Categories
জাতীয় প্রবাসী

মালদ্বীপে বৈধতা পাবেন অবৈধ বাংলাদেশি কর্মীরা

মালদ্বীপে অবস্থানরত অবৈধ সব বাংলাদেশি কর্মী বৈধ হওয়ার সুযোগ পাবেন।  এছাড়া মালদ্বীপ থেকে প্রবাসীরা যেন সহজে দেশে টাকা পাঠাতে পারেন সেজন্য একটি ব্যাংকের শাখা মালদ্বীপে খোলার ব্যবস্থা করবেন বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর মালদ্বীপে বসবাসরত প্রবাসীদের সঙ্গে মত বিনিময় সভা করেন মন্ত্রী ইমরান আহমদ। এ সময় তিনি এসব কথা জানান।

প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, আপনাদের জন্য সমঝোতা স্মারক করা হচ্ছে। ফলে, মালদ্বীপে বাংলাদেশ থেকে কর্মী আসা-যাওয়া করবে। আশা করি, মালদ্বীপে যত অবৈধ বাংলাদেশি আছে সবাই বৈধতা পাবেন। দেশে টাকা পাঠাতে যে সমস্যা সেটার জন্য আমি দেশে গিয়ে যেকোনো একটি ব্যাংকের শাখা যেন এখানে করা হয় তার ব্যবস্থা করব।

মালদ্বীপের বাংলাদেশ দূতাবাসে অনুষ্ঠিত সভায় রাষ্ট্রদূত রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ নাজমুল হাসানের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. জাহিদ মালেক।

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহর আমন্ত্রণে বর্তমানে দেশটি সফরে রয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহর মধ্যে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা শেষে দুই নেতার উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার সকালে প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে ঢাকা ও মালের মধ্যে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, দ্বৈত কর পরিহার, বন্দি বিনিময় এবং যুব ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে তিনটি চুক্তি সই হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দূতালয়ের প্রথম সচিব মোহাম্মদ সোহেল পারভেজ, মালদ্বীপে প্রবাসী পেশাজীবী ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিআইপি আলহাজ্ব মোহাম্মদ সোহেল রানা, মালদ্বীপের শীর্ষ ব্যবসায়ী আহমেদ মুক্তাকী, মালদ্বীপ আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব দুলাল মাদবর-সহ বিভিন্ন অরাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

আরও পড়ুন : অপরূপ সুন্দর মালদ্বীপে কি করছে বাংলাদেশিরা

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয় প্রবাসী

কর্মী নিয়োগে বাংলাদেশে-মালয়েশিয়ার চুক্তি সই

বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার মধ্যে শ্রমবাজার নিয়ে সমঝোতা চুক্তিটি (এমওইউ) সম্পন্ন হয়েছে। রোববার মালয়েশিয়ার পুত্রজায়ায় চুক্তিটি সই হয়। মালয়েশিয়ার পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন মানবসম্পদমন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান এবং বাংলাদেশের পক্ষে করেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ।

স্থানীয় সময় রোববার ভোর ৫টায় মালয়েশিয়ার বিমানবন্দরে পৌঁছান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ। এ সময় মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. গোলাম সারোয়ার, শ্রম কাউন্সিলর মো. জহিরুল ইসলাম, শ্রম কাউন্সিলর (দ্বিতীয়) মো. হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল এবং মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগ ও কমিউনিটি নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

দীর্ঘ তিন বছর বন্ধ থাকার পর গত ১০ ডিসেম্বর বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে অনুমোদন দেয় মালয়েশিয়া। সব সেক্টরে কর্মী নেওয়ার অনুমোদন দেয় দেশটির মন্ত্রী পরিষদ। বিশেষ করে গৃহকর্মী, বাগান, কৃষি, উৎপাদন, পরিষেবা, খনি ও খনন এবং নির্মাণ খাতে বাংলাদেশি কর্মী নেবে দেশটি। চুক্তি সই সম্পন্ন হওয়ায় এসব খাতে বাংলাদেশি কর্মীরা দেশটিতে যেতে পারবে।

জানা যায়, আগের চেয়ে এবারের সমঝোতা স্মারকে বেশকিছু বিষয়ে পরিবর্তন হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য- জিটুজি প্লাস পদ্ধতি উল্লেখ থাকছে না; যুক্ত হচ্ছে মালয়েশিয়ার রিক্রুটিং এজেন্সি; থাকছে কর্মীদের বাধ্যতামূলক বিমা; কর্মীদের দেশে ফেরার ব্যবস্থা ও খরচ বহন করবে নিয়োগদাতা; চুক্তি মেয়াদে কর্মীদের দায়িত্ব নিতে হবে মালয়েশিয়ার রিক্রুটিং এজেন্সিকেও; বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ থেকে ৪৫ বছর পর্যন্ত।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা যায়, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খোলার চেষ্টা বারবার ব্যাহত করেছে ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সি। তাদের তৈরি সিন্ডিকেট অবৈধভাবে এ বাজার দখলের চেষ্টায় ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে এটি বন্ধ হয়ে যায়। ওই সময় প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ কমিটির বৈঠকে ১ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশের শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ করে দেয় দেশটি।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয় প্রবাসী

বিনা খরচে ও আহতদের পেনশন সুবিধা দিয়ে শ্রমিক নেবে মালয়েশিয়া

জনশক্তি রপ্তানিকারক এজেন্সির সিন্ডিকেশনসহ নানা অনিয়মে বন্ধ ছিলো মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিক নেয়া। তবে সুখবর হলো বিনা খরচে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। সপ্তাহ খানেকের মধ্যে এ বিষয়ে সমঝোতা চুক্তি হতে পারে দুই দেশের মধ্যে। তবে এবার ভিসা প্রসেসিংয়ে সকল এজেন্সির সমান সুযোগ চান বায়রা। আর জাতীয় তথ্য ভাণ্ডার করে দালালদের দৌরাত্ম বন্ধের পরামর্শ বিশ্লেষকদের।

দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর পর মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নেয়া শুরু হয়েছিলো ২০১৬ সালে। তবে মাত্র ১০টি জনশক্তি রপ্তানিকারক এজেন্সি এই ভিসা প্রসেসিং এর সুযোগ পায়। দুই দেশের চুক্তিতে বিমান ভাড়াসহ সব মিলেয়ে খরচ প্রায় দুই হাজার রিংগিত নির্ধারিত থাকলেও এই এজেন্সিগুলো জনপ্রতি আদায় করতো ২০ হাজার রিংগিতেরও বেশি। সীমাহীন এই অনিয়মের কারণে চুক্তির দুই বছরের মাথায় শ্রমিক নেয়া বন্ধ করে দেয় মালয়েশিয়া।

প্রায় তিন বছর বন্ধ থাকার পর আবারো বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালয়েশিয়া। করোনা পরিস্থিতির উন্নয়ন হলেই কর্মী নেয়া শুরু করবে দেশটি। সমঝোতা চুক্তির খসড়া অনুযায়ী বিনা খরচে ভিসা প্রাপ্তিসহ আহতরা পাবে আজীবন পেনশন। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসাবে দেখছেন খাত সংশ্লিষ্টরা।

একজন বলেন, সরকার যদি ইনিশিয়েসিভ ভালো নেয়, আমাদের মধ্যে যে একটা দলাদলি আছে অর্থাৎ আমি একটা জিনিস পাঁচ টাকায় কিনছি আরেকজন গিয়ে বললো আমি তোমাকে দশ টাকা দিব। এই জিনিসটা যদি না থাকে তাহলে আমি মনে করি অনেক কম খরচে যাত্রীরা যেতে পারবে।

রেকজন বলেন, আমরা তো সবসময় আশাবাদী মালয়েশিয়াতে যখন নতুন দ্বার উন্মোচিত হয় তখন হয়ত ভালো একটা কিছু হবে। পরে সরকারের সঠিক মনিটরিংয়ের জন্য আসলে কোনকিছুই শেষ পর্যন্ত ঠিকভাবে হয় না।
এবার মালয়েশিয়ার ভিসা প্রসেসিংয়ের সুযোগ সকল বৈধ এজেন্সির অংশগ্রহণ চান বায়রা’র সাবেক মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী। তিনি বলেন, এতে প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে কম খরচে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠাতে এজেন্সিগুলো সচেতন থাকবে।

বায়রার সাবেক মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান বলেন, এ বিষয়ে আমি মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশ সরকারের কাছে সকল সদস্যদের পক্ষ থেকে আমাদের দাবি এই মার্কেট যেনো সব সদস্যদের জন্য উন্মুক্ত থাকে।

শ্রমিকদের বিদেশ যাত্রায় খরচ কমাতে মধ্যস্বত্বভোগী বা দালালদের দৌরাত্ম্য বন্ধের পরামর্শ বিশ্লেষকদের। এ বিষয়ে পিআরআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, এ বিষয়টা যদি বন্ধ করতে হয় তাহলে আমি মনে করি সরকারের সঠিক ডাটাবেজ থাকা উচিত। প্রত্যেকটা কোম্পানিকে এই ডাটাবেজ থেকেই নিতে হবে এবং এবার প্রতারণা ঠেকাতে সরকারের কঠোর নজরদারির দাবি সংশ্লিষ্টদের।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয় প্রবাসী

আফ্রিকা প্রবাসীর জন্য ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক

আফ্রিকা অঞ্চল থেকে দেশে এলে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে যেতে হবে। দেশে আসার ৪৮ ঘণ্টা আগে করা করোনার টেস্ট রিপোর্ট নিয়ে আসতে হবে। যেকোনো দেশ থেকে টেস্ট ছাড়া কেউ এলে, তাদেরকেও ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

বুধবার ১ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১২টায় রাজধানীর মহাখালীতে বিপিএস অডিটোরিয়ামে বিশ্ব এইডস দিবস উপলক্ষে ‘সমতার বাংলাদেশ, এইডস ও মহামারি হবে শেষ’ শীর্ষক আলোচনা সভা শেষে গণমাধ্যমকে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, যারা বিদেশে থাকেন, বিশেষ করে যারা আফ্রিকা অঞ্চলের দেশগুলোতে রয়েছেন, আমি তাদেরকে আহ্বান করবো, তারা যেন তাদের স্ব-স্ব স্থানে অবস্থান করেন। দেশের এবং তার পরিবারের নিরাপত্তার জন্য যে যেখানে কর্মরত রয়েছেন সেখানে থাকার আহ্বান করছি।

আরও পড়ুন : এইডস নিয়ন্ত্রণে, ৩০ সালে ‘নির্মূল’: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

একই সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্ব এইডস দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, এইডস এবং বিভিন্ন রোগবালাই আজকাল আর কোনো বাউন্ডারি মানে না। ব্যবসা-বাণিজ্য এবং মানুষের জীবনে যেমন গতি এসেছে, তেমনি ভাইরাসেরও অনেক গতি বেড়ে গেছে। ভাইরাসে এখন অল্প সময়ের মধ্যেই পৃথিবীতে ছড়িয়ে যায়। তারপরেও আমরা যদি নিয়ম এবং নৈতিকতার মধ্যে থাকি তাহলে এইডসসহ বহু রোগ থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারব।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রালয়ের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, অতিরিক্ত সচিব মুজিবুল হক ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি ডা. বারধান জান রানা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশিদ আলম।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয় প্রবাসী

দেশে ফিরতে প্রবাসীদের জন্য নতুন নির্দেশনা

করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন প্রতিরোধে বিদেশ থেকে দেশে আসা প্রবাসীদের জন্য নতুন নির্দেশনা বলা হয়েছে, এখন থেকে যেকোনো দেশ থেকে দেশে আসতে হলে ৪৮ ঘণ্টা আগের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট দেখাতে হবে, যা আগে ছিল ৭২ ঘণ্টা।

বুধবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর বিসিপিএস মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, যে যাত্রীরা আফ্রিকা থেকে আসবেন, বাধ্যতামূলকভাবে তাদের ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইনে নিতে বলেছি। একই সঙ্গে তাদের ৪৮ ঘণ্টা আগের করোনার সার্টিফিকেট দেখাতে হবে। যদি কোনো দেশ থেকে করোনা টেস্ট ছাড়া কেউ আসে, তাদের অবশ্যই ৪৮ ঘণ্টার বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে যেতে হবে।

বিস্তারিত আসছে…

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয় প্রবাসী

মালয়েশিয়ায় ফাঁসি থেকে বাঁচলেন বাংলাদেশি ছাত্র

নিজের হোস্টেল রুমে ৩ কেজি ৮০০ গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেফতার হওয়ার পর মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত এক বাংলাদেশি ছাত্র ওই রায় থেকে রেহাই পেয়েছেন।

মৃত্যুদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে ওই শাস্তি থেকে বাঁচলেন তিনি। মালয়েশিয়ার বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রের নাম মোহাম্মদ হাবিবুল হাসান।

২৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিচারকদের তিন সদস্যের একটি প্যানেল বলেন, হাবিবুল হাসানের আপিলের পেছনে যুক্তি রয়েছে, অন্যদিকে প্রসিকিউশন অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছে। প্যানেলের প্রধান বিচারপতি বিচারক দাতুন হানিপাহ ফকিরুল্লাহ বলেন, যদিও হাবিবুলের হোস্টেল থেকে গাঁজা পাওয়া যায়, কিন্তু আত্মপক্ষ সমর্থনে তিনি বলেছেন, ওই গাঁজা জাওয়াদ নামে অন্য এক ছাত্রের।

জাওয়াদ ইউনিভার্সিটির বাইরে থাকতেন এবং গাঁজাগুলো জব্দ হওয়ার পরদিনই আত্মহত্যা করেন তিনি।

তবে আগে হাবিবুলের এই দাবি আমলে নেননি বিচারকরা। বিচারক হানিপাহ বলছেন, হাবিবুলের এই দাবি আমলে না নেয়া ঠিক হয়নি।

হোস্টেল সুপারের কাছে হাবিবুল আদৌ কখনও দোষ স্বীকার করেছিলেন কি না, তা নিয়ে আগের বিচারকরা সঠিক প্রশ্ন করেননি বলেও মনে করেন বিচারপতি হানিপাহ। ২০১৭ সালের ১০ ডিসেম্বর হাবিবুলের হোস্টেল রুম থেকে ওই গাঁজা জব্দ করা হয়েছিল। এরপর তার বিরুদ্ধে গাঁজা পাচারের অভিযোগে মামলা হয় ও তার বিচার শুরু হয়। সূত্র : মালয় মেইল।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
প্রবাসী ভিডিও সংবাদ

যেসব যোগ্যতায় মিলবে সৌদি নাগরিকত্ব

দক্ষ বিদেশি পেশাজীবীদের নাগরিকত্ব দেবে মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে প্রভাবশালী মুসলিম দেশ সৌদি আরব। ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত এক রাজকীয় ফরমানে বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ এ অনুমোদন দেন। রাজকীয় ওই ফরমানে বলা হয়েছে কেবলমাত্র নির্দিষ্ট কয়েকটি পেশায় বিশেষ দক্ষতাসম্পন্ন বিদেশিরাই সৌদি আরবের নাগরিকত্ব পাওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

এক টুইট বার্তায় সৌদি সরকার বলেছে, বিশ্বজুড়ে বিজ্ঞানী, বুদ্ধিজীবী ও উদ্ভাবকদের আকৃষ্ট করার লক্ষ্য হলো, সৌদি আরবকে একটি বৈচিত্র্যময় কেন্দ্রে পরিণত করা, যাতে আরব বিশ্ব গর্বিত হবে। এর ফলে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের তেল নির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসার ‘ভিশন-২০৩০’ উচ্চাভিলাস অর্জন আরও সহায়ক হবে।

দেশটির প্রভাবশালী ইংরেজী দৈনিক আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- আইন, চিকিৎসা, বিজ্ঞান, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া ও প্রযুক্তির মতো বিশেষায়িত পেশায় উচ্চ দক্ষতা সম্পর্ণ বিদেশিদেরই নাগরিকত্ব দেবে সৌদি আরব। এর লক্ষ্য, দেশটিতে পেশাদারদের জন্য একটি আকর্ষণীয় শীর্ষ স্তরের ব্যবসায়িক পরিবেশ তৈরি করা। তবে ঠিক কবে থেকে এই ঘোষণা কার্যকর করা হবে বা নাগরিকত্ব পাওয়ার প্রক্রিয়ার বিষয়ে এখনই কিছু জানায়নি দেশটি।

সৌদি আরব সরকারের দেওয়া নতুন ঘোষণাটি কিছু নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে কর্মরত পেশাদারদের ওপর কেন্দ্র করে হলেও, দেশভিত্তিক কিছু প্রবাসী এবং উপজাতিকেও অন্তর্ভুক্ত করেছে। এই ঘোষণায় ফরেনসিক ও চিকিৎসাবিজ্ঞান, প্রযুক্তি, কৃষি, পারমাণবিক এবং নবায়নযোগ্য শক্তি, তেল-গ্যাস ছাড়াও যারা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কাজ করেন তাদের কথাও বলা হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালে এক ঘোষণায় সৌদি আরব জানায়, বেশ কয়েকটি পেশায় দক্ষদের জন্য নাগরিকত্ব আইন শিথিল করা হবে। ওই বছর দেশটির শুরা কাউন্সিল বিদেশিদের জন্য রেসিডেন্ট পারমিট দেওয়ার বিধান রেখে একটি আইনের খসড়া অনুমোদন দিয়েছিল। এর দুই বছরের মাথায় এবার বিদেশিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি।

আরও পড়ুন : মুসলমান ছাড়া সব ধর্মের লোকদের নাগরিকত্ব দেবে ভারত

Categories
প্রবাসী

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ৯৫ অভিবাসী আটক

মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশনের অভিযানে বাংলাদেশিসহ ৯৫ জন অবৈধ অভিবাসী আটক হয়েছেন। মঙ্গলবার গভীর রাতে জালান দেওয়ান সুলতান সুলাইমান ১-এর পাঁচতলা দোকানঘরে সারিবদ্ধভাবে অভিযান চালিয়ে এদের আটক করা হয়।

তিন ঘণ্টার অভিযানে প্রাথমিকভাবে ১৫০ জনকে আটক করা হয়। কাগজপত্র না থাকায় এদের মধ্যে ৯৫ জন অভিবাসীকে আটক করে বাকিদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে ৫২ জন পুরুষ, ৪৩ জন মহিলা।

কুয়ালালামপুর ফেডারেল টেরিটরি ইমিগ্রেশন ডিরেক্টর স্যামসুল বদরিন মহসিন জানিয়েছেন এদের মধ্যে ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, নেপাল ও পাকিস্তানের নাগরিক রয়েছে। তবে এ অভিযানে কতজন বাংলাদেশি আটক হয়েছেন তা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা যায়নি।

অভিযান চালানোর আগে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ অভিবাসীদের কার্যকলাপ ও গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করে আসছিল দেশটির এফোর্সমেন্টের কর্মকর্তারা।

আটককৃতরা বেশিরভাগই নির্মাণ সাইটে পরিচ্ছন্নতা ও শ্রমিক হিসাবে কাজ করছিল। অনেকের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে এবং কারো কারো কাছে কোনো বৈধ ভ্রমণ নথি নেই এবং অবৈধভাবে এলাকায় বসবাস করছিল।

এছাড়া তাদের বাসস্থানটিও খুব বিপজ্জনক ছিল। যেখানে বৈদ্যুতিক তার এবং পানির কলের সংযোগগুলি সঠিকভাবে ইনস্টল করা হয়নি, বোর্ড ব্যবহার করে পাঁচটিরও বেশি ছোট কক্ষ মালিক দ্বারা তৈরি করা হয়েছে এবং অবৈধ অভিবাসীদের ভাড়া দেয়া হয়েছে।

কুয়ালালামপুর ফেডারেল টেরিটরি ইমিগ্রেশন ডিরেক্টর, স্যামসুল বদরিন মহসিন আরও জানান, অগ্নিকাণ্ডের ক্ষেত্রে স্থানটি সংকীর্ণ ও অনিরাপদ ছিল।

আটককৃতদের বুকিত জলিল ইমিগ্রেশন ডিপোতে রাখা হয়েছে এবং ইমিগ্রেশন আইন ১৯৫৯/৬৩ এর ধারা ৬ (১) (সি) এবং ১৫ (১) (সি) এর অধীনে আরও তদন্ত করা হবে বলে জানা যায়।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
প্রবাসী

কাবার ক্যালিগ্রাফার চট্টগ্রামের মুখতার পেলেন সৌদির নাগরিকত্ব

কাবার গিলাফের ক্যালিগ্রাফার চট্টগ্রামের মুখতার আলম পেলেন সৌদির নাগরিকত্ব। বিভিন্ন পেশার দক্ষ বিদেশি নাগরিকদের সৌদি আরবে নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণার পর প্রথম দিনেই নাগরিকত্ব লাভ করেছেন বাংলাদেশের এই যুবক। তিনি প্রধান ক্যালিগ্রাফার হিসেবে মক্কার পবিত্র কাবা ঘরের গিলাফ (কিসওয়াহ) প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন। সৌদি গেজেট সূত্রে এ খবর জানা যায়।

গত বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর সৌদি বাদশার এক রাজকীয় নির্দেশনায় বিভিন্ন দেশ ও পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গদের সৌদি নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণা দেন। এদের মধ্যে রয়েছেন ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব, ইতিহাসবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও চিকিৎসক, বিনিয়োগকারক, প্রযুক্তিবিদ, ক্রীড়াবিদসহ পাঁচ বিদেশি নাগরিকগণ। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ঘোষিত ‘ভিশন-২০৩০’ -এর অংশ হিসেবে বিভিন্ন পেশার দক্ষ বিদেশিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার এ রাজকীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সৌদি সংবাদ মাধ্যম আশ শারাক আল আওসাতের বরাত দিয়ে সৌদি গেজেট জানায়, নাগরিকত্ব পাওয়া বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে আছেন, পবিত্র কাবার গিলাফের (কিসওয়া) প্রধান ক্যালিগ্রাফার মুখতার আলিম, ইতিহাসবিদ ড. আমিন সিদো, ড. আবদুল করিম আল সামমাক, প্রখ্যাত গবেষক ড. মুহাম্মদ আল বাকাই ও প্রখ্যাত নাট্য শিল্পী সামান আল আনি।

সৌদি গেজেটের প্রতিবেদনে মুখতার আলমের পরিচয়ে বলা হয়, মুখতার আলীম বর্তমানে মক্কার কিসওয়া কারখানায় পবিত্র কাবার কিসওয়ার প্রধান ক্যালিগ্রাফার হিসেবে কাজ করছেন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী ও ফোরামে তাঁর প্রধান ক্যালিগ্রাফিগুলো প্রদর্শিত হয়েছে। ক্যালিগ্রাফি দক্ষতা বিষয়ক প্রশিক্ষণে তিনি গুরুত্বপূর্ণ পাঠদান করেন। মক্কার দ্য ইনস্টিটিউট অব হলি মসকো তথা পবিত্র মসজিদুল হারাম পরিচালিত প্রতিষ্ঠানে ক্যালিগ্রাফি বিষয়ক তার পাঠ শোখানো হচ্ছে।

মুখতার আলম মক্কার বিখ্যাত উম্মুল কোরা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে বর্তমানে পিএইচডি গবেষণারত। তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপ্লোমা, স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি ডিগ্রিধারীদের সার্টিফিকেটের ক্যালিগ্রাফার হিসেবেও কাজ করেছেন। এছাড়াও বিভিন্ন সংস্থা থেকে অসংখ্য পুরস্কার ও প্রশংসার সনদ পেয়েছেন তিনি।

জানা যায়, মুখতার আলম চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার আধুনগর ইউনিয়নের রশীদের ঘোনা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। মুখতারের চার ভাই ও এক বোন। তাঁর বাবার নাম জনাব মুফিজুর রহমান বিন ইসমাঈল শিকদার। মায়ের নাম শিরিন বেগম। তার বাবা কর্মজীবনের শুরুতে কিছুদিন ঐতিহ্যবাহী চুনতি হাকীমিয়া আলিয়া মাদরাসার শিক্ষক ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি দীর্ঘ সময় সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে ফার্মাসিস্ট হিসেবে বিভিন্ন হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করেন। মূলত বাবার কর্মসূত্রে পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘ সময় সৌদিতে কাটিয়েছেন।

বর্তমানে মুখতার তার মা, স্ত্রী ও চার মেয়েকে নিয়ে সৌদি আরবের পবিত্র মক্কায় বসবাস করছেন।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
প্রবাসী

দক্ষ প্রবাসীদের নাগরিকত্ব দেবে সৌদি সরকার

নির্দিষ্ট কয়েকটি পেশায় বিশেষ দক্ষতাসম্পন্ন বিদেশি নাগরিকদের নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব।

সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ভিশন ২০৩০-এর অংশ হিসেবে স্থানীয় সময়  ১১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার এমন ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আইন,চিকিৎসা, বিজ্ঞান সংক্রান্ত, সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া ও প্রযুক্তির মতো বিশেষায়িত এসব পেশায় যেসব বিদেশির উচ্চ দক্ষতা রয়েছে, তাঁদের সৌদি নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। সৌদি আরবের এই পদক্ষেপের লক্ষ্য, দেশটিতে পেশাদারদের জন্য একটি আকর্ষণীয় শীর্ষ স্তরের ব্যবসায়িক পরিবেশ তৈরি করা। তবে ঠিক কবে থেকে এই ঘোষণা কার্যকর করা হবে বা নাগরিকত্ব পাওয়ার প্রক্রিয়ার বিষয়ে এখনই কিছু জানায়নি সৌদি আরব।

এর আগে ২০১৯ সালেই এই পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল সৌদি আরব। তখন বলা হয়েছিল, তাদের মূল লক্ষ্য বিশেষজ্ঞ এবং বিনিয়োগকারীদের সৌদি আরবে ‘গভীর শিকড়’ স্থাপনের সুযোগ দেওয়া।

এক টুইট বার্তায় সৌদি সরকার বলেছে, বিশ্বজুড়ে বিজ্ঞানী, বুদ্ধিজীবী ও উদ্ভাবকদের আকৃষ্ট করার লক্ষ্য হলো, সৌদি আরবকে একটি বৈচিত্র্যময় কেন্দ্রে পরিণত করা, যাতে আরব বিশ্ব গর্বিত হবে।

সৌদি আরব সরকারের দেওয়া নতুন ঘোষণাটি কিছু নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে কর্মরত পেশাদারদের ওপর কেন্দ্র করে হলেও, দেশভিত্তিক কিছু প্রবাসী এবং উপজাতিকেও অন্তর্ভুক্ত করেছে। এই ঘোষণায় ফরেনসিক ও চিকিৎসাবিজ্ঞান, প্রযুক্তি, কৃষি, পারমাণবিক এবং নবায়নযোগ্য শক্তি, তেল-গ্যাস ছাড়াও যাঁরা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কাজ করেন তাঁদের কথাও বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন : নাগ‌রিকত্বের মামলায় ব্রিটিশ আদালতে তিন বাংলাদেশির জয়