Categories
জাতীয় চিকিৎসা

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৬১ মিলিয়ন টিকা পেয়েছে বাংলাদেশ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে অনুদান হিসেবে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি করোনা প্রতিরোধী টিকা পেয়েছে বাংলাদেশ। দেশটি থেকে বাংলাদেশ মোট ৬ কোটি ১০ লাখ (৬১ মিলিয়ন) ডোজ টিকা পেয়েছে। ২৮ ফেব্রুয়ারি সোমবার ঢাকার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোভ্যাক্সের আওতায় যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে ফাইজারের তৈরি কোভিড-১৯ এর আরও ১ কোটি (১০ মিলিয়ন) ডোজ টিকা অনুদান প্রদানের মাধ্যমে সারাদেশে টিকাদান সম্প্রসারণের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের অনুদান দেওয়া কোভিড-১৯ টিকার সর্ববৃহৎ গ্রহীতা হয়ে উঠেছে। এখন পর্যন্ত ৬ কোটি ১০ লাখ (৬১ মিলিয়ন) ডোজ টিকা প্রদান করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

দূতাবাসের চার্জ ডি’অ্যাফেয়ার্স হেলেন লা-ফেইভ বলেন, ফাইজারের তৈরি টিকার সর্বশেষ এ অনুদানের মাধ্যমে আমাদের দুই দেশের মধ্যেকার অংশীদারিত্ব ও বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে বাংলাদেশকে বেশি পরিমাণ করোনা টিকা প্রদানে আমেরিকার জনগণের উদারতার বিষয়টিই উঠে এসেছে। আরও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, এর মাধ্যমে নিরাপদে ও দক্ষতার সঙ্গে মানুষের কাছে টিকা পৌঁছে দিতে বাংলাদেশ সরকার ও টিকা কার্যক্রমের দ্রুত সম্প্রসারণে সম্পৃক্ত সকল অংশীদারের কাজের প্রতিফলন ঘটেছে।

দূতাবাস জানায়, কোভিড-১৯ টিকা কার্যক্রমের প্রতিটি ক্ষেত্রে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র ৯ হাজারেরও বেশি স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীকে যথাযথ টিকাদান ব্যবস্থাপনা বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করেছে। এছাড়া শিক্ষার্থী ও সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে টিকাদানের লক্ষ্যভিত্তিক কার্যক্রম পরিচালনায় সহায়তা করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা (ইউএসএআইডি), যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব ডিফেন্স, যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট এবং যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের মাধ্যমে কোভিড সংক্রান্ত উন্নয়ন ও মানবিক সহায়তা হিসেবে ১৩ কোটি ১০ লাখ ডলারেরও বেশি অনুদান প্রদান করেছে দেশটি।

/এএস

Categories
জাতীয় চিকিৎসা

ঢাকায় ৯৮ শতাংশই ওমিক্রন

রাজধানী ঢাকায় করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ৯৮ শতাংশ ওমিক্রন ধরনে আক্রান্ত বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর,বি)। গত ২৯ জানুয়ারি থেকে ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আইসিডিডিআর,বির ভাইরোলজি ল্যাবে ঢাকার ৪৮ জন করোনা রোগীর নমুনা পরীক্ষায় এ ফলাফল পাওয়া গেছে।

২৭ ফেব্রুয়ারি রোববার প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

আইসিডিডিআর,বি জানিয়েছে, ৪৮টি নমুনার মধ্যে ৪৭টি নমুনায় ওমিক্রনের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া গেছে। বাকি একজনের নমুনায় পাওয়া গেছে ডেল্টা ধরন। শতকরা হিসাবে যা ২ শতাংশ। করোনা রোগীদের মধ্যে অমিক্রনের বিএ.২ উপ-ধরনে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ শতাংশ রোগী। বাকি ১৭ ভাগ রোগী বিএ.১ উপ-ধরনে আক্রান্ত।

এর আগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি প্রতিষ্ঠানটি জানায়, জানুয়ারির মাসের শেষ সপ্তাহে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের জায়গায় সম্পূর্ণভাবে ওমিক্রন জায়গা করে নিয়েছে। গত ১৫ থেকে ২৮ জানুয়ারির মধ্যে ২৪ জন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির নমুনা ঢাকা শহর থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। জিনোম সিকোয়েন্স করে এরমধ্যে ৯২ শতাংশ নমুনায় ওমিক্রন এবং ৮ শতাংশ নমুনায় ডেল্টার ধরন পাওয়া গেছে। ওমিক্রন শনাক্ত হওয়া নমুনার মধ্যে উপ-ধরন বিএ ২ সবচেয়ে বেশি বলে চিহ্নিত করা গেছে।

/এএস

Categories
জাতীয় চিকিৎসা

টিকার প্রথম ডোজ চলবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ভয়ের কোনো কারণ নেই, আজ এক কোটি ডোজ টিকা দেওয়ার পরও দেশে প্রথম, দ্বিতীয় এবং বুস্টার ডোজ টিকা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। আজকের কর্মসূচির পর দেশে প্রথম ডোজ টিকার আওতায় আসবে ১২ কোটি মানুষ।

২৬ ফেব্রুয়ারি শনিবার দুপুরে মানিকগঞ্জের গড়পাড়া ইউনিয়ন পরিষদ টিকাকেন্দ্রে গণটিকা কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

জাহিদ মালেক বলেন, দেশের মানুষ টিকাবান্ধব। তারা উৎসবমুখর পরিবেশে টিকা নিচ্ছেন। প্রত্যেক দেশের ৭০ ভাগ মানুষকে টিকার আওতায় আনার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশ থাকলেও টার্গেটের অতিরিক্ত টিকা দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশে।

তিনি আরও বলেন, প্রয়োজনের অতিরিক্ত টিকা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে যে দেশ টিকা পায়নি সেই দেশকে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এখনো যারা টিকা নেননি তাদের টিকা নেওয়ার আহ্বান জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এসময় মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, সিভিল সার্জন ডা. মোয়াজ্জেম আলী খান চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম আপেল, গড়পাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আফসার উদ্দিন সরকারসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

/এএস

Categories
জাতীয় চিকিৎসা

আরও দুইদিন বাড়ছে গণটিকার মেয়াদ

আজ শনিবার শুরু হওয়া করোনার গণটিকাদান কার্যক্রম আগামী সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত বাড়ানোর কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদফতরের ভ্যাক্সিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ কথা জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আগামী ২৮ তারিখ পর্যন্ত ক্যাম্পেইনের আওতায় টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। টিকা নিতে আসা মানুষের ভিড়ের কারণে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেসব টিকা কেন্দ্রে ভিড় বেশি থাকবে সেসব কেন্দ্রে দুইদিন টিকা দেওয়া হবে। কোন কোন কেন্দ্রে দুইদিন টিকা দেয়া হবে সে বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন সিদ্ধান্ত নেবে।

আজ টিকাকেন্দ্রে যতক্ষণ ভিড় থাকবে ততক্ষণ টিকা দেওয়া হবে বলেও জানান মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

‘১ দিনে ১ কোটি কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রম’ আজ শুরু হলেও সকাল থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে টিকাপ্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। এসময় ভিড় নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খেতে হয় কর্তৃপক্ষকে। অনেক কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলার খবরও পাওয়া যায়।

/এএস

Categories
জাতীয় চিকিৎসা

গণটিকাদান কেন্দ্রে উপচে পড়া ভিড়

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ঠেকাতে মোট জনসংখ্যার ৭০ শতাংশ মানুষকে প্রথম ডোজের আওতায় আনতে ২৬ ফেব্রুয়ারি শনিবার দেশব্যাপী শুরু হয়েছে ‘একদিনে এক কোটি কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রম’।

এই কার্যক্রমের আওতায় টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে টিকা নিতে আসা মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়। একইসঙ্গে ব্যাপক আগ্রহে টিকা নিচ্ছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশা এবং বয়সের মানুষ।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বিভিন্ন টিকাদান কেন্দ্রে এ চিত্র দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, সাড়ে ৯টা থেকে টিকা দেওয়া শুরু হলেও, তার আগে থেকেই মানুষ টিকা নিতে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন।

টিকা নিতে আসা লোকজন বলছেন, টিকা কেন্দ্রে আরও বুথ বাড়ানো দরকার। টিকাদান কেন্দ্রের স্বেচ্ছাসেবকদের ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

এছাড়াও যারা জন্ম নিবন্ধন কার্ড বা এনআইডি কার্ড ছাড়াই এসেছেন তাদেরও টিকা দেওয়া হচ্ছে। কোনো কার্ড ছাড়াই মিরপুর কাজীপাড়া নিবাসী রহুল আমিন নামের একজন টিকা পেয়ে উৎফুল্ল। তিনি বলেন, টিকা নিতে বেশি সময় লাগেনি।

এর আগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচির (ইপিআই) পরিচালক ও জাতীয় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পরিকল্পনার সদস্য শামসুল হক এ বিষয়ে বলেন, টিকা নেওয়ার জন্য জনগণের আগ্রহ বজায় থাকলে আমরা আমাদের লক্ষ্য পূরণে দ্রুত পৌঁছে যেতে পারবো। দেশজুড়ে ২৮ হাজার কেন্দ্রে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। আশা করছি, ওই দিন পর্যন্ত দেশের ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার টার্গেট পূরণ হবে।

/এএস

Categories
জাতীয় চিকিৎসা

এক দিনে ‘কোটি’ টিকার লক্ষ্য শনিবার

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মোট জনসংখ্যার ৭০ শতাংশ মানুষকে প্রথম ডোজের আওতায় আনতে ২৬ ফেব্রুয়ারি শনিবার দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘এক দিনে এক কোটি কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রম’।

এ কার্যক্রমের আওতায় সারাদেশে অতিরিক্ত অস্থায়ী কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিশেষ এ টিকাদান কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে সরকার দেশের সবাইকে প্রথম ডোজ কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। দেশের মানুষের টিকা গ্রহণ সহজতর করতে নিবন্ধিত/অনিবন্ধিত সবাই প্রথম ডোজ টিকা গ্রহণ করতে পারবেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়, করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে আগামীকাল শনিবার দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘এক দিনে এক কোটি করোনার টিকাদান কার্যক্রম’। পরে দ্বিতীয় ও বুস্টার ডোজ দেওয়া কার্যক্রমও জোরদার করা হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচির (ইপিআই) পরিচালক ও জাতীয় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পরিকল্পনার সদস্য শামসুল হক এ বিষয়ে বলেন, টিকা নেওয়ার জন্য জনগণের আগ্রহ বজায় থাকলে আমরা আমাদের লক্ষ্য পূরণে দ্রুত পৌঁছে যেতে পারবো। আগামী শনিবার আমাদের ব্যাপক আয়োজন থাকছে। দেশজুড়ে ২৮ হাজার কেন্দ্রে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। আশা করছি, ওইদিন পর্যন্ত দেশের ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার টার্গেট পূরণ হবে।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশের সবাইকে করোনা প্রতিরোধে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, আগামী শনিবার আমরা এক কোটি টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছি। আমি সবাইকে আহ্বান জানাই যারা টিকা নেননি, তারা এগিয়ে আসেন টিকা নিন। টিকা নিলে আপনি, আপনার পরিবার ও দেশ সুরক্ষিত থাকবে। আগামী শনিবার আমরা সবাইকে টিকা দেব। এরপর আমরা দ্বিতীয় ও বুস্টার ডোজের দিকে বেশি গুরুত্ব দেব।

তিনি আরও বলেন, আগামী শনিবার আমরা এক কোটি ডোজ টিকা দেব। আমরা পারলে সেদিন দেড় কোটি টিকা দেব। আমাদের কাছে ১০ কোটি টিকা মজুদ রয়েছে। আমাদের টিকা দেওয়ার সক্ষমতাও আছে। আমাদের এক লাখ লোক টিকা দিতে কাজ করছে।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
জাতীয় চিকিৎসা

বুস্টার ডোজ নেওয়ার পর ৫ গুণ অ্যান্টিবডি : গবেষণা

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়ার পর মানুষের শরীরে পাঁচ গুণ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়। টিকা গ্রহণকারী ২২৩ জনের ওপর চালানো এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে আসে বলে জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)।

২৩ ফেব্রুয়ারি বুধবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএসএমএমইউ উপাচার্য ও গবেষণা দলের প্রধান অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ এই তথ্য তুলে ধরেন। গবেষণা প্রকল্পটিতে সহ-গবেষক হিসেবে যুক্ত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের হেমাটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. সালাহউদ্দীন শাহ।

তিনি জানান, টিকা নেওয়ার পর প্রথম ধাপে ৯৮ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডির উপস্থিতি পাওয়া গেছে। যারা আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তাদের শরীরে তুলনামূলক বেশি এন্টিবডি পাওয়া গেছে। টিকা নেওয়ার ৬ মাসের মধ্যে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অ্যান্টিবডির পরিমাণ হ্রাস পেয়েছে। বুস্টার দেওয়ার পর শতভাগ অংশগ্রহণকারীর শরীরেই অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। তাছাড়া রক্তের প্যারামিটারগুলোতে কোনো পরিবর্তন হয়নি।

শারফুদ্দিন আহমেদ জানান, টিকার বুস্টার ডোজ নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা ও কার্যকারিতার প্রমাণ এ গবেষণার প্রাপ্ত তথ্যে পাওয়া যায়। ভবিষ্যতে নির্দিষ্ট সময় অন্তর বুস্টার ডোজ প্রয়োগের প্রয়োজনীয়তা যাচাইয়ের জন্য সমসাময়িক গবেষণার প্রয়োজন। পাশাপাশি স্বাস্থ্য বিধির যথাযথ অনুসরণ নিশ্চিত করা অপরিহার্য।

বিএসএমএমইউ উপাচার্য আরও জানান, গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের অধিকাংশই স্বাস্থ্য সেবাদানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। অর্ধেকের বেশি অংশগ্রহণকারী আগে থেকেই ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হাঁপানিসহ অন্যান্য রোগে ভুগছিলেন। তবে এ ধরনের রোগের কারণে অ্যান্টিবডি তৈরিতে কোনো পার্থক্য দেখা যায়নি। ৪২ শতাংশ অংশগ্রহণকারী টিকা নেওয়ার পর মৃদু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কথা জানিয়েছিলেন। কিন্তু রক্ত জমাট বাঁধা বা অন্য কোনো জটিল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া গবেষণাকালীন সময়ে পরিলক্ষিত হয়নি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গবেষণায় দুই ডোজ টিকা নেওয়ার ১ মাস পর, দুই ডোজ টিকা নেওয়ার ৬ মাস পর এবং বুস্টার ডোজ নেওয়ার ১ মাস পর শরীরে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে তৈরি অ্যান্টিবডির মাত্রা পরিমাপ করা হয়। এ প্রক্রিয়ায় ২২৩ জন অংশগ্রহণকারীর ক্ষেত্রে দুই ডোজ টিকা নেওয়ার ১ মাস পর এবং তন্মধ্যে ৩০ জনের দুই ডোজ নেওয়ার ৬ মাস পর এবং বুস্টার ডোজ নেওয়ার ১ মাস পর অ্যান্টিবডির মাত্রা পরিমাপ করা হয়।

করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ৪২ কোটির বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন প্রায় ৬০ লাখ। বাংলাদেশে এ পর্যন্ত প্রায় ২০ লাখ মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ২৯ হাজার মানুষ মারা গেছেন।

বাংলাদেশে এ পর্যন্ত প্রায় ১০ কোটির বেশি মানুষ টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন সাড়ে সাত কোটির বেশি মানুষ। ৩০ লাখের বেশি মানুষ টিকার বুস্টার ডোজ নিয়েছেন।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
বিশ্ব চিকিৎসা

বিশ্বে আরও শনাক্ত প্রায় পৌনে ১৮ লাখ

বৈশ্বিক মহামারি করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ও মৃত্যু দুটোই বেড়েছে। গত একদিনে বিশ্বে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০ হাজার ৪৪৫ জন। আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু বেড়েছে প্রায় দুই হাজার। এতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৯ লাখ ৩৫ হাজার ৫৮১ জনে দাঁড়িয়েছে।

এসময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১৭ লাখ ৭৪ হাজার ৩০৫ জন। আগের দিনের তুলনায় শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে দেড় লাখের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত বেড়ে পৌঁছেছে ৪২ কোটি ৯৭ লাখ ৮১ হাজার ৯৯৮ জনে।

২৪ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার নিয়মিত আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

বিশ্বে গত একদিনে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রাণহানিতে এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, রাশিয়া, মেক্সিকো, ভারত, জার্মানি, পোল্যান্ডের মতো দেশগুলো।

জার্মানিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ২ লাখ ১৯ হাজার ৮৫৯ জন এবং মারা গেছেন ২৫৩ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত ১ কোটি ৪০ লাখ ৯২ হাজার ৬২১ জন সংক্রমিত এবং ১ লাখ ২২ হাজার ৬২২ জন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে ২ হাজার ৪২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এসময়ে দেশটিতে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৭১ হাজার ৩৭৭ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এ দেশটিতে মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ৮ কোটি ৩ লাখ ৬৬ হাজার ৬৯৭ জন সংক্রমিত এবং ৯ লাখ ৬৬ হাজার ৩৯৩ জন মারা গেছেন।

রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ৭৮৫ জন এবং সংক্রমিত হয়েছেন ১ লাখ ৩৭ হাজার ৬৪২ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত ১ কোটি ৫৭ লাখ ৯৫ হাজার ৫৭০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৪৭ হাজার ৮১৬ জনের। একই সময়ে স্পেনে নতুন করে সংক্রমিত ৩৩ হাজার ৯১১ জন এবং মারা গেছেন ৩০১ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ৯৫৬ জন এবং নতুন শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৩ হাজার ৬২৬ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত ২ কোটি ৮৪ লাখ ৮৫ হাজার ৫০২ জন এবং মারা গেছেন ৬ লাখ ৪৬ হাজার ৪৯০ জন।

আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যার তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা প্রতিবেশী দেশ ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩০২ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৩ হাজার ৪৭৬ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত ৪ কোটি ২৮ লাখ ৮০ হাজার ৫০৭ জন এবং মারা গেছেন ৫ লাখ ১২ হাজার ৯৫৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাজ্যে সংক্রমিত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৬৫৬ জন এবং মারা গেছেন ১৬৪ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট ১ কোটি ৮৭ লাখ ৩৪ হাজার ৬৮৩ জন আক্রান্ত এবং ১ লাখ ৬০ হাজার ৯৭৯ জন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইউক্রেনে সংক্রমিত হয়েছেন ২৫ হাজার ৬২ জন এবং মারা গেছেন ২৯৭ জন। এসময়ে তুরস্কে সংক্রমিত ৮৬ হাজার ৬০০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৬৮ জনের। ইতালিতে ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ৪৯ হাজার ৪০ জন এবং মারা গেছেন ২৫২ জন।

ফ্রান্সে একদিনে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬৬ হাজার ৮৩৩ জন এবং মারা গেছেন ২১৩ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত ২ কোটি ২৪ লাখ ৬৮ হাজার ২৩৯ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৩৭ হাজার ৪৮৯ জন। ২৪ ঘণ্টায় কলম্বিয়ায় নতুন সংক্রমিত ২ হাজার ১৮১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৭৯ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় মেক্সিকোতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭০৬ জন। এ পর্যন্ত উত্তর আমেরিকার এ দেশটিতে মোট মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ১৬ হাজার ৪৯২ জনের।

এছাড়া মহামারি করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় পোল্যান্ডে ৩৬০ জন, আর্জেন্টিনায় ১৫৭ জন, গ্রিসে ৫৩ জন, ইরানে ২২৭ জন, জাপানে ২৭২ জন, রোমানিয়ায় ১১০ জন, কানাডায় ১৩৭ জন, ফিলিপাইনে ২০১ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ১১০ জন, ইন্দোনেশিয়ায় ২২৭ জন এবং হাঙ্গেরিতে ১৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
চিকিৎসা

সুবিচারের জন্য আদালতে যাবেন দুদক পরিচালক শরীফ

চাকরিচ্যুত উপসহকারী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক শরীফ উদ্দীন এবার প্রতিকার চেয়ে উচ্চ আদালতে যাবেন বলে জানিয়েছেন। তিনি আশা করছেন, উচ্চ আদালতে সুবিচার পাবেন।

গত বুধবার শরীফ উদ্দীনকে দুদকের ৫৪ (২) ধারায় চাকরিচ্যুত করা হয়। বেশ কয়েকটি অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানায় দুদক।

এর আগে দুদক আইনের একই ধারায় দুজনকে অপসারণ করা হয়। তাঁদের একজন হাইকোর্টে ধারাটি চ্যালেঞ্জ করলে আদালত তা অবৈধ ঘোষণা করেন। পরে দুদক আদেশের বিরুদ্ধে আপিল অনুমতির আবেদন করে এবং তা এখনো শুনানির অপেক্ষায়।

দুদকের তোলা অভিযোগের বিষয়ে গতকাল শনিবার শরীফ উদ্দীন বলেন, ‘যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ দিয়েছি তাদের তদবিরে আমাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমাকে চাকরিচ্যুত করার জন্য কিছু অভিযোগ দেখালেও অপসারণের নেপথ্যে ছিলেন দুর্নীতিবাজরা। দুদকে আমি প্রতিটি অভিযোগের জবাব দিলেও আমার কোনো বক্তব্য আমলে নেওয়া হয়নি। বরং সুপ্রিম কোর্টে বিচারাধীন ধারা ব্যবহার করে আমাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। ’

কক্সবাজারে জব্দ করা ৯৩ লাখ ৬০ টাকার চালান রাষ্ট্রীয় কোষাগার অথবা বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে জমা না দিয়ে নিজের কাছে রাখার বিষয়ে শরীফ উদ্দীন বলেন, ২০২০ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি র‌্যাবের অভিযানে দুজন সার্ভেয়ারের বাসা থেকে ভূমি অধিগ্রহণ শাখার সাত বস্তা আলামতসহ ওই অর্থ উদ্ধার হয়। ওই অর্থ ও আলামত তিনি জব্দ করেননি। পরদিন মামলার দায়িত্ব পেলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই আরাফাতের কাছ থেকে তিনি ওই অর্থ বুঝে নেন। ঝুঁকি নিয়ে সেই অর্থ তিনি চট্টগ্রাম দুদক অফিসে নিয়ে আসেন।

শরীফ দাবি করেন, তিনি তদারককারী কর্মকর্তা মাহবুবুল আলমের পরামর্শে ওই অর্থ অফিসের আলমারিতে রাখেন ও বিষয়টি পরিচালককে মৌখিকভাবে জানান। জব্দ করা মালপত্র তদন্ত কর্মকর্তা নিজের কাছে রাখেন—এমন নজির দুদকে প্রচুর আছে। আলামতের সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে তাঁদের অফিসের কোষাগারে জমা রাখবেন কি না দ্বিধায় ছিলেন। চট্টগ্রাম থেকে বদলি হওয়ার সময় তিনি ওই টাকা বুঝিয়ে দিয়ে আসেন।

পটুয়াখালীতে বদলির আদেশ হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ করা ও এক মাস পর যোগদানের অভিযোগ প্রসঙ্গে শরীফ উদ্দীন বলেন, ‘করোনার কারণে গত বছরের জুন থেকে দেশে কঠোর বিধি-নিষেধ ছিল। অফিস-আদালত বন্ধ ছিল। আমি নিজেও করোনায় আক্রান্ত হই। সেই সনদ আমি দুদকে জমা দিয়েছি। ওই সময় আমিসহ ২১ জনকে বদলি করা হয়। আমরা সবাই ১৪ জুলাই যোগদান দেখিয়ে ডাকযোগে আর্টিকল ৪৭ পাঠাই। সবাই একই তারিখে নতুন কর্মস্থলে যোগ দিই। কর্তৃপক্ষ অন্য কাউকে শোকজ না করে শুধু আমাকে শোকজ করে। ’

সদ্য চাকরিচ্যুত এই কর্মকর্তা বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে দেরিতে অফিসে যোগদানের কারণ দর্শানোর জবাবে অসুস্থতার প্রত্যয়নপত্র দাখিল করি। করোনায় আক্রান্ত থাকায় দুদকের উপপরিচালক (মানবসম্পদ) মো. রফিকুল ইসলামের নির্দেশে ১৪ জুলাই ই-মেইলে আমার যোগদানপত্র পটুয়াখালীর অফিশিয়াল ই-মেইলে পাঠাই। বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস অনুযায়ী, অনিবার্য কারণবশত বদলি করা কর্মস্থলে যোগদান কাল সর্বোচ্চ ৩০ দিন পর্যন্ত হতে পারে। ’

নতুন কর্মস্থলে যোগ দেওয়ার আড়াই মাস পর পুরনো কর্মস্থলের নথিপত্র হস্তান্তরের অভিযোগ প্রসঙ্গে শরীফ উদ্দীন বলেন, ‘আমার কাছে প্রায় ১৩০টি নথি ছিল। এগুলোর চালান ও সিডি প্রস্তুত সময়সাপেক্ষ। আমি পটুয়াখালীতে যোগদানের পর কর্মস্থল না ছাড়ার বিষয়ে মৌখিক নির্দেশনা ছিল। এ ছাড়া গত বছরের ১০ জুন থেকে দুদকের চট্টগ্রাম-২ অফিসের ফটোকপি মেশিন নষ্ট ছিল। ’

চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে পৃথক ছয় ব্যক্তির কাছে ঘুষ দাবি, চাঁদাবাজি, ভয়ভীতি প্রদর্শন ও হয়রানির অভিযোগ প্রসঙ্গে চাকরিচ্যুত দুদক কর্মকর্তা বলেন, ‘যে ছয় ব্যক্তিকে অভিযোগকারী বলা হচ্ছে, তাঁরা সবাই আমার অনুসন্ধানে অভিযুক্ত ও মামলাসংশ্লিষ্ট ব্যক্তি। তাঁদের অভিযোগের বিষয়ে আমি দুদকে বক্তব্য দিয়ে বিস্তারিত জানিয়েছি। কিন্তু জবাব যাচাই-বাছাই না করে ও অভিযোগ প্রমাণের আগেই কারণ দর্শানো নোটিশ ছাড়াই আমাকে অপসারণ করা হয়েছে। ’

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
চিকিৎসা

প্রসাবের সমস্যার ফ্রি অপারেশন করাচ্ছে আদ্-দ্বীন হাসপাতাল

রাজধানীর মগবাজারে অবস্থিত আদ্-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিনামূল্যে বয়স্ক পুরুষদের প্রস্টেটজনিত প্রসাবের সমস্যার চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়ে এ সেবা কার্যক্রম চলবে আগামী ৭ মার্চ পর্যন্ত।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত হাসপাতালের বহির্বিভাগের ২য় তলায় রোগী বাছাই করে অপারেশনের জন্য ভর্তি করা হবে। রোগী বাছাই কার্যক্রম চলবে ৩ মার্চ পর্যন্ত। রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং থাকা-খাওয়ার খরচ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বহন করবে। রোগীকে শুধু ওষুধের খরচ বহন করতে হবে।

আদ্-দ্বীন হাসপাতালসমূহের মহাপরিচালক প্রফেসর ডা. নাহিদ ইয়াসমিন বলেন, “আদ্-দ্বীন আসহায়, সুবিধাবঞ্চিত মানুষের সেবায় কাজ যাচ্ছে। দরিদ্র রোগীরা যাতে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য আদ্-দ্বীন হাসপাতালসমূহে বিনামূল্যে বিভিন্ন চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। মানবসেবার অংশ হিসেবে আদ্-দ্বীন হাসপাতালে বিনামূল্যে প্রস্টেট জনিত প্রসাবের সমস্যার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। দরিদ্র রোগীরা আদ্-দ্বীন হাসপাতালে এসে বিনামূল্যে এ সেবা নিতে পারবেন। ”

আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ও ইউরোলজিস্ট প্রফেসর ডা. মো. আফিকুর রহমান বলেন, “প্রস্টেট জনিত সমস্যায় অনেকেই অর্থের অভাবে চিকিৎসা নিতে না পেরে কষ্ট ভোগ করেন। আমরা তাদেরকে বিনামূল্যে উন্নতমানের সেবা দিচ্ছি। আমি বিনামূল্যে এই সেবা কার্যক্রমের সাথে থাকতে পেরে অত্যন্ত আনন্দ অনুভব করি।”

ভয়েস টিভি/এসএফ