকাল ৭টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ১৪টি ট্রলারে ৪০০ মানুষ সেন্টমার্টিন ত্যাগ করেছেন। তার মধ্যে ৩০০ জন পর্যটক। তারা বৈরী আবহাওয়ার কারণে দ্বীপে দুই দিন আটকা পড়েছিলেন।

এদিকে বৈরী পরিবেশেও সেন্টমার্টিনের হোটেল-রিসোর্ট মালিকদের কাছ থেকে কোনো প্রকার সহযোগিতা পাননি বলে অভিযোগ করেছেন আটকে পড়া পর্যটকরা।

খুলনা থেকে ঘুরতে এসে আটকে পড়া সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার দিল মোহাম্মদ  জানান, ‌‘আমরা পাঁচ বন্ধু কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন গিয়ে আটকে পড়ি। আমাদের প্ল্যান ছিল গত রবিবার সেন্টমার্টিন থেকে ফিরবো। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারণে দুই দিন বেশি থাকতে হয়েছে। এই দিনে আমরা রিসোর্টে ছিলাম। কিন্তু সেখানে কোনো রিসোর্ট কিংবা খাবার হোটেলে ছাড় পাইনি। এ সময়ে কেউ আমাদের খোঁজ নিতে পর্যন্ত আসেনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের মতো অন্যরাও সেন্টমার্টিন গিয়ে অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছিলেন। প্রতিবার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সেন্টমার্টিনের মানুষ পর্যটকদের সাধ্যমতো সহযোগিতা করে। কিন্তু এবার কেন এ ধরনের ব্যবহার করা হলো, বুঝতে পারিনি। আনন্দ করতে গিয়ে বুক ভরা কষ্ট নিয়ে ফিরলাম।’

দ্বীপের বাসিন্দা মো. জয়নাল জানান, ‘দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকরা মঙ্গলবার সকাল থেকে ফিরতে শুরু করেছেন। তবে তাদের মধ্য অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। টেকনাফে আটকেপড়া দ্বীপের বাসিন্দারা ফিরে এসেছেন।’

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ পারভেজ চৌধরী জানান, আবহাওয়া স্বাভাবিক হওয়ায় সেন্টমার্টিনে ভ্রমণে এসে আটকে পড়া পর্যটকরা ফিরছেন। তাদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয় সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন : সেন্টমার্টিনে গিয়ে চার শতাধিক পর্যটক আটকা

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

বলরামপুর ইউপি নির্বাচনের দাবিতে মানববন্ধন

পঞ্চগড়ে দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে নির্বাচন বন্ধ রয়েছে। নাগরিক সমাজের ব্যানারে নির্বাচনের দাবিতে ইউনিয়নের প্রায় দুই হাজার মানুষ মানবন্ধনে অংশগ্রহণ করেছে। মানবন্ধন শেষে আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পক্ষে নাগরিক সমাজের স্মারকলিপি গ্রহণ করেন ভূমি কর্মকর্তা শায়লা সাঈদ তন্বী।

দুপুরে আটোয়ারী উপজেলা পরিষদের সামনে আটোয়ারী-পঞ্চগড় সড়কে এই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। বলরামপুর ইউনিয়ন নাগরিক সমাজের ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে ওই ইউনিয়নের প্রায় দুই হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখার সময় বলরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন বলেন, সর্বশেষ ২০০৩ সালে বলরামপুর ইউনিয়ন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার পর আর পুনর্নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। এভাবে দীর্ঘ আঠারো বছর বলরামপুর ইউনিয়নে নির্বাচন বঞ্চিত হয়ে আছে। একটি গণতান্ত্রিক দেশে এ ধরনের অনিয়ম নির্বাচন কমিশনের জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক ব্যাপার।

বলরামপুর দীর্ঘ ১৮ বছর নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হওয়ার বড় একটি কারণ এই ইউনিয়নটির একটি অংশ বোদা পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ফলে সীমানা জটিলতার কারণে নির্বাচন স্থগিত রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ২০১৮ সালে নির্বাচনী গেজেট প্রকাশিত হলেও রহস্যজনক ভাবে তা আলোর মুখ দেখেনি। ওই ইউনিয়নের ৩ জন ওয়ার্ড সদস্য ইতোমধ্যে মারা গেছে। ১ জন ওয়ার্ড সদস্য পদত্যাগ করেছে। বর্তমান চেয়ারম্যান ষড়যন্ত্র করে নির্বাচন আটকে রেখেছেন।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন, বলরামপুর ইউনিয়ন নাগরিক সমাজের আহবায়ক শাহ আলম সরকার, যুগ্ম আহবায়ক সাইদুর রহমান প্রমুখ। বক্তারা অবিলম্বে বলরামপুর ইউনিয়নে প্রশাসক নিয়োগ করে নির্বাচন ঘোষণা করার দাবি জানান। দাবি মানা না হলে পরবর্তীতে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেয়া হয়।

মানববন্ধন শেষে বক্তারা আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন ভূমি কর্মকর্তা শায়লা সাঈদ তন্বী।

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

তেঁতুলিয়ায় দ্বিতীয় ধাপে ৩৩ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন জমা

তেতুঁলিয়ায় দ্বিতীয় ধাপে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে ৩৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আলী হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, আগামী ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার আজ শেষ দিন ছিল। রবিবার সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত প্রার্থীরা তাদের মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদের জন্য সর্বমোট ৩৩ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

নির্বাচন অফিসসূত্রে আরও জানা যায়, উপজেলার ৭ ইউনিয়নে ৩৩ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত ৭ জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত ৩ জন, জাকের পার্টি মনোনীত ২ জন এবং স্বতন্ত্র ২১ জন। এছাড়া সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৯২ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৬১ জন সহ মোট ৩৮৬ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন নির্বাচন রির্টানিং কর্মকর্তা আলী হোসেনের কাছে প্রার্থীরা তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার ৭ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ তারিখ ছিল ১৭ অক্টোবর, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ২০ অক্টোবর, বাছাইয়ের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিলের নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর, প্রার্থীতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর।

আগামী ১১ নভেম্বর ব্যালট পেপারের মাধ্যেমে তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

ভয়েস টিভি/এমএম

Categories
সারাদেশ

ভোলায় ঝড়ের কবলে ট্রলার ডুবি, নিখোঁজ ৩

ভোলার চরফ্যাশনে দুপুর দেড়টার দিকে ঝড়ের কবলে পড়ে একটি ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এক শিশুসহ ৩ জন নিখোঁজ রয়েছে।

দুপুর দেড়টার দিকে একটি ট্রলার চরপাতিলা থেকে শসা বোঝাই করে চর কচ্ছপিয়ার দিকে যাচ্ছিলো। এ সময় ট্রলারটি চর পাতিলা থেকে কিছু দূর গিয়ে ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারটি ডুবে যায়। ডুবে যাওয়ার পরই ৩ জন নিখোঁজ রয়েছে।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য বেলাল হোসেন জানান, ট্রলারে ১০ জন যাত্রী ছিলো। তারা সবাই ট্রলার মালিক সিরাজের আত্নীয় স্বজন। ৭ জন উদ্ধার হলেও ৩ জন নিখোঁজ রয়েছে।

দক্ষিন আইচা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাখাওয়াত হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ট্রলার ডুবির খবর পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ট্রলার ডুবিতে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিখোঁজদের কারো পরিচয় জানা যায়নি।

আরও পড়ুন : টাইফুনের কবলে ৪৫ নাবিকসহ জাপানি জাহাজ নিখোঁজ

ভয়েস টিভি/এমএম