Categories
রাজনীতি

‘ইসলাম শান্তির কথা বলে, অনেক মুসলিম দেশে ভাস্কর্য আছে’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, ‘ইসলামে উগ্রবাদের কোনো স্থান নেই। আলেমদের নাম করে যারা উগ্রবাদের কথা বলছে, সেটা ইসলাম বলে না। ইসলাম শান্তির কথা বলে। পৃথিবীর অনেক মুসলিম দেশে ভাস্কর্য আছে। সেখানে ভাস্কর্য নিয়ে কেউ কথা বলে না।’

২৮ নভেম্বর শনিবার ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও ঢাকার সাবেক মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে হানিফ একথা বলেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আলেম-ওলামারা শ্রদ্ধার পাত্র। আপনারা উগ্রবাদী কথা বলবেন না। উগ্রবাদী কথা জনগণ সমর্থন করে না। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য প্রতিষ্ঠিত হবে। কোনো শক্তির ক্ষমতা নেই এটা ঠেকানোর।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা আরো বলেন, ‘এটা স্বাধীন রাষ্ট্র। এখানে পাকিস্তানের প্রেতাত্মা বা রাজাকারদের হুমকি শোনার জন্য নয় মাস যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন হয়নি। এটা স্বাধীন দেশ, এখানে সরকার আছে, জনগণ আছে। উগ্রবাদী কথা জনগণ মানে না। সরকারের শক্তি সম্পর্কে তাদের ধারণা থাকা উচিত।’

হানিফ আরও বলেন, ‘করোনার সময়ে সারা বিশ্বে যেখানে জিডিপি নামছে সেখানে আমাদের জিডিপি পাঁচে আছে। এটা বর্তমান সরকার শেখ হাসিনার কারণে হয়েছে। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। সরকারের কোনো উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বিএনপির চোখে পড়ে না। বিএনপির রাজনীতি মিথ্যাচারে ভরা আর অভিযোগে পূর্ণ। ভোট নিয়ে তারা মিথ্যাচার করে। দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে কোনো ইস্যু না থাকা সত্ত্বেও আলেমদের নিয়ে ইস্যু করার চেষ্টা করছে তারা।’

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির।

আরও পড়ুন: ভাস্কর্য হলেই ফেলে দেয়ার হুমকি বাবুনগরীর

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
রাজনীতি

২৫ পৌরসভায় নৌকার টিকিট পেলেন যারা

প্রথম ধাপে দেশের ২৫টি পৌরসভায় আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। ওই ২৫ পৌরসভায় প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ।

২৮ নভেম্বর শনিবার বিকেলে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভায় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যারা নৌকার টিকিট পেলেন-

রংপুর বিভাগের পঞ্চগড় পৌরসভায় জাকিয়া খাতুন, ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মো. কশিরুল আলম, দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে মো. খাজা মইন উদ্দীন, রংপুরের বদরগঞ্জে মো. আহাসানুল হক চৌধুরী ও কুড়িগ্রাম পৌরসভায় মো. কাজিউল ইসলাম।

রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী জেলার পুঠিয়া পৌরসভায় মো. রবিউল ইসলাম, পবা উপজেলার কাটাখালী পৌরসভায় মো. আব্বাস আলী, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে মনির আক্তার খান তরু লোদী ও পাবনার চাটমোহর পৌরসভায় সাখাওয়াত হোসেন সাখো।

খুলনা বিভাগের কুষ্টিয়া জেলার খোকসা পৌরসভায় আল মাছুম মুর্শেদ, খুলনার দাকোপ উপজেলার চালনা পৌরসভায় সনত কুমার বিশ্বাস ও চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার।

বরিশাল বিভাগের বরগুনা জেলার বেতাগী পৌরসভায় এ. বি. এম. গোলাম কবির, পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার কুয়াকাটা পৌরসভায় আবদুল বারেক মোল্লা, বরিশালের উজিরপুরে মো. গিয়াস উদ্দিন বেপারী ও বাকেরগঞ্জে মো. লোকমান হোসেন ডাকুয়া।

ঢাকা বিভাগের মানিকগঞ্জ পৌরসভায় মো. রমজান আলী, ঢাকা জেলার ধামরাইয়ে গোলাম কবির ও গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভায় মো. আনিছুর রহমান।

ময়মনসিংহ বিভাগের ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও পৌরসভায় এস.এম. ইকবাল হোসেন (সুমন) ও নেত্রকোনার মদন পৌরসভায় মো. আব্দুল হান্নান তালুকদার।

সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই পৌরসভায় বিশ্বজিৎ রায়, মৌলভীবাজারের বড়লেখায় আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী ও হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে মো. মাসুদউজ্জামান মাসুক।

চট্টগ্রাম বিভাগের চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড পৌরসভায় মেয়র পদে বদিউল আলমকে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলের মনোনয়ন বোর্ড।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে গত ২২ নভেম্বর এই ২৫ পৌরসভায় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। তফসিল ঘোষণা করে কমিশনের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর বলেন, ‘২৮ ডিসেম্বর সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ২৫ পৌরসভার ভোটগ্রহণ করা হবে।’

এই নির্বাচনে রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের শেষ সময় ৩ ডিসেম্বর এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১০ ডিসেম্বর।

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
রাজনীতি

‘ভাস্কর্য নিয়ে মনগড়া ব্যাখ্যা দেশের সংস্কৃতির জন্যে চ্যালেঞ্জ’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে একটি ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী যে অনাহুত বিতর্কের সৃষ্টি করছে তার ভিন্ন কোনো উদ্দেশ্য থাকতে পারে। ভাস্কর্য নিয়ে মনগড়া ব্যাখ্যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও দেশের সংস্কৃতির প্রতি চ্যালেঞ্জ।

২৮ নভেম্বর শনিবার সকালে নিজের সরকারি বাসভবন থেকে এক ব্রিফিংয়ে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে একটি ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে ধর্মপ্রিয় মানুষের মনে বিদ্বেষ ছড়ানোর অপচেষ্টা করছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে এদেশে ইসলাম সম্পর্কে গবেষণা, চর্চা এগিয়ে নিতে বঙ্গবন্ধু প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

বঙ্গবন্ধু ধর্মীয় শিক্ষা প্রসারে মাদরাসা বোর্ড পুনর্গঠনসহ ইসলাম প্রচারে তাবলিগ জামাতকে জমি দান করেছিলেন জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা পবিত্র ধর্মের একজন নিবেদিত প্রাণ ও অনুসারী হিসেবে ইসলামের সঙ্গে জ্ঞানবিজ্ঞানের সমন্বয় করে প্রকৃত ইসলামের চর্চা এগিয়ে নিতে জনমানুষের ধর্মানুরাগের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দেশের প্রতিটি উপজেলায় নির্মাণ করেছেন মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স।

তিনি বলেন, একজন ধর্মপ্রাণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন সরকার পরিচালনার দায়িত্বে তখন এদেশে ইসলামবিরোধী কার্যক্রম হবে, তা বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই।

তিনি বলেন, ভাস্কর্যকে যারা মূর্তি বলে অপপ্রচারে নেমেছেন তারা নিজেরাই ভ্রান্তিতে আছেন। দেশের আলেম সমাজ এবং বিশেষজ্ঞগণ ইতিমধ্যেই বারবার বলেছেন, মূর্তি আর ভাস্কর্য এক নয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ইসলাম আমাদের ধর্ম, এ ধর্মের বিধিবিধানে ধর্মীয় ইস্যুতে বাড়াবাড়ির সুযোগ নেই। নিরুৎসাহিত করা হয়েছে ধর্মীয় বিষয়ে বিতর্ক করতে, নিষেধ করা হয়েছে ফিৎনা-ফ্যাসাদ সৃষ্টিতে।

‘বাংলাদেশের স্থপতির ভাস্কর্য টেনে হেঁচড়ে নামানো হবে’ হেফাজত নেতা বাবুনগরীর এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এক ধর্মীয় নেতা ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য রাখছেন। তাদের এমন রুচি এবং ভাষা ব্যবহার দেখে তাদের ধর্মচর্চা ও ইসলামি রুচিবোধ নিয়ে জনমনে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।

আরও পড়ুন: ভাস্কর্য হলেই ফেলে দেয়ার হুমকি বাবুনগরীর

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
রাজনীতি

‘করোনার গতি-প্রকৃতি কোন দিকে যায় বলা মুশকিল’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘ভ্যাকসিনকে সহজ ও দ্রুত সময়ের মধ্যে জনগণের নাগালে পৌঁছে দিতে সরকারি ও বেসরকারিভাবে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। করোনার গতি-প্রকৃতি কোন দিকে যায় বলা মুশকিল, তবুও সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নিয়ে রেখেছেন।’

২৭ নভেম্বর শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা-বিষয়ক উপকমিটির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত চিকিৎসকদের মাঝে এন-৯৫ মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। ওবায়দুল কাদের সংসদ ভবন এলাকার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের জনগণের মাঝে করোনা সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন করারও নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ নেতৃত্বে বৈশ্বিক এ মহামারির পরও বাংলাদেশ আজকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ফরেন কারেন্সি- রিজার্ভ ৪১ বিলিয়ন ডলার অর্জন করেছে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘একটি অশুভ মহল বৈশ্বিক মহামারির এই মানবিক সংকটকে পুঁজি না করলে পরিস্থিতি মোকাবিলা আরও সহজতর হতো এবং জনগণের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি অনেকটা কম হত। জনগণকে এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে এবং এদের বিরুদ্ধে দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।’

বিএনপি মহাসচিব সম্প্রতি রাজধানীর ৩টি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাকে রহস্যজনক দাবি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ঘটনাটি রহস্যজনক তো বটেই। তবে এ রহস্যের পেছনে কারা আছে সেটা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। দেশের শান্তি বিনষ্টের কোনো ষড়যন্ত্র অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আছে কিনা সেটা তদন্তের পর বেরিয়ে আসবে।’ এই ঘটনা স্বাভাবিক নাকি নাশকতা এবং এর সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের কাউকে রেহাই দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ার করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি নিজেরা আগুন সন্ত্রাস করে সরকারের ওপর দোষ চাপায়, কাজেই অগ্নিসংযোগ ঘটনাও তারা “যত দোষ নন্দ ঘোষ”এর ওপর চাপানোর পুরোনো অভ্যাসের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়েছে।’

ওবায়দুল কাদের ডাক্তার মিলনের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান এবং অভিনেতা আলি যাকেরের মৃত্যুতেও গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন।

ধানমন্ডি প্রান্তে এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাসিম, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার রোকেয়া সুলতানা, শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক সামছুন্নাহার চাঁপা এবং উপদফতার সম্পাদক সায়েম খান।

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
রাজনীতি

সপরিবারে করোনা আক্রান্ত বরকত উল্লাহ বুলু

সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী বরকত উল্লাহ বুলু।

২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার কোভিড-১৯ পরীক্ষায় বুলুসহ তার সহধর্মিণী শামীমা বরকত লাকী, বড় ছেলে ওমর শরীফ মোহাম্মদ ইমরান (সানিয়াত) ও ছোট ছেলে মাহাথির মোহাম্মদ ইরকানের ফল পজিটিভ আসে। এরপর রাতে তারা রাজধানীর গ্রীন লাইফ হাসপাতালে ভর্তি হন।

সেখানে বুলু পরিবার ইউজিসি অধ্যাপক মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহর অধীনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

যুবদলের কেন্দ্রীয় চট্টগ্রাম বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মনজুরুল আজিম সুমনি এ তথ্য জানিয়ে বলেন, হাসপাতালে ভর্তি হলেও বুলু পরিবারের সবাই ভালো আছেন। দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন বরকত উল্লাহ বুলু।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
রাজনীতি

রাজধানীর বস্তিতে আগুন লাগার বিষয়টি রহস্যজনক: ফখরুল

বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।রাজধানীর পল্লবীর কালশী এলাকার বাউনিয়া বাঁধ বস্তি, মহাখালীর সাত তলা বস্তি ও মোহাম্মদপুরের বাবর রোডে বিহারী পট্টিতে অগ্নিকাণ্ড রহস্যজনক।

বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপি মহাসচিব এই ।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এই অগ্নিকাণ্ডে   রাজধানীর উক্ত তিনটি বস্তির অসংখ্য নিম্ন আয়ের মানুষ ঘরবাড়ি, সম্পদ, অর্থ, পরিধেয় বস্ত্র এমনকি রান্না করার সম্বলটুকু হারিয়ে দিশেহারা। এই পরিস্থিতিতে তারা শীতের মধ্যে খোলা আকাশের নীচে অত্যন্ত মানবেতর জীবন-যাপন করছেন ।

বিএনপি মহাসচিব বলেন বস্তির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের মদদপুষ্টরা ষড়যন্ত্র করে এসব আগুন লাগিয়েছে। আগুন লাগিয়ে দখল, কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া, মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজির দৌরাত্ম নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে তারা বেপরোয়া।

মির্জা ফখরুল বলেন সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা উন্নয়নের জোয়ারের কথা বলতে বলতে হয়রান হয়ে যাচ্ছে। দেশে প্রকৃত অর্থে কিসের উন্নয়ন হচ্ছে তা এসব বস্তি ও বস্তিবাসীর দিকে তাকালেই ফুটে ওঠে।

ভয়েস টিভি / আইএ

Categories
রাজনীতি

‘আওয়ামী লীগ অপরাধীকে রক্ষা করার ঢাল হবে না’

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একটি সুশৃঙ্খল রাজনৈতিক দল উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সাংগঠনিকভাবে কোনো অনিয়ম, দুর্নীতি প্রশ্রয় দেয়া হয় না। যে কোনো অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া মাত্রই নেয়া হচ্ছে সাংগঠনিক ব্যবস্থা। রাজনৈতিক পরিচয়ে অপরাধ করার কোন সুযোগ আওয়ামী লীগে নেই। দল কখনো কোনো অপরাধীকে রক্ষা করার ঢাল হবে না।

২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে ব্রিফিংকালে এসব বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা স্বপ্রণোদিত হয়ে যে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছিলেন, তা এখনও চলমান আছে, ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার কাছে অপরাধীর পরিচয় অপরাধীই। গুটি কয়েক মানুষের অপরাধের জন্য সরকারের অনন্য অর্জনগুলো ম্লান হতে দেয়া যায় না জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অপরাধের দায় ব্যক্তির, দলের নয়।

সম্প্রতি দুটি জেলায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি দেয়া প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটি কেন্দ্র হতে তৃণমূলের জন্য দলীয় প্রধানের একটি বার্তা। মজবুত এবং গণমুখী সংগঠন আওয়ামী লীগের প্রধান লক্ষ্য, বিভিন্ন ইউনিটে পারস্পরিক সমঝোতা, সমন্বয় এবং সম্প্রীতির অভাব দেখা দিলে সংগঠনের অচলাবস্থা তৈরি হয়।

দলের অভ্যন্তরীণ শৃঙ্খলাকে এখন গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি। সততা, নিষ্ঠা এবং দলের প্রতি ত্যাগের স্বীকৃতিস্বরূপ জেলা থেকে কেন্দ্রে পুরস্কৃত করা হয়েছে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

পুরো দেশে সাংগঠনিক নেতৃত্বের ওপর দলীয় সভাপতির দৃষ্টি রয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, শেখ হাসিনার কাছে সকলের পারফরম্যান্সের রিপোর্টও রয়েছে। যারা বর্তমানে বিভিন্ন পর্যায়ে জনপ্রতিনিধি রয়েছেন, দলীয় দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের কার্যক্রমও গুরুত্বসহকারে মনিটর করা হচ্ছে।

ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের সাংগঠনিক শৃঙ্খলা মেনে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসরণের মাধ্যমে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।

তিনি নেতাকর্মীদের হুঁশিয়ার করে বলেন, মানুষের ভাগ্য বদলের জন্য বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগ কারো ব্যক্তিগত ভাগ্যবদল ও স্বার্থসিদ্ধির জন্য নয়।

বিশ্ব ফুটবলের কিংবদন্তি ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এসময় তিনি বলেন, ম্যারাডোনা ছিলেন কোটি ফুটবল ভক্তের প্রাণ, তার মৃত্যু ফুটবল তথা ক্রীড়া বিশ্বের জন্য অপূরনীয় ক্ষতি।

আরও পড়ুন: দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের বর্ণাঢ্য জীবন

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
রাজনীতি

‘রাতের আঁধারে দূতাবাস কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে বিএনপি’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিদেশিদের কাছে নয়, দেশের জনগণের কাছে নালিশ করুন। বিএনপি কথায় কথায় বিভিন্ন দূতাবাসে নালিশ করে আর রাতের আঁধারে দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে। তাদের মুখে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের কথা মানায় না।

২৫ নভেম্বর বুধবার সকালে নিজের সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সেতুমন্ত্রী এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগে গণতন্ত্রের চর্চা নেই- বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, গণতন্ত্রহীনতা এবং অগণতান্ত্রিক চর্চা যাদের দলগত বৈশিষ্ট্য তাদের মুখে এ কথা ভূতের মুখে রাম নাম ধ্বনির মতো।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন দলে এবং সরকারে তথাকথিত বিএনপি মার্কা গণতন্ত্র চর্চাতো জাতি দেখেছে।

তিনি বলেন, যাদেরকে ১৯৯৬ সালে জনগণ আন্দোলন করে ক্ষমতা থেকে নামিয়েছে, তারা এখন গণতন্ত্রের সবক দিচ্ছে। বিএনপির মুখে গণতন্ত্রের কথা হাস্যকর। তারা যা করছে আসলে তা জনগণের সঙ্গে প্রতারণা।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতাদের কথা শুনলে মনে হয়, দেশটা তারা স্বাধীন করেছে। আর আওয়ামী লীগ সাইড লাইনে বসে বসে দেখেছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমেই এসেছে এ দেশের স্বাধীনতা এবং দেশের স্বাধীনতার সুরক্ষা আওয়ামী লীগের হাত ধরেই এসেছে।

আগামী ২ বছরের জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডব্লিুএইচও, এফএডি এবং ওআইই কর্তৃক ওয়ান হেলথ গ্লোবাল লিডার্স গ্রুপ অন অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল রেজিস্ট্যান্সের (এএমআর) কো-চেয়ারম্যান মনোনীত হওয়ায় দেশের জনগণ ও আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান ওবায়দুল কাদের।

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
রাজনীতি

জাতীয় শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হলেন মান্নান

জাতীয় শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হলেন মো. নূর কুতুব আলম মান্নান। ২৫ নভেম্বর বুধবার আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

এতে উল্লেখ করা হয়, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মন্টুর মৃত্যুতে সভাপতির পদটি শূন্য হয়। এ কারণে জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সহ-সভাপতি নূর কুতুব আলম মান্নানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এর আগে গত ১৮ অক্টোবর জাতীয় শ্রমিক লীগের ৩৫ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়। এ কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন ফজলুল হক মন্টু এবং কেএম আজম খসরুকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। আর সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান নূর কুতুব আলম মান্নান।

২০ নভেম্বর শুক্রবার ভোর রাত ৪টায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ফজলুল হক মন্টু। এরপর জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতির পদ শূন্য হয়।

ভয়েসটিভি/এএস

Categories
রাজনীতি সারাদেশ

আওয়ামী লীগ নেতা কুতুব চৌধুরীর মৃত্যু, প্রধানমন্ত্রীর শোক

ময়মনসিংহের ফুলপুরের বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা শাহ্ কুতুব চৌধুরী (৫৫) আর নেই।

২৪ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। এর আগে ২৩ নভেম্বর রাত ৩টার দিকে তিনি স্ট্রোক করেন। পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মারা যান।

শাহ্ কুতুব চৌধুরী ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও ফুলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়াও তিনি ফুলপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, উপজেলা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

শাহ্ কুতুব চৌধুরীর মৃত্যুতে আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে শোক প্রকাশ করেছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও শোক প্রকাশ করেন।

এছাড়াও গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শীতেষ চন্দ্র সরকার, উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল, পৌর মেয়র আমিনুল হকসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করেছেন।

ভয়েস টিভি/এসএফ