Categories
অপরাধ

জামিন মেলেনি সাবরিনা-আরিফের

ঢাকা : জেকেজির চেয়ারম্যান সাবরিনা ও সিইও আরিফ চৌধুরীসহ ৮ আসামির জামিন মেলেনি। ১৩ আগস্ট বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনছারীর আদালতে আসামিপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের জামিন নামঞ্জুর করেন আদালত।

জেকেজির চেয়ারম্যান সাবরিনা ও সিইও আরিফ চৌধুরী ছাড়া মামলায় অভিযুক্ত অন্য আসামিরা হলেন- আবু সাঈদ চৌধুরী, হুমায়ূন কবির হিমু, তানজিলা পাটোয়ারী, বিপ্লব দাস, শফিকুল ইসলাম রোমিও ও জেবুন্নেসা।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১১টার দিকে ভুয়া কোভিড পরীক্ষাসহ প্রতারণার অভিযোগে মামলায় জেকেজি হেলথ কেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনাকে আদালতে তোলা হয়।

এর আগে, গত ২৩ জুন জেকেজির সিইও আরিফসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনাকে ১২ জুলাই গ্রেফতার করে পুলিশ। চার্জশিটভুক্ত ৮ আসামিই কারাগারে আছেন।

ভয়েস টিভি/নিজস্ব প্রতিবেদক/এসএফ

Categories
অপরাধ

নিয়মিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বসছে আজ

ঢাকা: আজ ১২ আগস্ট বুধবার থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে বসছে নিয়মিত হাইকোর্ট বেঞ্চ। পাশাপাশি বিচারকার্য চলবে ভার্চুয়াল মাধ্যমেও। এর মধ্যে ২০-২২টি হাইকোর্ট বেঞ্চে বিচারকাজ শুরু হবে। গত ৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার দেশের সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিদের নিয়ে আলোচনার পর এমন সিদ্ধান্ত নেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

এর আগে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে নিয়মিত আদালত খুলে দিতে প্রধান বিচারপতিকে দু’দফা চিঠি দেওয়ায় এই সভা ডাকা হয়। পরে সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট উভয় বিভাগের সব বিচারপতিদের নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ফুলকোর্ট সভা করেন প্রধান বিচারপতি।

জানা গেছে, হাইকোর্ট বিভাগের প্রায় ৪০ জন বিচারপতি শারীরিক উপস্থিতিতে আদালত পরিচালনার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। যারা শারীরিক উপস্থিতিতে আদালত পরিচালনা করতে ইচ্ছুক নয়, তাদের ভার্চুয়াল বেঞ্চ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

ওই সভায় ২০২০ সালের অবকাশকালীন ছুটি বাতিলের পক্ষে মত দেন অধিকাংশ বিচারপতি। তবে, এ বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত জানাননি প্রধান বিচারপতি।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে গত ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশের সকল নিয়মিত আদালত কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। এ অবস্থায় জরুরি মামলার বিচারকার্য পরিচালনার জন্য গত ১১ মে থেকে ভার্চুয়াল আদালত কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছিল। কিন্তু নিয়মিত আদালত খুলে দেওয়ার জন্য আইনজীবীরা দাবি জানিয়ে আসছিলেন। এ পরিস্থিতিতে গত ৫ আগস্ট থেকে সারা দেশে নিয়মিতভাবে নিম্ন আদালত খুলে দেওয়া হয়েছে।

ভয়েস টিভি/ নিজস্ব প্রতিবেদক/ টিআর

Categories
অপরাধ জাতীয় ভিডিও সংবাদ

ওসি প্রদীপ ও এসআই লিয়াকতের সম্পদের পাহাড়

ভয়েস রিপোর্ট: সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যাকাণ্ড ছিল পরিকল্পিত। সরকারকে বেকায়দায় ফেলতেই টেকনাফ থানা থেকে প্রত্যাহার করা ওসি প্রদীপ কুমার দাশের নির্দেশেই খুন হয়েছেন সিনহা মো. রাশেদ খান। তার নির্দেশ পেয়ে শামলাপুর চেকপোস্টে বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলী সিনহাকে লক্ষ্য করে গুলি করে। প্রদীপ-লিয়াকত দুই জনই একসময় বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলো বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, বিএনপি সরকারের সময় ১৯৯৫ সালে তত্কালীন এক নেতার সুপারিশে চাকরি হয় প্রদীপের। আর বিএনপি পরিবারের সন্তান হয়েও আওয়ামী লীগের আমলে এক এমপির সুপারিশে চাকরি পায় লিয়াকত। লিয়াকতের ভাই ছাত্রদলের নেতা। তার পরিবার বিএনপি করে। এমন তথ্য বিভিন্ন তদন্তে বেরিয়ে এসেছে।

প্রদীপ-লিয়াকতের মতো বিএনপি পরিবারের সন্তান পুলিশে আরো অনেক আছে, যারা সরকারবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত। ঘাপটি মেরে থেকে সিনহাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। প্রদীপ বর্তমান সরকারের ১২ বছর ধরেই দাপিয়ে বেড়িয়েছেন চট্টগ্রাম বিভাগে। পেশাগত দাপট দেখিয়ে গড়ে তুলেছে সম্পদের পাহাড়। দেশে-বিদেশে রয়েছে অঢেল সম্পদ।

স্থানীয়রা বলছেন, ওসি প্রদীপ ও এসআই লিয়াকতের নামে-বেনামে সম্পদের পাহাড় রয়েছে। প্রদীপের বাড়ি চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার সরোয়াতলী গ্রামে এবং লিয়াকতের বাড়ি পটিয়া উপজেলার হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব হুলাইন গ্রামে। ওসি প্রদীপের নামে চট্টগ্রাম শহরে একাধিক ভবন, স্ত্রীর নামে লক্ষ্মীকুঞ্জ নামে ভবন রয়েছে। তাছাড়া গ্রামের বাড়িতে বিশাল দিঘিতে মাছ চাষ করা হয়। এসব দেখাশোনা করেন ওসি প্রদীপের ভাই চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সাবেক হেডক্লার্ক দিলীপ দাশ। একইভাবে এসআই লিয়াকত আলীর নামে-বেনামে গ্রামে ও শহরে সম্পদ রয়েছে। ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতের ঘটনায় পটিয়া ও বোয়ালখালীর লোকজন ক্ষুব্ধ। দুই জনেরই ফাঁসির দাবি জানিয়েছেন তারা।

গ্রামবাসীর জানান, সরোয়াতলীতে প্রদীপের স্ত্রীর নামে ৪ একরের দিঘি রয়েছে। তাছাড়া চট্টগ্রাম শহরের পাথরঘাটা এলাকায় স্ত্রীর নামে লক্ষ্মীকুঞ্জ নামের পাঁচতলা একটি ভবন রয়েছে। স্ত্রীর নামে-বেনামে প্রায় ১০ কোটি টাকার সম্পদ কিনেছে কিনেছে প্রদীপ। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ছাড়াও বিদেশেও সম্পদ রয়েছে।

প্রদীপের গ্রামের লোকজন জানিয়েছেন, প্রদীপ পুলিশের চাকরি নেওয়ার পর কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। অথচ চাকরিতে যোগ দেয়ার আগে তার পৈতৃক সম্পত্তি তেমন কিছুই ছিল না। প্রদীপ গ্রামবাসীকে পুলিশের ভয় দেখিয়ে অনেক অপকর্ম করেছে।

এদিকে, হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়নের পূর্ব হুলাইন গ্রামের মো. সাহাব মিয়ার ছেলে লিয়াকত ২০১০ সালে পুলিশে যোগ দেয়। তার পরিবার বিএনপির সঙ্গে জড়িত এই তথ্য গোপন করে লিয়াকত এক এমপির সুপারিশে চাকরি পায়। সে হাবিলাসদ্বীপ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, হুলাইন ছালেহ নূর ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি, চট্টগ্রাম কলেজ থেকে স্নাতক ও প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি থেকে এমএ পাশ করে। ছয় ভাই ও এক বোনের মধ্যে লিয়াকত পঞ্চম। তার ভাই মো. শওকত বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি যুক্ত।

পটিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম শিরু লিয়াকত আলীর চাকরির জন্য ঐ এমপিকে সুপারিশের জন্য অনুরোধ করেন। এর পর লিয়াকতের চাকরি হয়। সে প্রথমে ডিবি, পরে সোয়াত ও অ্যান্টি টেরোরিজম টিমে কাজ করে। দুই বছর আগে পুলিশ পরিদর্শক পদোন্নতি পায়। আর এক বছর আগে টেকনাফ থানায় যোগ দেয়।

লিয়াকতের বাড়ি এলাকার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার নুরুল ইসলাম জানান, লিয়াকত লেখাপড়ায় মেধাবী ছিল। তবে পুলিশের চাকরিতে যোগদানের পর এলাকায় কোনো অবৈধ আচরণ দেখিনি। তবে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকলে তার বিচার হওয়া দরকার।

এদিকে, কক্সবাজার জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদে মেজর সিনহা হত্যা মামলার চার আসামি অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার মুখপাত্র লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ। সোমবার দুপুর ১টার দিকে মুঠোফোনে তিনি এ খবর জানিয়েছেন। আশিক বিল্লাহ বলেন, চার আসামিকে গত দু’দিনে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তারা অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। সেই তথ্যের আলোকে তাদের সোমবার ১০দিনের রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশনায় পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাত দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা তিন আসামি টেকনাফের বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাময়িক বরখাস্ত হওয়া পরিদর্শক লিয়াকত আলী, সাময়িক বরখাস্ত হওয়া টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশ ও উপ-পরিদর্শক নন্দ দুলাল রক্ষিতকে র‌্যাব-১৫-এর হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করার কথা ছিলো। কিন্তু আজও তাদের রিমান্ডে নিয়ে যায়নি র‌্যাব।

ভয়েস টিভি/ আনজাম খালেক/ টিআর

Categories
অপরাধ

অর্থ আত্মসাৎ মামলা: ৭ দিনের রিমান্ডে সাহেদ

ঢাকা: অর্থ আত্মসাতের মামলায় রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পদ্মা ব্যাংকের (সাবেক দি ফারমার্স ব্যাংক) অর্থ আত্মসাতের মামলায় এ রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

১০ আগস্ট সোমবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ২৭ জুলাই মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ বাদী হয়ে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ সাহেদসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন-রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ইব্রাহিম খলিল, পদ্মা ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাহী/অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতী ও তার ছেলে বকশীগঞ্জ জুট স্পিনার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশেদুল হক চিশতি৷

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে অসৎ উদ্দেশে ক্ষমতার অপব্যবহার ও অপরাধমূলক বিশ্বাসভঙ্গ করে অর্থ স্থানান্তর, রূপান্তরের মাধ্যমে ঋণের নামে পদ্মা ব্যাংক লিমিটেড, গুলশান করপোরেট শাখার এক কোটি টাকা (যা সুদা-আসলসহ ১৫/৭/২০২০ তারিখের স্থিতি ২ কোটি ৭১ লাখ টাকা) আত্মসাৎ করেন।

আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়।

গত ৬ আগস্ট ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে সাহেদকে ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের উপসহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ। বিচারক তার উপস্থিতিতে রিমান্ড শুনানির জন্য ১০ আগস্ট দিন ধার্য করেন।

ভয়েস টিভি/ নিজস্ব প্রতিবেদক/ টিআর

Categories
অপরাধ সারাদেশ

জামিন করিয়ে দেওয়ার কথা বলে ঘুষ গ্রহণ : আদালতের গাড়িচালক বরখাস্ত

বরগুনা : আসামিকে জামিন করিয়ে দেওয়ার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের গাড়িচালক মো. ফারুক হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা (নম্বর ৩/২০) রুজু হওয়ার পর সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. গোলাম সরোয়ার ৯ আগস্ট রোববার এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ভুক্তভোগী আসামিপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট আইনজীবী জানান, ক্রিমিনাল আপিল নম্বর ৪৩/২০ মামলার আসামিপক্ষের হয়ে আদালতে বরগুনার বিশিষ্ট আইনজীবী অ্যাড. মো. শাহজাহান আপিল গ্রহণ শুনানি, জামিন এবং দণ্ড রোহিতের জন্য আবেদন করেন। এ আবেদনের শুনানিশেষে ওই দিন সকাল সাড়ে ১০টায় ২০ হাজার টাকা বন্ডে আসামির জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এ ই এম ইসমাইল হোসেন। এদিকে জামিন মঞ্জুরের কথা গোপন রেখে ওই দিনই ৫০ হাজার টাকা না দিলে জামিন হবে না বলে আসামিপক্ষের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা উৎকোচ নেন গাড়িচালক মো. ফারুক হোসেন।

ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরে মো. ফারুক হোসেন ভুক্তভোগী পক্ষকে ২৯ হাজার টাকা ফেরত দেন এবং বাকি ২১ হাজার টাকাও শিগগিরই ফেরত দেবেন বলে অঙ্গিকার করেন।

ভয়েস টিভি/ নিউজ ডেস্ক/ ডিএইচ

Categories
অপরাধ

মেজর সিনহা রাশেদ হত্যায় ওসি প্রদীপসহ ৭ পুলিশ বরখাস্ত

কক্সবাজার : অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ হত্যা মামলার আসামি ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৭ পুলিশ সদস্যকে চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

৭ আগস্ট শুক্রবার রাত ৯টার দিকে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘এ মামলার আসামি ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। অপর আসামি এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়াকে পুলিশ সুপার বরখাস্ত করেছে।’

তিনি বলেন, ‘টেকনাফ থানার মামলা নম্বর ৯/২০২০, যার সিআর মামলা নম্বর ৯৪/২০২০ ইংরেজি (টেকনাফ), মামলায় টেকনাফের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত কর্তৃক কক্সবাজার জেলা পুলিশের সাত সদস্যের জামিন আবেদন নাকচ করে তাদের জেলে পাঠানোর বিষয়টি গত ৬ আগস্ট সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ অবহিত হয়।’

এরপর, প্রদীপ কুমার দাশ ও লিয়াকত আলী দুই জন পরিদর্শক হওয়ায়, তাদের পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এবং বাকি পাঁচ জনকে তাৎক্ষণিক চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে, যোগ করেন তিনি।

গত ৩১ আগস্ট রাত সাড়ে ৯টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন স্বেচ্ছায় অবসরে যাওয়া মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় নিহতের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে প্রদীপ কুমার দাশ, পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ নয় জনকে আসামি করে টেকনাফ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৫ আগস্ট সকালে মামলা দায়ের করেন।

৬ আগস্ট টেকনাফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত (আদালত নম্বর-৩) এর বিচারক মো. হেলাল উদ্দিনের আদালতে চাকরি থেকে বরখাস্ত হওয়া সাত আসামি আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে বিচারক জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে সবাইকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

ভয়েস টিভি/নিজস্ব প্রতিবেদক/ডিএইচ

Categories
অপরাধ

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদি পালানোর ঘটনায় প্রধান কারারক্ষীসহ বরখাস্ত ৬

গাজীপুর : কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত এক কয়েদি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় কারাগারের প্রধান কারারক্ষীসহ ৬ রক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একইসাথে আরো ৬ কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পাশাপাশি ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। পালিয়ে যাওয়া ওই কয়েদির নাম আবু বকর সিদ্দিক। তার বাড়ি সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার আবাদ চন্ডীপুরে। তিনি যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদি।

এ ঘটনায় কারাগারের জেলার মো. বাহারুল ইসলাম বাদী হয়ে শুক্রবার বিকেলে গাজীপুর মেট্রোপলিটনের কোনাবাড়ি থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

কারাসূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় লকআপ করতে গিয়ে ওই কয়েদিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত ওই কয়েদিকে কারাগারের ভেতরে কোথাও পাওয়া যায়নি। পরে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কারা কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। ধারণা করা হচ্ছে, কারাগারের ১৮ ফুট উচ্চতার সীমানা প্রচীর টপকে ওই কয়েদি পালিয়ে গেছে।

কারাসূত্র আরো জানায়, কয়েদি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় কারাগারের প্রধান কারারক্ষী, সহকারী প্রধান কারারক্ষী ও চার কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত এবং আরো ৬ কারারক্ষীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় অতিরিক্ত আইজি প্রিজনস কর্নেল আবরার হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আরো জানা যায়, অভিযুক্ত কয়েদি আবু বকর সিদ্দিক ২০১১ সালে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ফাঁসির আসামি হিসেবে কাশিমপুর কারাগারে আসেন। ২০১২ সালের ২৭ জুলাই তার সাজা সংশোধন করে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত।

এআইজি প্রিজনস মনজুর হোসেন জানান, তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটিকে ৩ কর্মদিবস সময় দেয়া হয়েছে। কমিটি শনিবার থেকেই কাজ শুরু করবে। ইতোমধ্যে গাজীপুরের পুলিশ সুপার এবং একই সঙ্গে পলাতক বন্দির নিজ জেলা সাতক্ষীরার পুলিশ সুপারকেও বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। পলাতক বন্দির সন্ধান চলছে।

এদিকে কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, কারাগারটি বড় হওয়ায় কারাগারের কোথাও আবু বকর সিদ্দিক লুকিয়ে থাকতে পারেন বলে প্রথমে ধারণা করা হয়। কিন্তু শুক্রবার বিকেলেও তাকে কারাগারে খুঁজে না পেয়ে কোনাবাড়ি থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

এর আগে ২০১৫ সালের ১৩ মে সন্ধ্যায়ও ওই কয়েদি আত্মগোপন করেছিলেন। তখন তিনি সেল এলাকায় সেফটি ট্যাংকির ভেতরে লুকিয়ে ছিলেন। পরদিন তাকে একটি ট্যাংকির ভেতর থেকে উদ্ধার করা হয়।

ভয়েস টিভি/নিজস্ব প্রতিবেদক/ডিএইচ

Categories
অপরাধ জাতীয়

‘নিখোঁজ কয়েদির সন্ধানে অভিযান চলছে’

ঢাকা: কাশিমপুর কারাগার থেকে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত নিখোঁজ সেই কয়েদিকে এখনও পাওয়া যায়নি। তার সন্ধানে অভিযান চলছে বলে জানালেন আইজি প্রিজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম মোস্তফা কামাল পাশা।
এ ব্যাপারে কেউ দায়িত্ব অবহেলা করলে তদন্তের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ থেকে কয়েদি নিখোঁজ হওয়ার পর ০৭ আগস্ট শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে সংবাদমাধ্যকে এসব কথা জানান আইজি প্রিজন।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম মোস্তফা কামাল পাশা জানান, এ বন্দি আগেও একবার কারাগারের ভেতরে লুকিয়ে ছিলেন। পরে তাকে পাওয়া গেছে। কয়েদি নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি আমরা পুলিশকে অবগত করেছি। এখনও কারাগারের ভেতরে অনুসন্ধান চলছে। তবে হতে পারে কয়েদি পালিয়ে গেছে।

ভয়েস টিভি/নিজস্ব প্রতিবেদক/টিআর

Categories
অপরাধ

ওসি প্রদীপসহ তিন আসামি রিমান্ডে

সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপসহ ৩ আসামিকে ৭ দিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে বাকি ৪ আসামিকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে কক্সবাজার আদালতে র‌্যাবের করা রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। প্রত্যেক আসামির ১০ দিন করে রিমান্ড চেয়েছিল র‌্যাব। আদালত তিনজনের ৭ দিন করে মঞ্জুর করেছেন। বাকি ৪ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রদীপ ও লিয়াকতের সঙ্গে রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে এসআই দুলাল রক্ষিতকে। এ মামলায় আত্মসমর্পণ করা বাকি চার আসামি কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং এএসআই লিটন মিয়াকে দুই দিন জেলগেইটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন বিচারক।

মামলার বাকি দুই আসামি এসআই টুটুল ও কনস্টেবল মো. মোস্তফা এখনও পলাতক বলে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি ফরিদুল আলম জানান।

এর আগে কড়া নিরাপত্তায় ওসি প্রদীপকে চট্টগ্রাম থেকে পুলিশি নিরাপত্তা দিয়ে কক্সবাজার আদালতে নেয়া হয়। আর লিয়াকতসহ অন্য ৮ আসামিকে জেলা পুলিশ লাইন্স থেকে কক্সবাজার আদালতে আনা হয়। পরে বিকেলে ৮ আসামি ও প্রদীপকে সরাসরি আদালতে নেওয়া হয়। পরে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তাদেরকে আদালতের এজলাসে তোলা হয়।

পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা মো. রাশেদ নিহতের ঘটনায় ৯ পুলিশ সদস্যকে আসামি করে বুধবার মামলা করেন তার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। টেকনাফ উপজেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারহার আদালতে মামলাটি করা হয়। পরে মামলাটি আদালত আমলে নিয়ে টেকনাফ থানার ওসিকে এজাহারের ধারা অনুযায়ী হত্যা মামলা হিসেবে রেকর্ড করার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি মামলাটি রেকর্ড করে সাত দিনের মধ্যে আদালতকে অবগত করার আদেশও দেন আদালত।

গত ৩১ জুলাই রাত ১০টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

ভয়েস টিভি/নিজস্ব প্রতিবেদক/টিআর

Categories
অপরাধ সারাদেশ

ওসি প্রদীপ গ্রেফতার

চট্টগ্রাম: কক্সবাজারের টেকনাফের শামলাপুরে পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় করা মামলায় টেকনাফ মডেল থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

৬ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশি হেফাজতে কক্সবাজার নেয়া হয়েছে।

গত ৩১ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের বাহারছড়া শামলাপুর তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সিনহা রাশেদ খান।

এ ঘটনায় ৫ আগস্ট বুধবার কক্সবাজারে টেকনাফ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে ওসি প্রদীপ ও মো. লিয়াকতসহ নয়জনকে অভিযুক্ত করে হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত সাবেক মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে টেকনাফ থানার ওসিকে মামলাটি এফআইআর হিসাবে রুজু এবং র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব-১৫) তদন্তের নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্র জানা যায়, আদালতের আদেশ মতে দায়ের করা মামলাটি বুধবার রাতেই টেকনাফ মডেল থানায় নিয়মিত একটি হত্যা মামলা হিসাবে রুজু করা হয়েছে। মামলা নম্বর সিআর: ৯৪/২০২০ ইংরেজি (টেকনাফ)। দণ্ডবিধি ৩০২, ২০১ ও ৩৪ জামিন অযোগ্য ধারায় রুজু হওয়া এ মামলায় এজাহারভুক্ত নয়জন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে।

ওসি প্রদীপ ও লিয়াকত ছাড়া মামলায় এসআই নন্দলাল রক্ষিত, এসআই টুটুল, এএসআই লিটন মিয়া, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন ও কনস্টেবল মো. মোস্তফার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে।

এ মামলায় সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের সঙ্গী ও ৩১ জুলাই এর ঘটনায় টেকনাফ পুলিশের দায়ের করা মামলার আসামি সাহেদুল ইসলাম সিফাতসহ ১০ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।

ভয়েসটিভি/প্রতিবেদক/এএস