Categories
বিনোদন

নতুন ভোটার দীঘির কাছে ভোট চাইলেন বাবা  

ঢাকাই চলচ্চিত্রের একসময়ের ব্যপক জনপ্রিয় শিশুশিল্পী প্রার্থনা ফারদিন দীঘি এখন চিত্রনায়িকা। তিনি প্রায় দেড় ডজন সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন। সম্প্রতি তিনি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদস্য হয়েছেন। এদিকে কিছুদিন পরই সংগঠনের নির্বাচন। সুতরাং তিনি সংগঠনের নতুন ভোটার। আর ভোটার হবার পরই নিজের বাবা সুব্রত সবার সম্মুখে ভোট চাইলেন।

ভোটার হবার ব্যপারে দীঘি বলেন, ‘এবার নিজে ভোট দিতে পারবো এ কারণে আমি খুবই এক্সাইটেড। এর আগে হয়তো চাইলে ভোটার হতে পারতাম। কিন্তু বাবা কেন জানি আমাকে সদস্য করেনি। বাবা সবসময় বলতেন, আস্তে ধীরে ভোটার হওয়া যাবে।’

এদিকে দীঘির বাবা অভিনেতা সুব্রত বরাবরই শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নিয়ে আসছেন। এ বছর তিনি মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান প্যানেল থেকে সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন। বাবার জয় নিয়ে শতভাগ আশাবাদী দীঘি।

তিনি বলেন, ‘বাবাকে আমি কখনও নির্বাচনে হারতে দেখিনি। তিনি সবসময় তার কর্মগুণে জয়ী হয়েছেন। আমি মনে করি আমার ভোট চাওয়ার জন্য বাবা জিতে যায় এমনটা নয়। তিনি সকলের পছন্দের মানুষ। তাকে আপন মনে করে প্রতিবার সবাই ভোট দেয়।’

মিশা-জায়েদ প্যানেলের পরিচিতি অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে দীঘি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। তখন তার বাবা আনুষ্ঠানিকভাবে মেয়ের কাছে ভোট চান।

সুব্রত বলেন, ‘প্রার্থনা ফারদিন দীঘি, তুমি এবার প্রথম ভোটার হয়েছো। তুমি জানো যে সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে সুব্রত দাঁড়িয়েছে। সে তোমার কী হয়, তা জানার দরকার নেই। তুমি এবার প্রথম ভোটার হিসেবে সুব্রতকে তোমার ভোট প্রদান করবে। এটাই আমি মনেপ্রাণে কামনা করি।’

ভয়েসটিভি/আরকে

Categories
বিনোদন

আনুশকার মেয়ের ছবি ভাইরাল!

বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা ও ভারতীয় ক্রিকেটার বিরাট কোহলি ঘর করছেন অনেকদিন। এর মধ্যে গত বছরের ১১ জানুয়ারি তাদের প্রথম কন্যা সন্তান ভামিকা জন্ম নিয়েছেন। তবে জন্মের পর থেকে কন্যার কোনো ছবি কোনো মাধ্যমে প্রকাশ করতে দেননি বিরুস্কা দম্পতি। তবে শেষমেশ ফাঁস হয়ে গেলো ছবি। আর মুহুর্তে হয়ে গেলো ভাইরাল।

কেপটাউনে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ চলাকালীন সময়ে প্রকাশিত হয়ে যায় বিরাট-আনুশকা দম্পতির মেয়ে ভামিকার ছবি।

মূলত ভামিকাকে নিয়ে ভারতের ম্যাচ দেখতে স্টেডিয়ামে গিয়েছিলেন আনুশকা। সেই ম্যাচেই বিরাটের অর্ধ শতরান পূরণ হওয়ায় তাকে উৎসাহিত করতে হাততালি দিচ্ছিলেন মা ও মেয়ে। আর ঠিক সেই সময়ই সম্প্রচারের দায়িত্বে থাকা সংস্থা সেই ছবিটি তুলে ধরেন। ফলে নিমেষে ভামিকার ছবি ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

তবে বিরাট-আনুশকা দম্পতি যে নিজেদের পূর্বের সিদ্ধান্তে এখনো অটল তার প্রমাণ মিলেছে তাদের ইনস্টাগ্রাম স্টোরির এক বিবৃতিতে। বিবৃতিতে তারা লিখেছেন, ‘আমরা বুঝতে পেরেছি আমাদের মেয়ের ছবি গতকাল স্টেডিয়ামে বন্দি হয়েছে এবং সেটা ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা সবাইকে বলতে চাই, আমরা হতভম্ব এবং সত্যি বুঝতে পারিনি ক্যামেরা আমাদের দিকে তাক করা ছিল। আমরা এখনো একই অবস্থানে রয়েছি এবং একই অনুরোধ জানাচ্ছি যে, আমরা সত্যিই চাই ভামিকার ছবি তোলা না হোক বা সেটি প্রকাশ্যে না আনা হোক ’।

এদিকে বিরাট-আনুশকার পাশাপাশি এই ঘটনায় সম্প্রচার সংস্থার উপর বেজায় চটেছেন বিরাট-আনুশকার ভক্ত-অনুরাগীরা। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ভামিকার ছবি সরিয়ে দেওয়ার দাবি জানান তারা। পাশাপাশি সম্প্রচার সংস্থাকে তুলোধনা করে অনুরাগীদের বক্তব্য, ওদের প্রাইভেসিকে সম্মান করুন।

সন্তানের জন্মের পর থেকেই সংবাদমাধ্যমের কাছে তাদের ব্যক্তিগত জীবন থেকে দূরে থাকার অনুরোধ করেছিলেন বিরাট-আনুশকা। তবে ফ্যানদের কৌতূহল মেটাতে মাঝেমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় মেয়ের সঙ্গে ছবি পোস্ট করতেন তারা। যদিও কোন ছবিতেই ভামিকার মুখ দেখা যায়নি।

এদিকে ভামিকার ছবি দেখে নেটিজেনদের অনেকেই তার মুখের সঙ্গে মিল খুঁজে পেয়েছেন ছোটবেলার বিরাট কোহলির মুখের। কেউ কেউ এমনও লিখেছেন, জুনিয়র কোহলি।

ভয়েসটিভি/আরকে

Categories
বিনোদন

করোনাক্রান্ত অমিতাভ রেজা ডিরেকশন দিচ্ছেন বাসা থেকে

চলচ্চিত্র ও বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু বন্ধ থাকেনি তার শুটিং। করোনা পজিটিভ হয়েও বাসায় বসে ভিডিওকলে তিনি একশান/কাট বলছেন। আর তার ডিরেকশনে সেটে শুটিং চলছে।

অমিতাভ রেজা জানান, ‌তিনি কোভিড পজিটিভ। হেয়ার স্পেশালিস্ট এসেছে বিদেশ থেকে। দুর্দান্ত একটা শুটের জন্য পুরো টিম তৈরি। এর মাঝেই বিপদ ঘটে গেছে।

তিনি বলেন, ‘অসুখ-বিসুখ কখনও কিছু করতে পারে নাই আমাকে। তাই নিজ ঘরে থেকে পুরো শুটিং শেষ হলো। কাজটা কিন্তু অসম্ভব যদি না আমার প্রযোজক ও সহকর্মীরা সহযোগিতা করতেন।’

তিনি জানান, একটি বিজ্ঞাপনচিত্রের কাজ ছিল এটি। যার মডেল হয়েছেন বিদ্যা সিনহা মিম। ‘আয়নাবাজি’-খ্যাত এ নির্মাতার শারীরিক অবস্থা এখন ভালো। বাসাতেই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী থাকছেন তিনি।

অমিতাভ রেজা বলেন, ‘বিজ্ঞাপনচিত্র নির্মাণ খুব বিশেষ কিছু না। চাইলে যেকোনও পরিস্থিতিতে শুটিং চালিয়ে যাওয়া সম্ভব যদি টিমটা ভালো হয়।’

শীঘ্রই বিজ্ঞাপনটি টেলিভিশন ও অনলাইন চ্যানেলগুলোতে দেখা যাবে বলেও  জানান তিনি।

ভয়েসটিভি/আরকে

Categories
বিনোদন ভিডিও সংবাদ

বিয়ে না করেও হয়েছেন একাধিক সন্তানের মা

কৈশর থেকেই বেচেঁ থাকার তাগিদে শুরু হয় লড়াই।দৃষ্টিশক্তি দুর্বল হওয়ায় ভেঙ্গে গিয়েছে অনেক স্বপ্ন।বিয়ে না করেও মা হয়ে ওঠা গীতা কাপুর আজ বলিউড ইন্ডাষ্ট্রির প্রথম সারির কোরিওগ্রাফার।

না ছিলো বলিউডের সাথে কোনো যোগাযোগ,না জন্মেছে সোনার চামুচ মুখে নিয়ে।নিজের ইচ্ছে শক্তির উপ ভর করে হয়ে উঠেছে গীতা মা।ডান্সার হবার ইচ্ছে ছিলো না কখনো,চেয়েছিলো আকাশে উড়তে,বিমান ক্রু হতে সেভাবে প্রস্তুতিও নিচ্ছিলো কিন্তু বাঁদ সাধলো চোখের দৃষ্টি্।

তিনবার বিমান সেবিকার জন্য পরীক্ষা দিলেও শারিরীক পরীক্ষার সময় বাদ পড়ে যান গীতা।এদিকে পারিবারিক দায়বদ্বতাও বাড়ছিলো।

একপ্রকার বাদ্য হয়েই ১৫ বছর বয়সে গীতা ফারাহ খানের ডান্স ইনিস্টিটিউটে যোগদান করেন তিনি।

৫ জুলাই ১৯৭৩ সালে ভারতের মুম্বাই, মহারাষ্ট্রে জন্মগ্রহণ করেন গীতা কাপুর।বিয়ে না করেও হয়েছেন একাধিক পুত্র কন্যার জননী।শিষ্যরা ভালবেসেই তাকে মা বলে ডাকে।

গীতার উদার ও সাহায্য করার মনোভাব ই তাকে আজ এ পর্যায়ে নিয়ে এসেছে।নিজের শেকড় ভুলে না যাওয়া গীতা আজ কোনো ডান্স রিয়েলিটি শোর মধ্যমনি।

শুরুটা গীতা কাপুরের মোটেও সুখকর ছিলো না।ছিলেন জুনিয়র আর্টিস্ট হিসেবে।তখন ছোট ছোট কাজের অফার আসছিলো।এর মধ্যই গীতার সাথে ফারার পরিচয় হয় কিছুটা অদ্ভুদ ভাবে।

ফারার নাচ দেখে তার বাবা মেয়ের সামনেই ফারাহ কে প্রসংশায় ভাসালেন,তা দেখে গীতার মনে কিছুটা হিংসার জন্ম নেয়।এর কিছুদিন পরে গীতার কাছে একটি আনুষ্ঠানিক নাচের প্রস্তাব আসে।

গীতা সেই শোতে নিজের সবটা উজার করে দেয়।নাচ দেখে মুগ্দ ফারাহ গীতাকে তার একাডেমিতে যুক্ত হতে বলে,পুরানো হিংসা ভুলে গীতা ফারার সাথে কাজ শুরু করে।

সুচিত্রা কৃষ্ণমূর্তির দম তারা গান, কুছ কুছ হোতা হ্যায় সিনেমার ‘তুঝে ইয়াদ না মেরি আয়ে’ এবং মে হুঁ না তে গোরি গোরি গানের মতো অনেক গানের সিকোয়েন্সে ব্যাকগ্রাউন্ড ড্যান্সার হিসেবে তার ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন।

এরপর গীতা ধীরে ধীরে কোরিওগ্রাফি শুরু করেন,ফিজা ছিল প্রথম চলচ্চিত্র যেখানে তিনি প্রধান কোরিওগ্রাফার ছিলেন।

এরপর দিলসে সিনেমায় ছাইয়া ছাইয়া গানে কোরিওগ্রাফি করে আসেন তুমুল আলোচনায়।বাড়তে থাকে পরিচিতি হতে থাকে জনপ্রিয়।

২০০৮ সালে জি টিভিতে রিয়েলিটি শো ডান্স ইন্ডিয়া ড্যান্স সিজন ১ এর মাধ্যমে গীতা তার টেলিভিশনে আত্মপ্রকাশ করেন, সহ-বিচারক কোরিওগ্রাফার টেরেন্স লুইস এবং রেমো ডি’সুজার সাথে।

সেই শুরু থেকে এখন পর্যন্ত অসংখ্য ডান্স রিয়েলিটি শোতে বিচারকের ভুমিকা পালন করেছেন।পেয়েছেন একাধিক পুরুষ্কার ও সম্মাননা।

কোরিওগ্রাফার ফিরোজ খান তাকে প্রথমবার গীতা মা বলে ডাকেন এবং পরে সবাই তার উদারতা স্নেহশুলভ আচরনের জন্য মা ডাকতে শুরু করেন।

Categories
বিনোদন

ঢাকা চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কার পেলো বাংলাদেশের তিন ছবি 

এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের নয়দিনব্যাপী আয়োজনের পর্দা নামলো। সমাপণী দিনে পুরস্কৃত করা হয় বিজয়ী সিনেমা ও সিনেমার কুশলীদের। এবারের উৎসবে বাংলাদেশের তিনটি ছবি পৃরস্কৃত হয়।

‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’ এই প্রতিপাদ্যে ২৩ জানুয়ারি রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে এই উৎসবের সমাপণীতে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

এবারে দর্শক পছন্দে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করে ‘চন্দ্রাবতী কথা’ ও ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’। বাংলাদেশ প্যানোরোমা বিভাগে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে শবনম ফেরদৌসী নির্মিত সিনেমা ‘আজব কারখানা’ ।

এছাড়াও এশিয়ান চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতা বিভাগে বাংলাদেশ-ভারতের ‘মায়ার জঞ্জাল’ চিত্রনাট্যের জন্য পুরস্কার পায়। সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার পায় ভারতের ‘কুজহানগাল’।

এদিকে চীনের ‘ক্যাফে বাই দ্য হাইওয়ে’ (সিনেমাটোগ্রাফি), সেরা অভিনেত্রী ভারতের সুশান প্রভা (বোটক্স) এবং সেরা অভিনেতা ভারতের জয়াসুরিয়া (সানি)।

নারী নির্মাতা বিভাগে ফিনল্যান্ডের ‘দ্য আদার সাইড অব দ্য রিভার’ (সেরা প্রামাণ্যচিত্র), ফ্রান্সের ‘আ সামার প্লেস’ (সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য) এবং ইরানের ‘সাহারবানু’ (সেরা ফিচার ফিল্ম) পুরস্কার পেয়েছে।

এছাড়াও শিশুতোষ চলচ্চিত্র বিভাগে সেরা রাশিয়ার ‘আফ্রিকা’ এবং দর্শক পছন্দে সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে ‘সেমখোর’।

আরও পড়ুন: ফিরে দেখা বিনোদন বিশ্ব

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সুন্দর দেশ, সমাজ ও পৃথিবী গড়তে চলচ্চিত্র অনন্য ভূমিকা রাখতে পারে। এ দেশের কালজয়ী চলচ্চিত্রগুলো আমাদের স্বাধিকার আন্দোলনে, স্বাধীনতা সংগ্রামে ও স্বাধীনতা-উত্তরকালে দেশ গঠনে ভূমিকা রেখেছে।

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক বিষয়, যা সমাজ ও সমাজপতিরা ভাবে না, সেগুলোও চলচ্চিত্রের মাধ্যমে উঠে আসে, সমাজকে পথ দেখায়।’

মূল আয়োজক রেইনবো ফিল্ম সোসাইটির বোর্ড সদস্য মফিদুল হকের সভাপতিত্বে ও উৎসব পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামালের পরিচালনায় শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী ও ঢাকা ক্লাবের প্রেসিডেন্ট খন্দকার মশিউজ্জামান রোমেল অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন।

এবারের উৎসবে প্রায় ৭০টি দেশের ২২৫টি সিনেমা প্রদর্শিত হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ মিলনায়তন ডি ঢাকা, স্টার সিনেপ্লেক্স, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, সুফিয়া কামাল জাতীয় পাবলিক লাইব্রেরি এবং প্রথমবারের মতো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একাডেমি মিলনায়তনে এগুলো প্রদর্শন করা হয়।

ভয়েসটিভি/আরকে  

Categories
বিনোদন ভিডিও সংবাদ

বলিউডে শীর্ষ ১০ ধনী নায়িকা

প্রায় সময়ই সেলিব্রেটিদের আয় নিয়ে বেশ কৌতুহল জাগে সবার মনে। আসলে তারা কতটা আয় করেন? এই প্রশ্নটি যাদের মনে ঘোরে তাদের বেশিরভাগই ফ্যান, ফলোয়ার। তাদের কথা মাথায় রেখে অবাক করা সেই আয়ের হিসাব বরাবরই প্রকাশ করে বেশ কিছু মাধ্যম।

তবে শুধু যে অভিনয় করেই তারা আয় করছেন এমনটা নয়। বিজ্ঞাপন, ব্যবসা ও ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হওয়ার সুবাদেও কিন্তু বেশ আয় করে থাকেন তারা। সম্প্রতি বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে তথ্য জড়ো করে বলিউড অভিনেত্রীদের সম্পদের হিসাবের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে এসসিএমপি ডটকম। জেনে নিন বলিউডের কোন তারকা কত আয় করছেন।

ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন—১০ কোটি ডলার

৪৭ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী এখন ১০ কোটি ডলারের মালিক। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ল’রিয়েল গ্লোবাল-এর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ঐশ্বরিয়া। চুক্তিটিই তাকে মূলত মোটা অঙ্কের টাকা এনে দিয়েছে। বলিউডের অন্যতম মুখ হিসেবে ঐশ্বরিয়া তার ক্যারিয়ারে অনেক ব্র্যান্ডের জন্য কাজ করেছেন। তালিকায় আছে লাক্স, কোকাকোলা, লঙ্গিনস ও পেপসি। ইকোনমিক টাইমস ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন অনুযায়ী, তিনি পুষ্টিভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে প্রায় সাড়ে ছয় লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছেন।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া-৭ কোটি ডলার

অবাক হওয়ার কিছু নেই যে আন্তর্জাতিক তারকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকবেন। সেলিব্রিটি নেট ওয়ার্থ-এর তথ্যানুসারে, ৩৯ বছর বয়সী এই তারকার মোট সম্পদ ৭ কোটি ডলার। হলিউডে তার ক্যারিয়ার যতই এগোচ্ছে ততই বাড়ছে আয়। এখন প্রিয়াঙ্কা বছরে আয় করছেন প্রায় ১ কোটি ডলার। সুতরাং তিনি যে সামনে আরও অনেককে ছাড়িয়ে যাবেন তাতে সন্দেহ নেই। সম্প্রতি তিনি ইতালিয়ান ব্র্যান্ড বুলগারির শুভেচ্ছাদূত হিসেবেও নিযুক্ত হয়েছেন।

কারিনা কাপুর-৬ কোটি ডলার

৪১ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী এখন পর্যন্ত দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বলিউডে রাজত্ব করছেন। আইবি টাইমস ইন্ডিয়া অনুসারে তার আনুমানিক সম্পদের মূল্য ৬ কোটি ডলার। কারিনা ১৫টিরও বেশি ব্র্যান্ডের সঙ্গে কাজ করছেন।

আনুশকা শর্মা-৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার

ডিএনএ ইন্ডিয়ার মতে, অভিনেত্রী ও চলচ্চিত্র প্রযোজক আনুশকা শর্মার আনুমানিক সম্পদ ৪৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আরও বলা হয়েছে, ‘পিকে’-খ্যাত এ অভিনেত্রী ছবিপ্রতি ২০ লাখ ডলারও নিচ্ছেন।

৩৩ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর পারিশ্রমিক বেশ মোটা অঙ্কের হলেও তার এতো সম্পদের নেপথ্যে আছে নিভিয়া, প্যানটিন, এলে ১৮ কসমেটিকস, গুগল পিক্সেল ও ভিভো ব্র্যান্ড। আবার ২০১৩ সালে, শর্মা (তার ভাই) কার্নেশ শর্মার সঙ্গে ক্লিন স্লেট ফিল্মজ প্রতিষ্ঠা করেন। একসঙ্গে তারা কয়েকটি হিট চলচ্চিত্র ও টিভি শো তৈরি করেছেন।

দীপিকা পাড়ুকোন-৪ কোটি ডলার

‘পদ্মাবত’-খ্যাত এ তারকা কোকাকোলা, নাইকি, লরিয়াল প্যারিস, শোপার্ড ও টিশটের মতো বড় ব্র্যান্ডের হয়ে কাজ করেছেন। সম্প্রতি তিনি তার নিজস্ব লাইফস্টাইল ব্র্যান্ড ঘোষণা করেছেন। সেলিব্রিটি নেট ওয়ার্থ-এর তথ্যমতে, দীপিকার আনুমানিক সম্পদ ৪ কোটি ডলার।

মাধুরী দীক্ষিত-৩ কোটি ৬০ লাখ ডলার

’৯০ দশকের শীর্ষ অভিনেত্রীদের একজন মাধুরী। এখনও তার অবদান বা সম্পদ কিছুই ফুরোয়নি। সেলিব্রেটি নেট ওয়ার্থ অনুসারে, ৫৪ বছর বয়সী মাধুরীর সম্পদ সাড়ে তিন কোটি ডলারেরও বেশি। টিভি-সিনেমা মিলিয়ে এখনও সমানতালে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

২০০৭ সালে কিছু দিন বিশ্রাম নিলেও বলিউডে আবার নিয়মিত হয়েছেন। ২০১৯ সালেই তাকে দেখা গেছে ‘টোটাল ধামাল’-এ।

এ ছাড়া নাচের প্রতিযোগিতা ‘ঝলক দিখলা জা’, ‘সো ইউ থিঙ্ক ইউ ক্যান ডান্স (ইন্ডিয়া)’ এবং ‘ডান্স দিওয়ানে’র বিচারক হিসেবেও ভালো আয় করেছেন তিনি। এর বাইরে মোটা অঙ্কের টাকা পাচ্ছেন নিউট্রেলা, ডাবর ও কান্ট্রি ডিলাইট-এর মতো ব্র্যান্ডের হয়ে কাজ করে।

ক্যাটরিনা কাইফ-৩ কোটি ডলার

সেলিব্রেটি নেট ওয়ার্থ-এর হিসাবে বলিউডের পরিশ্রমী অভিনেত্রী ক্যাটরিনার মোট সম্পদ এখন তিন কোটি ডলার। ৩৫ বছর বয়সী এ অভিনেত্রী গত পাঁচ বছরে অসংখ্য বক্স-অফিস হিট ছবিতে অভিনয় করেছেন।

জিকিউ ইন্ডিয়ার রিপোর্ট অনুযায়ী রিবক, ট্রপিকানা, লেন্সকার্ট, মেট্রো জুতা এবং অপোর মতো বেশ কয়েকটি বড় ব্র্যান্ডের হয়েও কাজ করেছেন ক্যাট। এসব থেকে বছরে তার আয় ৩০ লাখ ডলারের কাছাকাছি। ‘কে বিউটি’ নামে একটি নিজস্ব মেকআপ ব্র্যান্ডও চালু করেছেন।

শিল্পা শেঠি-১ কোটি ৮০ লাখ ডলার

বলিউডে এখন না গেলেও টিভিতে আছেন পুরোদমে। ‘জারা নাচকে দেখা’, ‘নাচ বলিয়ে’ এবং ‘সুপার ড্যান্সার’-এর মতো নৃত্য প্রতিযোগিতার বিচারক শিল্পা। টাইমস অব ইন্ডিয়ার মতে, শিল্পা এসব অনুষ্ঠানে নিজের উপস্থিতির জন্য ১০ থেকে ১৪ কোটি রুপি করে উপার্জন করেছেন।

অন্যদিকে শিল্পা সফল ব্যবসায়ীও। যুক্তরাজ্যের সেলিব্রিটি বিগ ব্রাদার জেতার পর খুব বেশি সিনেমায় কাজ না করলেও তিনি তৈরি করেছেন একটি সফল ফিটনেস অ্যাপ-সোলফুল। তার আছে একটি উন্নতমানের রেস্তোরাঁ ও ফ্যাশন প্রতিষ্ঠান।

কাজল-১ কোটি ৬০ লাখ ডলার

‘তানহাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’ (২০২০) এবং নেটফ্লিক্সের ‘ত্রিভাঙা’র মতো সিনেমা করে কাজলের জনপ্রিয়তার ব্যারোমিটার আবার ঊর্ধ্বমুখী। রিপাবলিক ওয়ার্ল্ড-এর রিপোর্ট অনুয়ায়ী, শিব শক্তি নামে মুম্বাইতে একটি বিলাসবহুল ভবনের মালিক কাজল। চার্মিস, জয়লুক্কাস জুয়েলারি এবং ওয়ার্লপুল ইন্ডিয়ার মতো ব্র্যান্ডগুলোর কাছ থেকে পান মোটা অঙ্কের পারিশ্রমিক।

বিপাশা বসু-১ কোটি ৫০ লাখ ডলার

প্রায় বাইশ বছর আগে ফ্যাশনেবল তারকা হিসেবে আধিপত্য বিস্তার তার। সুজান খান ও মালাইকা অরোরার সঙ্গে ‘দ্য লেবেল লাইফ’ নামে একটি লাইফস্টাইল ব্র্যান্ডের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিপাশা। সেলেব্রিটি নেট ওয়ার্থ জানালো, বিপাশা এখন দেড় কোটি ডলারের মালিক।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
বিনোদন

৯৪তম অস্কারের শর্টলিস্টে বাংলাদেশের ‘দ্য গ্রেভ’

বাংলাদেশের প্রথম ইংরেজী ভাষার পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা ‘দ্য গ্রেভ’ প্রথমবারের মতো অস্কারের ৯৪তম আসরের সংক্ষিপ্ত তালিকায় স্থান করে নিয়েছে। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত গাজী রাকায়েত পরিচালিত ছবিটি ২৭৬টি শর্ট লিস্টেড ছবির মধ্যে রয়েছে।

অস্কার কর্তৃপক্ষ ঘোষিত এ বছরের নির্বাচিত ২৭৬টি ফিচার ছবির তালিকায় রয়েছে- ‘বিয়িং দ্য রিচার্ডোস’ (আমাজন স্টুডিওস), ‘বেলফাস্ট’ (ফোকাস ফিচার্স), ‘কাম’ অন কাম’অন’ (এটুয়েন্টিফোর), ‘ক্যান্ডিম্যান’ (ইউনিভার্সাল পিকচার্স), ‘কোডা’ (অ্যাপল ওরিজিনাল ফিল্মস), ‘ডিউন’ (ওয়ার্নার ব্রাদার্স), ‘এনচ্যান্টো’ (ওয়াল্ড ডিজনি পিকচার্স), ‘হাউজ অব গুচি’ (এমজিএম), ‘নাইটমেয়ার অ্যালে’ (সার্চলাইট পিকচার্স), ‘প্যারালেল মাদার্স’ (সন পিকচার্স ক্লাসিকস), ‘দ্য পাওয়ার অব ডগ’ (নেটফ্লিক্স), ‘অ্যা কোয়াইট প্লেস পার্ট টু’ (প্যারামাউন্ট পিকচার্স), ‘স্পেন্সার’ (নিয়ন/টপিক স্টুডিওস), ‘স্পাইডার-ম্যান: নো ওয়ে হোম’ (সনি পিকচার্স) ও ‘ওয়েস্ট সাইড স্টোরি (টুয়েন্টিথ সেঞ্চুরি স্টুডিও)। এসব ছবির সঙ্গে নাম জুড়ে আছে বাংলাদেশের ছবি ‘দ্য গ্রেভ’র।

আগামী ২৭ জানুয়ারি অস্কারের চূড়ান্তপর্বের মনোনয়নের জন্য ভোটগ্রহণ শুরু হবে। ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে ভোট। ফেব্রুয়ারি মাসের ৮ তারিখে চূড়ান্ত মনোনয়নপ্রাপ্তদের তালিকা জানিয়ে দেওয়া হবে।

আগামী ২৭ মার্চ ৯৪তম অস্কার অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। এবছর হলিউডের ঐতিহ্যবাহী ডলবি থিয়েটার ভেন্যুতে ফিরে আসবে অস্কার। ১ মার্চ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ সালের মধ্যে মুক্তিপ্রাপ্ত সেরা সিনেমাগুলোকে সম্মানিত করতে আয়োজন হচ্ছে অস্কার ২০২২-এর।

আরও পড়ুন: অস্কারের সংক্ষিপ্ত তালিকা থেকে বাদ ‘রেহানা মরিয়ম নূর’

বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য ইংরেজি সিনেমা ‘দ্য গ্রেভ’। বাংলা ভার্সনের নাম ‘গোর’। এটি দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে। ওয়ার্ল্ড টিভি প্রিমিয়ার হয়েছে চ্যানেল আইয়ের পর্দায়। অন্যদিকে ইংরেজি ভার্সনে তৈরি ‘দ্য গ্রেভ’ হলিউডের প্রেক্ষাগৃহে ছাড়াও আমেরিকান একাধিক ওটিটি প্লাটফর্মেও মুক্তি পেয়েছে।

‘দ্য গ্রেভ’ পরিচালনার পাশাপাশি চিত্রনাট্য, কাহিনী ও সংলাপও করেছেন গাজী রাকায়েত। বিশেষ একটি চরিত্রে অভিনয়ও করেছেন তিনি। তার সঙ্গে আরও অভিনয় করেছেন বর্ষিয়াণ অভিনেতা মামুনুর রশীদ, অভিনেত্রী দিলারা জামান। অভিনয় করেছেন এ প্রজন্মের শামীমা তুষ্টি, মৌসুমী হামিদসহ অনেকে।

ভয়েস টিভি/আরকে

Categories
বিনোদন ভিডিও সংবাদ

বিত্তশালী পুরুষদের প্রতি দুর্বল ছিল জ্যাকলিন!

জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ কি বরাবরই বিত্তশালীদের প্রতি দুর্বল? তার প্রেমিকদের নামের তালিকা দেখে এমন প্রশ্ন উঠতেই পারে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টেনে আনলো পুরনো এক সম্পর্ককে।

শ্রীলঙ্কান সুন্দরী জ্যাকলিন যেমন সুকেশ চন্দ্রশেখরের মতো ধনার্ঢ্য প্রতারকের প্রেমিকা, তেমনই তার তুমুল প্রেম ছিল বাহারাইনের যুবরাজের সঙ্গেও। সুকেশ যদি হন ‘২০০ কোটির মালিক’, সেই শেখ হাসান বিন রশিদ আল খলিফার সম্পত্তির পরিমাণ কত জানেন?

সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, ১১.৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার! ২০১১-র একটি সমীক্ষা অনুযায়ী, তিনি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী রাজ পরিবারের সদস্যদের অন্যতম।

জ্যাকলিনের সঙ্গে যুবরাজের প্রেম কিন্তু এক-দু’দিনের নয়। প্রায় দশ বছর নাকি দুজনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। শেখ হাসান বিন রশিদ আল খলিফা দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াতে ভালবাসেন।

ভ্রমণ পিয়াসীর পাশাপাশি তিনি প্রথম সারির সঙ্গীতশিল্পীও। কোনো এক অনুষ্ঠানে জ্যাকলিনের সঙ্গে পরিচয়। সেভাবেই জ্যাকলিনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

২০১১ সালে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে যুবরাজ নাকি স্বীকার করেছিলেন, তিনি ও জ্যাকলিন প্রেম করেছেন। কিন্তু নানা সমস্যায় দুজনে আলাদা হয়ে যায়। এমনকি যুবরাজ দাবি করেছেন, নায়িকার জীবনে একাধিক পুরুষের উপস্থিতি টের পেয়েছেন তিনি।

সেই তালিকায় সাজিদ খান, অ্যাডাম ক্যাল্ডেরারের নাম রয়েছে। যদিও জ্যাকলিন তা অস্বীকার করেছেন। বিচ্ছেদের পরে নাকি বিরহে কাতর যুবরাজ একটি গানের অ্যালবামও প্রকাশ করেন।

বলিউডের অন্দরে অনেক দিন ধরেই জোর গুঞ্জন; জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ ও অর্জুন কাপুর নাকি সম্পর্কে জড়িয়েছেন!

এ গুঞ্জন কানে এসেছে জ্যাকলিন-অর্জুনেরও।

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুজনেই একরকম আকাশ থেকে পড়েন! দুজনে এতটাই অবাক হয়েছিলেন যে উপস্থিত সাংবাদিকরাও ঘাবড়ে যান। জ্যাকুলিন বলে ওঠেন, ‘ওহ্! মাই গড।’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, সে পর্ব অতীত। বর্তমানে চর্চায় জ্যাকলিন-সুকেশ। প্রকাশ পেয়েছে দুজনের ঘনিষ্ঠ ছবিও।

সে ছবি না ছড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে জ্যাকলিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বার্তা দেন, ‘আপনাদের প্রিয়জনের গায়েও কি এ ভাবেই আপনারা কাদা ছেটান?’ ইতিমধ্যেই ২০০ কোটির প্রতারণায় অভিযুক্ত হয়েছেন জ্যাকুলিনের প্রেমিক সুকেশ।

প্রতারণার সঙ্গে নায়িকার যোগসূত্র রয়েছে কিনা তা যাচাই করতে দুইবার গোয়েন্দা সংস্থার মুখোমুখি হয়েছেন তিনি।

এর আগে জ্যাকলিন দাবি করেন, তিনি সুকেশের আসল পরিচয় জানতেন না।

শোনা গিয়েছিল, জ্যাকলিনের সঙ্গে পরিচয় হওয়ার আগে তার সম্পর্কে অনেক খোঁজখবর নিয়েছিল সুকেশ। সে ভালভাবেই জানত, তখন অভিনেত্রীর হাতে কোনও বড় কাজ ছিল না।

সেই সুযোগ নিয়েই ৫০০ কোটি টাকা বাজেটের সিনেমা তৈরির প্রস্তাব দিয়েছিল। সুপারহিরো ফিল্মের সিরিজ তৈরি করার প্রস্তাব দিয়েছিল সুকেশ। জ্যাকুলিনকে নাকি অ্যাঞ্জেলিনা জোলির মতো দেখতে, এমনটাই জানিয়েছিল সে।

এদিকে সুকেশের দাবি, জ্যাকুলিনকে সে মোট ৭ কোটি টাকার গয়না দিয়েছে। আমেরিকায় থাকেন জ্যাকলিনের বোন। তাকে প্রায় এক কোটি টাকা লোন অফার করার পাশাপাশি একটি বিএমডব্লিউ গাড়িও দিয়েছে।

জ্যাকলিনের মাকে দিয়েছে একটি পোর্শে গাড়ি। অভিনেত্রীর পরিবারকে একটি দামী ইটালিয়ান গাড়ি দিয়েছে বলেও দাবি করেছে সুকেশ। জ্যাকুলিনের পাশাপাশি অভিনেত্রী নোরা ফতেহিকেও নাকি একাধিক দামী উপহার দিয়েছিল সুকেশ।

Categories
বিনোদন ভিডিও সংবাদ

ঘনিষ্ঠ দৃশ্য ছড়িয়ে পড়ার পরও পিছু হটেননি যে নায়িকা

বলিউড অভিনেত্রী রাধিকা আপ্তে মূলত সব সময় আলোচনায় থাকেন। কখনো কখনো তাকে ঘিরে দানা বাঁধে বিতর্ক। কখনো তার সাহসী ছবি, কখনো নগ্ন ভিডিও ক্লিপ নেট দুনিয়ায় ঝড় তোলে।

এবার নিজেই ফাঁস করেছেন সিনেমায় অভিনয়ের জন্য পরিচালকের সঙ্গে উত্তেজক কি করেছেন তিনি।

বলিউডের একঝাঁক নায়িকাদের ভিড়েও রাধিকাকে সহজেই চেনা যায়। পুণের থিয়েটারের মঞ্চ হোক বা বলিউডের পর্দা- সব কিছুতেই তিনি সমান সাবলীল। এমনই বলেন তার ভক্তরা।

চিত্রনাট্যের কারণে চরিত্রকে বিশ্বাসযোগ্য করে ফুটিয়ে তুলতে কম পরিশ্রম করেন না অভিনেতারা। চরিত্রের শরীরী রূপের সঙ্গে একাত্ম হতে কেউ ওজন কমিয়ে বা বাড়িয়ে ফেলেন।

কেউ বা নিজেকে লোকচক্ষুর আড়ালে সরিয়ে চরিত্রকে যাপন করতে শুরু করেন। অনেকে আবার নতুন ভাষা আয়ত্তে আনেন।

এ দলে অনায়াসে জায়গা করে নিতে পারেন রাধিকা আপতে। চরিত্রের প্রয়োজনে বারবারই চেনা পরিধির বাইরে বেরিয়েছেন তিনি

রাধিকা নিজেই জানিয়েছেন, ২০০৯ সালের অনুরাগের ছবির জন্য ফোনে তাকে উত্তেজক কথা বলতে হয়েছিল। পরিচালক তাকে সাবলীল অভিনয়ের জন্য এমন প্রস্তাব করেছিলেন।

যদিও শেষমেশ সে ছবিতে তাকে দেখা যায়নি। এতে অভিনয় করেছিলেন কল্কি কেঁকলা। অভয় দেওল এবং মাহি গিলের পাশে নিজের দ্বিতীয় ছবিতেই নজর কেড়েছিলেন কল্কি।

নেহা ধুপিয়ার কাছে একটি সাক্ষাৎকারে সে অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন রাধিকা। তিনি বলেন, আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে অদ্ভুত অডিশন হল অনুরাগের ‘দেব ডি’।

ওই অডিশনের জন্য টেনে চুল বাঁধতে হয়েছিল। ললিপপ মুখে রেখে দিতে হত। পাশাপাশি আরও অনেক কিছু করতে হয়েছিল।

তার কথায়, মুম্বাইয়ে আসার আগে আমি পুণেতে থাকতাম। তখনও পর্যন্ত কখনও ফোনে উত্তেজক কথাবার্তা বলিনি। তবে অনুরাগের ফিল্মে অডিশনের জন্য তা-ই করেছিলাম।

২০০৫ সালে মহেশ মঞ্জরেকরের ‘বাহ্! লাইফ হো তো অ্যাইসি!’-ছবিতে মাত্র কয়েকটি দৃশ্যে প্রথমবার তাকে দেখেছিল বলিউড। তারপর থেকে বারবারই নজর কেড়েছেন রাধিকা।

চরিত্রের খাতিরে নিজেকে ভেঙেছেন-গড়েছেন। ‘সেক্রেড গেমস’, ‘বদলাপুর’, ‘অন্ধাধুন’, ‘লাস্ট স্টোরিজ’, হান্টার’, ‘মান্ঝি: দ্য মাউন্টেন ম্যান, ‘পার্চড’ বা ‘অন্তহীন’ রাধিকা বারবারই সমালোচকদের চমকে দিয়েছেন।

চরিত্রের গভীরে প্রবেশের জন্য কম পরিশ্রম করেন না রাধিকা। তা নিয়ে বিতর্কও কম হয়নি। লীনা যাদবের ছবি ‘পার্চড’-এর কথাই ধরুন না! ২০১৫ সালের ওই ফিল্মে আদিল হুসেনের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠ শরীরী দৃশ্য ভাইরাল হয়েছিল।

‘পার্চড’-এর বিতর্কের কয়েক বছরের মধ্যেই ফের ‘বেকায়দায়’ পড়েন রাধিকা। এবার ২০১৯ সালের ব্রিটিশ-আমেরিকান ছবি ‘দ্য ওয়েডিং গেস্ট’-এর জন্য নীতিপুলিশদের কাঠগড়ায় ওঠেন তিনি। ওই ছবিতে দেব পটেলের সঙ্গে তার শরীরলী দৃশ্য নিয়ে তর্ক জোরালো হয়েছিল।

বিতর্কের ঝড়ে পড়লেও পিছু হঠেননি রাধিকা। তিনি জানিয়েছেন, চরিত্রের খাতিরে একাধিকবার বিচিত্র সব কাজ করেছেন।

Categories
বিনোদন

বন্ধু ফরহাদের সহায়তায় শিমুকে হত্যা করে স্বামী নোবেল

অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমু হত্যায় গ্রেফতার স্বামী সাখাওয়াত আলীম নোবেল শুরুতে বলেছিলেন- তিনি একাই শ্বাসরোধে খুন করেন। তবে শেষ পর্যন্ত ভিন্ন তথ্য দিলেন তিনি। একা নন; হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নেন নোবেলের বন্ধু এস এম ওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদ। দুজন মিলে হত্যা মিশন শেষ করে লাশ গুম করেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার আদালতে ১৬৪ ধারায় দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি ও পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে নোবেল ও ফরহাদ নতুন তথ্য দেন। নতুন এ তথ্যের পর তদন্তের মোড়ও ঘুরে গেল। একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

কেন, কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড জবানবন্দিতে সে তথ্যও উঠে এসেছে। স্ত্রী মোবাইল ফোনে কার সঙ্গে কথা বলেন, কোথায় যান- তা নিয়ে প্রতিনিয়ত সন্দেহ করতেন নোবেল। গত রোববার সকালে হঠাৎ স্ত্রীর ফোন দেখতে চান নোবেল। কে কল করল, তা দেখতে চান। এতে বাধা দেন শিমু। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হয়।

আরও পড়ুন : অভিনেত্রী শিমু হত্যার কথা স্বীকার করেন স্বামী নোবেল

একপর্যায়ে তা হাতাহাতিতে রূপ নেয়। ওই দিন সকাল ৮টার দিকে নোবেলের বাসায় যান ফরহাদ। আগে থেকেই কথা ছিল, টাকা ধার নিতে ওই সময় বন্ধুর বাসায় যাবেন তিনি। ফরহাদ যাওয়ার পর ফ্ল্যাটের দরজাও খুলে দেন শিমু। এরপর তারা ডাইনিং টেবিলে বসে চা খান। কিছু সময় পর শিমুর ফোন দেখা নিয়ে স্বামী-স্ত্রী বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়ালে ফরহাদ তা থামানোর চেষ্টা করেন।

উত্তেজিত হয়ে নোবেল স্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, আজ তোকে শেষ করে দেব। এরপর শিমুকে হত্যা করতে ফরহাদের সহায়তা চান নোবেল। বন্ধুর আহ্বানে সাড়া দিয়ে দুজনে মিলে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। তদন্ত-সংশ্নিষ্টরা বলছেন, সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে শিমুকে হত্যা করা হয়।

রাজধানীর গ্রিন রোডের বাসায় শিমুকে হত্যার পর বন্ধু ফরহাদকে নিয়ে কেরানীগঞ্জে মরদেহ ফেলে আসেন নোবেল। এর পর কলাবাগান থানায় নিখোঁজের ডায়েরি করেন। মঙ্গলবার নোবেল ও ফরহাদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের মাধ্যমে তিন দিনের রিমান্ডে পায় পুলিশ। রিমান্ডের এক দিন পার হওয়ার পরই তারা আদালতে স্বীকারোক্তি দিলেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কেরানীগঞ্জ মডেল থানার এসআই চুন্নু মিয়া বলেন, শিমুর লাশ প্রথমে মিরপুরে গুম করার পরিকল্পনা ছিল। কয়েক ঘণ্টা ঘুরে গুম করার পরিবেশ না পেয়ে কেরানীগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হয়।

ভয়েসটিভি/এমএম