Categories
জাতীয়

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ ‘কিলিং মিশন’ ২ মিনিটেই শেষ

উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা ও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ হত্যায় ‘কিলিং স্কোয়াডে’র ছিল ৫ অস্ত্রধারী। মাত্র ২ মিনিটেই মুহিবুল্লাহর হত্যার মিশন শেষ করে পালিয়ে যায়। এ পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডে সর্বমোট ১৯ জন কাজ করেছে বলে জানতে পেরেছে পুলিশ।

শনিবার ২৩ অক্টোবর দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ায় মুহিবুল্লাহর হত্যার কিলিং স্কোয়াডের সদস্য আজিজুল হককে গ্রেফতারের পর এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজনে এসব কথা জানান ১৪ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি নাঈমুল হক।

আজিজুল হক ছাড়াও কুতুপালং ক্যাম্প-১ এর ডি ৮ ব্লকের আব্দুল মাবুদের ছেলে মোহাম্মদ রশিদ প্রকাশ মুরশিদ আমিন ও একই ক্যাম্পের বি ব্লকের ফজল হকের ছেলে মোহাম্মদ আনাছ ও নুর ইসলামের ছেলে নুর মোহাম্মদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আজিজুলের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে ১৪ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি নাঈমুল হক বলেন, মুহিবুল্লাকে হত্যার দুই দিন আগে মরগজ পাহাড়ে কিলিং মিশনের বৈঠক করে সন্ত্রাসীরা। সেখানকার নির্দেশে ৫ জনকে অস্ত্রসহ মোট ১৯ জনকে মিশন শেষ করার জন্য পাঠানো হয়েছে।

অধিনায়ক জানান, দিনে দিনে মুহিবুল্লাহ রোহিঙ্গাদের নেতা হিসেবে পরিচিত হচ্ছে তাই তাকে থামাতে যেকোনো মূল্যে। তাই ২৯ সেপ্টেম্বর মুহিবুল্লাহকে বাসা থেকে অফিসে প্রত্যাবাসন বিষয়ে কথা আছে বলে ডেকে আনে গ্রেফতারকৃত সন্ত্রাসী মুরশিদ। তারপর বাকিদের সে সংকেত দিয়ে জানিয়ে দেয়।

তিনি আরও জানান, প্রথমজন একটি, পরেরজন দুইটিসহ মোট চারটি গুলি করা হয় মুহিবুল্লাহকে। তার পর পরই মুহিবুল্লার বাড়ির পেছন দিয়ে পালিয়ে যায় স্কোয়াডের ৫ জন। পরবর্তীতে সবাই সতর্ক থেকে বিভিন্নজনের ওপর দোষ চাপাতে থাকে।

এখন পর্যন্ত এ হত্যা মামলায় ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তার মধ্যে মোহাম্মদ ইলিয়াছ নামে একজন ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

আরও পড়ুন : রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’-এর সদস্য গ্রেফতার

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয়

এই মুহূর্তে সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হচ্ছে নয়: শিক্ষামন্ত্রী

করোনা মহামারির কারণে বিদ্যালয়ের প্রত্যেক শ্রেণীর দিন ভাগ করে ক্লাস নেয়া হচ্ছে। এরই মাঝে করোনা তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা রয়েছে উচ্চ মহলে। এমন পরিস্থিতিতে সরাসরি ক্লাসের দিন বা সংখ্যা আর বাড়ছে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

শনিবার চাঁদপুর শহরের বাবুরহাট এলাকায় নবনির্মিত পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির নবনির্মিত কার্যালয় উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এসব কথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এখন শিক্ষাবর্ষ শেষের দিকে। তাই এই মুহূর্তে বিদ্যালয়ে ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানোর তেমন কোনো সুযোগ নেই। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।

‘তাছাড়া বিশ্বের কিছু কিছু দেশে করোনার তৃতীয় ঢেউ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তাই এই মুহূর্তেই কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।’

তিনি বলেন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শেষ হয়ে গেলে জানুয়ারিতে নতুন ক্লাস শুরু হবে, তখন আমরা চিন্তা করবো ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে কিনা।

কার্যালয় উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, চাঁদপুর পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম দেব কুমার মালু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাহাজ্জল হোসেন পাটওয়ারী, মজিবুর রহমান ভূইয়া, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী প্রমুখ।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয়

৭ দিনের রিমান্ডে ইকবাল

কুমিল্লার নানুয়াদিঘির পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত মো. ইকবাল হোসেনসহ চারজনের সাত দিনের রিমান্ড মন্জুর করেছে আদালত।

২৩ অক্টোবর শনিবার কুমিল্লার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মিথিলা জাহান নিপা এ আদেশ দেন।

এর আগে তাদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। পরে আদালত সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

অন্যান্যরা হলেন, জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে কল করা ইকরাম, দারোগা বাড়ির মাজারের অস্থায়ী খাদেম ফয়সাল ও হুমায়ন কবীর।

এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. তানভির জানান, যেহেতু এখানে অনেকগুলো বিষয় জড়িত আছে সেহেতু তারা কাদের প্ররোচনায় এমন কাজ করেছে তা এখনো স্পষ্ট জানা যাচ্ছে না। ধর্মীয় অনুভূতি মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, তদন্তে আরও কোন তথ্য বের হয়ে আসলে অথবা অন্য ঘটনার সঙ্গে কোনো সম্পৃক্ততা থাকলে তাদের নামে মামলা করা হবে।

১৩ অক্টোবর ভোরে শারদীয় দুর্গাপূজার মহা অষ্টমীর দিন কুমিল্লা শহরের নানুয়া দীঘির উত্তর পাড়ে একটি অস্থায়ী পূজামণ্ডপে প্রতিমার পায়ের ওপর পবিত্র কোরআন দেখা যায়। এরপর কোরআন শরিফ অবমাননার অভিযোগ তুলে ওই মণ্ডপে হামলা চালায় একদল দুর্বৃত্ত। এ সময় সেখানে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়।

এ ঘটনার জের ধরে ওই দিন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দুদের ওপর হামলা করতে যাওয়া একদল ব্যক্তির সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। সেখানে নিহত হন চারজন। পরের দিন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে হিন্দুদের মন্দির, মণ্ডপ ও দোকানপাটে হামলা-ভাঙচুর চালানো হয়। সেখানে হামলায় দুজন নিহত হন।

এরপর রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু বসতিতে হামলা করে ভাঙচুর, লুটপাট ও ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। দেশের আরও অনেক এলাকায় হিন্দুদের মন্দির, মণ্ডপসহ বিভিন্ন স্থাপনায় হামলা চালানো হয়।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
জাতীয়

ইরানের মোস্তফা (স.) পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশিসহ ৫ মুসলিম বিজ্ঞানী

বাংলাদেশের পদার্থ বিজ্ঞানী ড. এম জাহিদ হাসানসহ বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ৫ মুসলিম বিজ্ঞানীকে মুস্তাফা (সা.) পুরস্কার হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রত্যেক বিজ্ঞানীকে পুরস্কার হিসেবে বাংলাদেশি মুদ্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা এবং একটি করে ক্রেস্ট দেওয়া হয়েছে। খবর প্রেসটিভির।

তেহরানের মুস্তফা (সা.) বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফাউন্ডেশন-এর আয়োজিত এক সেমিনারে তাদেরকে এ পুরস্কার দেয়া হয়।

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) ও ইসলামী ঐক্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে শুক্রবার ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রতি দুই বছর পরপর ইরান ভিত্তিক এই ফাউন্ডেশন বিশ্বের শ্রেষ্ঠ মুসলিম বিজ্ঞানী ও গবেষকদের এ পুরস্কার দিয়ে আসছে।

শ্রেষ্ঠ প্রবাসী মুসলিম বিজ্ঞানী হিসেবে এবার যৌথভাবে বিজয়ী হয়েছেন, বাংলাদেশের পদার্থ বিজ্ঞানী ড. এম জাহিদ হাসান ও ইরানের বিজ্ঞানী কামরান ওয়াফা।

জাহিদ হাসান যুক্তরাষ্ট্রের প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করছেন। ইরানের কামরান ওয়াফা অধ্যাপনা করছেন হার্ভার্ডে।

বাংলাদেশি বিজ্ঞানী জাহিদ হাসান ও তার সহযোগীরা পরীক্ষাগারে গবেষণা করে ‘ভাইল ফার্মিয়ন কণা’র খোঁজ পেয়েছেন। এ আবিস্কারের মাধ্যমে তিনি পদার্থবিজ্ঞানে অনেক বড় অবদান রেখেছেন।

ইরানি বিজ্ঞানী কামরান ওয়াফা এফ-থিউরির উন্নয়ন ঘটিয়েছেন। এছাড়াও এবার স্বদেশে বসবাসকারী শ্রেষ্ঠ মুসলিম বিজ্ঞানী হিসেবে যৌথভাবে বিজয়ী হয়েছেন মরক্কোর ইয়াহিয়া তিয়ালাতি, লেবাননের মুহাম্মাদ সানেগ ও পাকিস্তানের মুহাম্মাদ ইকবাল চৌধুরী।

এর আগে দেশ হিসেবে আরও তিন দফায় ৯ জন শ্রেষ্ঠ মুসলিম বিজ্ঞানীকে পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। সেসব দেশ হল- ইরান, সিঙ্গাপুর, তুরস্ক ও জর্ডান।

এবার নতুন করে যুক্ত হল বাংলাদেশের নাম।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয়

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আগে কেন্দ্রে আগুন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বাণিজ্য অনুষদ ভবনের পঞ্চমতলায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবে এ ঘটনার ১৫ মিনিটের মধ্যে আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়। এতে কোনো ক্ষয়ক্ষতি বা কেউ হতাহত হননি।

বাণিজ্য অনুষদ সূত্রে জানা যায়, আজ শনিবার সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিতের আগে সকাল পৌনে ১০টার দিকে বাণিজ্য অনুষদ ভবনের পরীক্ষাকেন্দ্র ৫০৬ নম্বর কক্ষে আগুন লাগে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদরদপ্তরের সহকারী পরিচালক আব্দুল হালি বলেন, ‘দমকল কর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়ার আগেই আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়।’

ঢাবি প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘এয়ার কন্ডিশন ডিভাইস থেকে আগুন লাগে এবং এতে কোনো গুরুত্বপূর্ণ জিনিস ধ্বংস হয়নি।’

এ ঘটনার পর যথাসময়ে বেলা ১১টায় ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়, যা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত চলবে। রাজধানী ঢাকা ছাড়াও দেশের আরও ৭টি বিভাগীয় শহরে এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
জাতীয়

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ‘সশস্ত্র ট্রেনিং সেন্টার’ : বাধা দেয়ায় ব্রাশফায়ার

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত ‘দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়াহ মাদ্রাসা। ক্যাম্পের এ মাদ্রাসায় ট্রেনিং সেন্টার করতে চেয়েছিল একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপ। ওই সন্ত্রাসী গ্রুপটি মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের তাদের সাথে যোগ দেওয়ারও চাপ দিয়েছিল। রাজি না হওয়ায় প্রতিনিয়ত হত্যার হুমকির আতংকে দিন কাটছিল মাদ্রাসা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। সন্ত্রাসীদের হাতে নিহতের স্বজন ও সাধারণ রোহিঙ্গারা এমনটি অভিযোগ করছেন।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সূত্রে জানায়, রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লাহকে হত্যার পর ক্যাম্পে অস্থিরতা চরম আকারে বিরাজ করছিল। রাত হলেই ক্যাম্পের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় কয়েকটি সন্ত্রাসী গ্রুপের হাতে। ফলে সাধারণ রোহিঙ্গাদের মনের ভেতর আতংক দেখা সৃষ্টি হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের রাতে ক্যাম্পে  মোতায়েন না থাকায় সন্ত্রাসীদের উগ্রতা খুব বেড়ে যায় বলে অভিযোগ করেছেন রোহিঙ্গারা। এসব সন্ত্রাসীদের ভয়ে ক্যাম্পের বাসিন্দারা এ ব্যাপারে কথা বলা ও অভিযোগ করতে চাননা।

নিহত রোহিঙ্গা পরিবারের কয়েকজন স্বজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে জানিয়েছেন- বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত ‌‘দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়াহ মাদ্রাসা’টিতে ‘আরসা’র নামে সন্ত্রাসী গ্রুপ ট্রেনিং সেন্টার করতে মাদ্রাসা সুপারকে চাপ দিচ্ছিল। মাদ্রাসা সুপার রাজি না হওয়ায় রাতেই হামলা চালানো হয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষক, ছাত্র ও স্বেচ্ছাসেবীসহ ৬ জনকে হত্যা করে এবং হামলায় আহত হন ১০-১২ জন।

জানা যায়, এমন নির্মম হত্যাকাণ্ডের পরও হামলাকারীরা ক্যাম্পের আশপাশেই বীরবেশে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এখনো সন্ত্রাসীদের ভয়ে সাধারণ রোহিঙ্গারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তা জানাতে পারছেন না। কারণ ক্যাম্প দিনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে থাকলেও রাতে নিয়ন্ত্রণ চলে যায় সন্ত্রাসীদের হাতে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছু নিহত রোহিঙ্গার আরেক স্বজন অভিযোগ করেন, ‘রাতের ক্যাম্প খুব ভয়াবহ অবস্থায় পরিণত হয়। সন্ধ্যা হলেই নিয়ন্ত্রণে নেয় সন্ত্রাসী গ্রুপ। মিয়ানমারের রাখাইনে সাধারণ রোহিঙ্গাদের উপর যে জোর-জুলুম, নির্যাতন করে আসছিল, সে একই কায়দায় ক্যাম্পগুলোতে এই সন্ত্রাসীরা রোহিঙ্গাদের নির্যাতন করছে। তারা চায় ক্যাম্প তাদের নিয়ন্ত্রণে থাকুক। সন্ধ্যা হতেই এসব সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের বিচরণে ভয়ে রাত কাটে আমাদের।’

রোহিঙ্গাদের ভাষ্যমতে, ‘আরসা’র গ্রুপের ফজলুল কবির, খালেক, মৌলভী নুর হোছন, মৌলভী আবু বক্কর ও  ইকবালসহ অনেকেই উখিয়ার বালুখালী ২ নম্বর ক্যাম্পটি তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে চায়। এই কারণেই মাদ্রাসায় সন্ত্রাসীদের হামলার ঘটনা ঘটেছে।

ক্যাম্পে নিয়োজিত ১৪ নম্বর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন ‘এপিবিএন’র অধিনায়ক (পুলিশ সুপার) মো. নাঈমুল হক জানান- এখন রাতে সব ক্যাম্পে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যদি মনে করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও কঠোর হবে। নিহত ৬ জনের হত্যাকারীদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান সক্রিয় রয়েছে বলে জানান তিনি।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাদ্রাসায় হামলার ঘটনায় এই পর্যন্ত ৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশগুলোর ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অভিযান জোরদার করা হয়েছে।

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ভোর ৪টার সন্ত্রাসীদের হামলায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১২, ব্লক-জে-৫ এর বাসিন্দা হাফেজ ও মাদ্রাসা শিক্ষক মো. ইদ্রীস (৩২), ক্যাম্প-৯ ব্লক-১৯ এর মৃত মুফতি হাবিবুল্লাহর ছেলে ইব্রাহিম হোসেন (২৪), ক্যাম্প-১৮, ব্লক-এইচ -৫২ এর নুরুল ইসলামের ছেলে মাদ্রাসার ছাত্র আজিজুল হক (২২), একই ক্যাম্পের স্বেচ্ছাসেবী আবুল হোসেনের ছেলে মো. আমীন (৩২)। ‘এফডিএমএন’ ক্যাম্প-১৮, ব্লক-এফ-২২ এর মোহাম্মদ নবীর ছেলে মাদ্রাসা শিক্ষক নুর আলম ওরফে হালিম (৪৫), এফডিএমএন ক্যাম্প-২৪-এর রহিম উল্লাহর ছেলে মাদ্রাসা শিক্ষক হামিদুল্লাহ (৫৫) নিহত হন। পুলিশ হামলাকারীদের সদস্য মুজিবুর নামের একজনকে দেশীয় লোডেড ওয়ান শ্যুটারগান, ছয় রাউন্ড গুলি ও একটি ছুরিসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর নিহতদের লাশ কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। তদন্ত শেষে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিহতদের মৃতদেহ কবরস্থ করা হয়।

আরও পড়ুন : উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
অপরাধ জাতীয়

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যা: ‘কিলিং স্কোয়াড’-এর সদস্য গ্রেফতার

রোহিঙ্গা নেতা ও আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ হত্যার ‘কিলিং স্কোয়াড’-এর এক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ১৪ এপিবিএন।

সকালে ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক এসপি নাইমুল হক বিষয়টি উল্লেখ করে এক খুদে বার্তায় বলেছেন, এ বিষয়ে দুপুরে ব্রিফিং করে বিস্তারিত জানানো হবে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ১৪ এপিবিএন কার্যালয়ে এ ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান তিনি।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে বন্দুকধারীরা মুহিবুল্লাহকে গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনায় তার ছোট ভাই হাবিবুল্লাহ অজ্ঞাত ১৫-২০ জনকে আসামি করে উখিয়া থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন।

২০১৯ সালের ২৫ আগস্ট উখিয়ার কুতুপালং শিবিরের ফুটবল মাঠে গণহত্যাবিরোধী মহাসমাবেশ হয়েছিল। তাতে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা অংশ নিয়েছিলেন। সেই সমাবেশ সংগঠিত করেছিলেন মুহিবুল্লাহ। ৪৮ বছর বয়সী মুহিবুল্লাহকে রোহিঙ্গারা ‘মাস্টার মুহিবুল্লাহ’ বলে ডাকতেন।

আরও পড়ুন : ক্যাম্পে দুর্বৃত্তদের গুলিতে রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ নিহত

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয়

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতকের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হবে আজ। আসন প্রতি লড়বেন ৭৩ দশমিক ৮১ জন।

শনিবার ২৩ অক্টোবর বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ঢাবি ও সাত বিভাগীয় পর্যায়ের বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সকাল সোয়া ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনের পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করবেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এবার ‘ঘ’ ইউনিটে মোট আবেদনকারীর সংখ্যা ১ লাখ ১৫ হাজার ৮৮১ জন। আর মোট আসন সংখ্যা ১৫৭০টি। ‘ঘ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় ৬০ নম্বরের এমসিকিউ ও ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে। এমসিকিউ পরীক্ষা ৪৫ মিনিট ও লিখিত পরীক্ষা ৪৫ মিনিট অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের ফলাফলের (জিপিএ) ওপর ২০ নম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি), রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি), খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুবি), শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি), বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি), বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (ববি) ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এর মধ্যে ‘ঘ’ ইউনিটে ঢাবিতে পরীক্ষা দেবেন ৬১ হাজার ৮৫০ জন, রাবিতে ১২ হাজার জন, চবিতে ৯ হাজার ৮৯৮ জন, খুবিতে ৮ হাজার ১২৪ জন, শাবিপ্রবিতে ২ হাজার ১৭৮ জন, বেরোবিতে ১১ হাজার ২০ জন, ববিতে ৩ হাজার ১৩ জন, বাকৃবিতে ৭ হাজার ৭৯৮ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেবেন।

এ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ৭ হাজার ১৪৮টি আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে ৩ লাখ ২৪ হাজার ৩৪০টি। এ হিসেবে প্রতি আসনের বিপরীতে লড়ছেন ৪৫ জন শিক্ষার্থী। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় সবচেয়ে কম প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে ‘খ’ ইউনিটে ও সবচেয়ে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা ‘চ’ ইউনিটে।

‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষার মাধ্যমে শেষ হবে ঢাবির এবারের ভর্তি পরীক্ষার। এর আগে ক, খ, চ এবং গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরীক্ষাগুলো সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
জাতীয়

রংপুরে হামলা-অগ্নিসংযোগের হোতা গ্রেফতার

সম্প্রতি ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তোলে রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়ি-ঘরে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার অন্যতম হোতাকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

২২ অক্টোবর শুক্রবার দিনগত রাতে তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান।

তবে প্রাথমিকভাবে গ্রেফতার ওই ব্যক্তির বিস্তারিত নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

তিনি জানান, রংপুরে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের উদ্দেশে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার অন্যতম হোতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

২৩ অক্টোবর শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
জাতীয়

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ষড়যন্ত্র করছে স্বাধিনতা বিরোধীরা : এলজিআরডি মন্ত্রী

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী তাজুল ইসলাম এমপি বলেছেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ষড়যন্ত্র করছে স্বাধিনতা বিরোধীরা। তারা নতুন করে তাঁরা দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়। তাই তাঁরা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করছে।

২২ অক্টোবর শুক্রবার বিকেলে পঞ্চগড়ের বোদা পৌরসভায় এক পথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান সকল গোষ্টির মানুষেরা সমান ভাবে সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবে। শেখ হাসিনার শাসনামলে জাতিগত কোনো ভেদাভেদ নেই। দলমত নির্বিশেষে সকলেই আমরা দেশের জন্য কাজ করবো।

বোদা পৌরসভার চত্বরে পৌর মেয়র এ্যাডভোকেট ওয়াহিদুজ্জামান সুজার সভাপতিত্বে এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন।

এসময় রেলমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, শেখ হাসিনা বর্তমানে বিশ্বের রোল মডেল। তার সঠিক দিক নির্দেশনায় দেশ আয় উন্নয়ন শীল দেশের কাতারে।

পথসভা শেষে মন্ত্রীদ্বয় পৌর চত্বরে দুটি গাছের চারা রোপন করেন। পরে মন্ত্রী উপজেলার ময়দানদিঘি ইউনিয়নের সাবেক সিটমহল এলাকার বিভিন্ন কাজের পরিদর্শন করেন।

এর আগে মন্ত্রী রেলমন্ত্রীর নিজ বিদ্যালয় বিএল উচ্চ বিদ্যালয়ে এক পথসভায় অংশ নেন।

ভয়েসটিভি/এএস