Categories
বিশ্ব

১৯ তলা ভবন থেকে পড়েও বেঁচে রইলেন বৃদ্ধা

‘রাখে আল্লাহ, মারে কে?’ কথাটির উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে রইলেন ৮২ বছরের এক বৃদ্ধা। ১৯ তলা ভবন থেকে পড়েও বেঁচে রইলেন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ চীনের জিয়াংসু প্রদেশের ইয়াংঝুতে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই বৃদ্ধা ১৯ তলা থেকে পড়ে ফেলেও সৌভাগ্যক্রমে মাটিতে না পড়ে বারান্দার রেলিংয়েই আটকে ছিলেন। আটকে উল্টো হয়ে ঝুলে ছিলেন তিনি। এভাবে তার ঝুলে থাকার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে ভাইরাল হয়েছে।

বারান্দায় কাপড় মেলতে গিয়ে ওই বৃদ্ধা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পড়ে যান। ১৯ তলা থেকে পড়ে যাওয়ার পর ১৮ তলার বারান্দার রেলিংয়ে লাগানো র‍্যাকে আটকে যায় তার পা। তখন তার মাথা, বাহু আর শরীরের উপরের অংশ ১৭ তলায় ঝুলতে থাকে।

পরে উদ্ধারকর্মীরা তাকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হন। উদ্ধারকারীদের একটি দল ১৮ তলায় তার পায়ের কাছে অবস্থান করছিলেন। আরেক দল ১৭ তলায় তার শরীরে দড়ি বেঁধে তাকে নিরাপদে নামিয়ে আনেন।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এ ঘটনায় ওই বৃদ্ধা ভয় পেলেও গুরুতর কোনো আঘাত পাননি।

আরও পড়ুন : কেরানীগঞ্জে তিন তলা ভবন ধস

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
বিশ্ব

সুইসাইড ব্রিজ! পোর্ট এলিজাবেথদের কাছে এক আতঙ্কের নাম

সুইসাইড ব্রিজ! নাম শুনে বিস্মিত হলেও দক্ষিণ আফ্রিকার পোর্ট এলিজাবেথের একটি ব্রিজ স্থানীয়দের কাছে পরিচিতি পেয়েছে এ নামে। এখন পর্যন্ত ব্রিজটি থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছে ৮৭ জন।

পোর্ট এলিজাবেথ থেকে কেপটাউন যাওয়ার পথে নজর কাড়া ব্রিজটি চোখে পড়বে যে কারো।

এর সৌন্দর্য্য মানুষকে মুগ্ধ করার ক্ষমতা রাখলেও স্থানীয়দের কাছে এটি এক আতঙ্কের নাম। ৪৬০ ফুট উচ্চতার ব্রিজটিকে আত্মহত্যার জন্য বেছে নেন আত্মহত্যাপ্রবণরা। এ পর্যন্ত বেশকিছু মানুষ সেখানে আত্মহত্যা করার ঘটনায় ব্রিজটি পরিচিতি পেয়েছে সুইসাইড ব্রিজ নামে।

১৯৭১ সালের ১১ নভেম্বর নির্মিত হওয়ার ১২ দিন পরই ঘটে প্রথম আত্মহত্যার ঘটনা। আর সর্বশেষ আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে। ব্রিজের আশপাশে মানুষ চলাচল কম থাকায় আত্মহত্যার জন্য ব্রিজটিকে বেছে নেয়া হয় বলে ধারণা অনেকের।

২০০৩ সালে জোহানেসবার্গের এক সাংবাদিক আত্মহত্যা রোধে একটি ফান্ড গঠন করেন। পরে সেই ফান্ডের অর্থে ব্রিজটিতে বসানো হয় ক্যামেরা ও টেলিফোন সেন্টার। এছাড়া ব্রিজের ওপর সতর্ক নজর রয়েছে পুলিশেরও। তবে এরপরও বন্ধ করা যায়নি আত্মহত্যার ঘটনা।

পরে আত্মহত্যা রোধে ২০১৩ সালে ব্রিজের ওপর বসানো হয় ২.৭ মিটার উচ্চতার নেট। তবে এতসব কিছুর মধ্যেও আত্মহত্যাপ্রবণ মানুষ আত্মহত্যা করেই চলেছেন।

আরও পড়ুন : সিডনিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই বাংলাদেশির মৃত্যু

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
বিশ্ব

রাশিয়ায় কয়লাখনিতে বিস্ফোরণ, উদ্ধারকারীসহ নিহত ৫২

রাশিয়ায় কয়লাখনিতে আগুন লেগে অন্ততপক্ষে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় উদ্ধারকারী দলের বেশ কয়েকজন সদস্যেরও মৃত্যু হয়েছে।

ডয়েচে ভেলের প্রতিবেদনে বলা হয়, সাইবেরিয়ার একটি খনিতে কয়লার গুড়োয় আগুন ধরে যায়। এতে সর্বত্র ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ে। ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা ধোঁয়ায় কার্যত বন্ধ হয়ে যায়। রাশিয়ার ডেপুটি প্রসিকিউটার জেনারেল জানিয়েছেন, মিথেন বিস্ফোরণ থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত। এতে অন্ততপক্ষে ৪৯ জন আহত হয়েছেন।

সরকারিভাবে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ সাইবেরিয়ার এই খনি থেকে ২৩৯জন শ্রমিককে উপরে নিয়ে আসা সম্ভব হয়। সংবাদসংস্থা ইন্টারফ্যাক্স জানিয়েছে, ক্রেমলিনের মুখপাত্র বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুটিন শোকপ্রকাশ করেছেন। তার আশা, যারা এখনো নিখোঁজ, তাদের দ্রুত খুঁজে পাওয়া সম্ভব হবে।

বৃহস্পতিবার খনিতে নেমে উদ্ধারকাজ চালাবার সময় অক্সিজেনের অভাবে ছয়জন উদ্ধারকারীর মৃত্যু হয়েছে। পরে উদ্ধারকারীদের খনির ভিতর থেকে উপরে নিয়ে আসা হয়। কারণ, কর্তৃপক্ষের আশঙ্কা খনিতে আরো বিস্ফোরণ হতে পারে। একটি উদ্ধারকারী দল আর উপরে উঠে আসতে পারেনি। ইন্টারফ্যাক্সকে সূত্র জানিয়েছে, পরে তাদের মৃতদেহ উপরে আনা হয়। তখন দেখা যায়, তাদের অক্সিজেন সিলিন্ডার পুরো খালি ছিল।

খনিতে আরো মিথেন গ্যাস জমা হচ্ছে। তাই শুক্রবার পর্যন্ত উদ্ধারকাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে খনির ডিরেক্টর, তার ডেপুটি এবং সাইট ম্যানেজারকে আটক করা হয়েছে। একটি ফৌজদারি মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

রাশিয়ায় প্রায়ই খনিতে দুর্ঘটনা হয়। কারণ, খনিগুলিতে সুরক্ষা ব্যবস্থা ভালো নয়। ২০১০ সালে সাইবেরিয়াতেই একটি কয়লাখনিতে দুর্ঘটনায় মারা গেছিলেন ৯১ জন। আহত হন একশর বেশি মানুষ। সেটাই রাশিয়ার সব চেয়ে বড় খনি দুর্ঘটনা।

ভয়েস টিভি/এসএফ

Categories
বিশ্ব

বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৬ হাজার, শনাক্ত ৫ লাখ ৬০ হাজার

করোনায় সারাবিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ হাজার ৫৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৫ লাখ ৬০ হাজার ৭৩০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৯০ হাজার ৯৬৭ জন।

শুক্রবার ২৬ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬৮ জনে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন ২৬ কোটি ২ লাখ ৭৭ হাজার ৩৫২ জন। সুস্থ হয়েছেন ২৩ কোটি ৫২ লাখ ৪৩ হাজার ২৭২ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও সংক্রমিত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে মোট সংক্রমিত হয়েছেন ৪ কোটি ৮৯ লাখ ৯৯ হাজার ৭৩২ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৭ লাখ ৯৮ হাজার ৫৫১ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ কোটি ৮৭ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৬ জন। আর গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩০৬ জন।

ভারতে এ পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৪৫ লাখ ৪৬ হাজার ৯২৬ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৬৬ হাজার ৯৮০ জনের। করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৩ কোটি ৩৯ লাখ ৬৭ হাজার ৯৬২ জন।

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটিতে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ১৩ হাজার ৬৯৭ জনের। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ কোটি ২০ লাখ ৫৫ হাজার ৬০৮ জন। দেশটিতে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ১২ লাখ ৭৫ হাজার ২০৯ জন।

তালিকায় এরপরের স্থানগুলোতে রয়েছে যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, জার্মানি, আর্জেন্টিনা, স্পেন, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৩১ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৭৫ হাজার ১৮৫ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৭ হাজার ৯৭০ জন। দেশে এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সেরে উঠেছেন ১৫ লাখ ৩৯ হাজার ৫৫৩ জন।

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
বিশ্ব ভিডিও সংবাদ

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও রহস্যময় মরুভূমি নামিব

পৃথিবীর বৃহত্তম মরুভূমির মধ্যে একটি হলো নামিব। এটি সবচেয়ে সুপ্রাচীন, শুষ্ক ও নির্জন মরুভূমি। যার বয়স ৮০ মিলিয়ন বছর অতিক্রম করেছে এবং প্রাচীনকালে এখানে ডাইনোসর বাস করত।

নামিব নামটি নামা গোত্রের আদিবাসীদের কাছ থেকে এসেছে যারা এলাকাটি অধ্যয়ন করে এবং যেখানে কোন কিছুই নেই সেখানে একটি অঞ্চল হিসাবে অনুবাদ করা হয়। নামাব মরুভূমি কালাহারি অঞ্চলে এবং সমগ্র নামিবিয়া রাজ্যের সীমানার উপর অবস্থিত, এছাড়া এর অংশটি অ্যাঙ্গোলা এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় অবস্থিত। এটি শর্তাধীনভাবে ৩ ভৌগোলিক অংশে বিভক্ত।

বিস্তৃত ট্রানজিশনাল এলাকায় তাদের সবাইকে নিজেদের মধ্যে বিভক্ত করা হয়। নামিব মরুভূমি গঠনের প্রধান কারণ Benguela বর্তমান, শক্তিশালী এবং ঠান্ডা এর আটলান্টিক মহাসাগরের উপস্থিতি। এটি বালি শস্য আন্দোলনে অবদান রাখে, এবং উপকূল থেকে বায়ু বারকান তৈরি করে। ধ্রুব তাপ লবন গাছপালা গঠনের অনুমতি দেয়নি। মৃত্তিকা এখানে লবণাক্ত এবং চুনযুক্ত সিমেন্টযুক্ত, তাই পৃষ্ঠের উপর আপনি একটি কঠিন ছাঁটা দেখতে পারেন।

মরুভূমির প্রতিটি অংশ নিজস্ব অনন্য আবহাওয়া আছে। নামিব মরুভূমিতে কেন বৃষ্টিপাত হয় না জানতে চাইলে বিজ্ঞানীরা জানান তারা ঘটতে পারে কিন্তু তাদের গড় বার্ষিক সংখ্যা মাত্র ১০-১৫ এমএম। মাঝে মাঝে এখানে স্বল্পমেয়াদী, কিন্তু শক্তিশালী স্টকপোর্স আছে। উপকূলীয় অঞ্চলে বৃষ্টিপাত উচ্চ আর্দ্রতা দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়।

আরও পড়ুন : প্রথমবারের মতো দিনাজপুরে চাষ হচ্ছে ত্বীন ফল

মহাসাগর বর্তমান বায়ু শীতল ফলে শিশির এবং কুয়াশা গঠন যা বায়ু মহাদেশের মধ্যে গভীর বহন করে। একটি তাপমাত্রা বিপরীত এখানে তৈরি করা হয়। যেমন আবহাওয়া মহাসাগর এর তীরে নেভিগেশনের কঠিন করে তোলে এবং নিয়মিত জাহাজ ভাঙ্গার জন্য অবদান রাখে। মরুভূমিতে নামিব এমনকি স্কেল্টন কোস্ট নামিবিয়ার জাতীয় উদ্যানের একটি, যেখানে আপনি জাহাজের অবশেষ দেখতে পারেন।
.
দিনান্তে বাতাসের তাপমাত্রা খুব কমই + ৪০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড নিচে পড়ে এবং রাতে পারদ কলাম ০ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড অতিক্রম করে না। মরুভূমিতে বসন্ত এবং শরত্কালে বায়ু প্রবাহিত হয়। তিনি ধুলোর মেঘ নিয়ে এসেছেন যা বাইরের স্থান থেকেও দেখা যায়।

সাইটের অঞ্চলটি ৬ প্রাকৃতিক অঞ্চলগুলিতে বিভক্ত, যার প্রতিটিতে নিজস্ব গাছপালা রয়েছে। মরুভূমির উদ্ভিদ succulents, shrubs এবং acacias দ্বারা প্রকাশ করা হয়। শুধুমাত্র তারা একটি দীর্ঘ খরা সহ্য করতে পারেন। বৃষ্টির পরে একটি ঘন ঘন আচ্ছাদিত ঘনক্ষেত্র প্রদর্শিত হয়।

নামিব মরুভূমিতে আপনি প্রাণীদের সাথে মূল ছবিগুলি তৈরি করতে পারেন, কারণ শূকর, জাবার, স্প্রিংবোক, জেমসবক এবং রডেন্টস আছে। উত্তরের অংশে এবং নদী উপত্যকায় গণ্ডার, শিয়াল, হীনা এবং হাতি রয়েছে। টিনের মধ্যে মাকড়সা, মশা এবং বিভিন্ন beetles, পাশাপাশি সাপ এবং গেকো লাইভ, যা + ৭৫ ° সি গরম বালি বাস হিসাবে অভিযোজিত হয়েছে।

নামিব দর্শনীয় সঙ্গে পর্যটকদেরও আকর্ষণ রয়েছে। উপকূলীয় অঞ্চলটি সীলের রাউকিয়ার জন্য অনন্য বিভিন্ন মাছ এবং সিরামন্টেন্টস, পেঙ্গুইন, ও পেলিক্স পাখি’তো রয়েছেই। নামিব-নওক্লুফ্ট জাতীয় উদ্যান অধিকাংশ মরুভূমি দখল করে আছে। সোয়াপমন্ড শহরটি বালি দ্বারা বেষ্টিত কলমস্কপের একটি রহস্যময় নিষ্পত্তি, হীরার আমানত সমৃদ্ধ, ডেড ভ্যালি, যেখানে আপনি জীবাশ্ম গাছ দেখতে পারেন।

ভয়েস টিভি/ডি

Categories
বিশ্ব

ডিজে গানের বিকট শব্দে মারা গেলো ৬৩টি মুরগী

খামারির অভিযোগ, ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে ‘কান ছিঁড়ে যাওয়ার মতো’ শব্দে বাদ্যযন্ত্র বাজানো হচ্ছিল। ওই শব্দের কারণেই মুরগিগুলো মারা যায়

প্রথাগত বিয়ের অনুষ্ঠান মানেই হৈ-হল্লা, উচ্চ শব্দে গান-বাজনা, নাচ এবং ঝলমলে পোশাকের ব্যান্ড পার্টি। এমনই এক বিয়ের অনুষ্ঠানে ডিজে গানের বিকট শব্দে খামারের ৬৩টি মুরগি মারা গেছে বলে অভিযোগ করেছেন এক খামারি।

ভারতের ওড়িশায় রবিবার (২১ নভেম্বর) স্থানীয় সময় মাঝরাতে এ ঘটনা ঘটে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

খামারটির মালিক রণজিৎ কুমার পারিদার অভিযোগ, “ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে ‘কান ছিঁড়ে যাওয়ার মতো’ শব্দে বাদ্যযন্ত্র বাজানো হচ্ছিল। ওই শব্দের কারণেই মুরগিগুলো মারা যায়।”

পারিদা সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেন, “উচ্চমাত্রার শব্দে মুরগিগুলো ভয় পাচ্ছিল দেখে আমি সেখানকার লোকজনকে বলেছিলাম ভলিউম কমাতে। কিন্তু তারা শোনেনি উল্টে বরের বন্ধুরা আমার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছে।”

একজন ভেটেরিনারি চিকিৎসকের বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, মুরগিগুলো হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছে। ঘটনার পর বিয়েবাড়ির লোকজনের কাছে ক্ষতিপূরণ চাইলে তারা তা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। এরপর তিনি বিষয়টি নিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন।

আরও পড়ুন : বিশ্ব ধনী বিল গেটসও ফার্মের মুরগী খায় : কৃষিমন্ত্রী

প্রাণীদের আচরণ নিয়ে বই লিখেছেন প্রাণীবিদ্যার অধ্যাপক সূর্যকান্ত মিশ্রা। হিন্দুস্তান টাইমসকে তিনি বলেন, উচ্চমাত্রার শব্দে পাখিদের মধ্যে হৃদরোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

প্রফেসর মিশ্রা বলেন, “মুরগির একটি শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া দিন-রাতের আলো বা আঁধারের মাধ্যমে প্রাকৃতিকভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়।”

তিনি আরও বলেন, “উচ্চমাত্রার শব্দের মাধ্যমে সৃষ্ট হঠাৎ উত্তেজনা অথবা মানসিক অবস্থায় তাদের শরীরের স্বাভাবিক প্রক্রিয়াকে ব্যাহত করে।”

তবে ওড়িশার ঘটনাটি “পারস্পারিক সমঝোতার” মাধ্যমে মিটিয়ে ফেলার জন্য বলেছে পুলিশ। উভয়পক্ষই পুলিশের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছে।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা দ্রৌপদী দাস বলেন, “পোল্ট্রি খামারের মালিক অভিযোগ তুলে নেওয়ায় আমরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেইনি।”

আরও পড়ুন : থার্টি ফার্স্টে ডিজে পার্টিতে পুলিশের ‘না’

Categories
বিশ্ব

প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পরই পদত্যাগ

প্রথম নারী সরকারপ্রধান পেয়েছিল সুইডেন। কিন্তু একদিনও থাকলেন না তিনি। নির্বাচিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মতবিরোধের জেরে পদত্যাগ করলেন সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী ম্যাগডালেনা অ্যান্ডারসন।

গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর একটি বাজেট প্রস্তাবনা উত্থাপন করেছিলেন এ সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট নেতা। কিন্তু তাতে সমর্থন দেয়নি জোটসঙ্গী গ্রিন পার্টি। বরং বিরোধী জোটের তোলা প্রস্তাবে সায় দিয়েছে তারা।

এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে দায়িত্ব পাওয়ার ১২ ঘণ্টা যেতে না যেতেই প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেন অ্যান্ডারসন। তবে ৫৪ বছর বয়সী এ নেতা স্পিকারকে জানিয়েছেন, তিনি একক দলীয় সরকার, অর্থাৎ তার সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সরকারে নেতৃত্ব দিতে আগ্রহী।

নতুন প্রধানমন্ত্রীর বাজেট প্রস্তাবে বিরোধিতা করা প্রসঙ্গে গ্রিন পার্টি বলেছে, তারা অতি-ডানদের সঙ্গে প্রথমবারের মতো খসড়া বাজেট মেনে নিতে পারেনি। পার্লামেন্টের স্পিকার জানিয়েছেন, পরবর্তী করণীয় নির্ধারণে তিনি দলীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন।

এর আগে, বুধবার দিনের প্রথমভাগে সুইডিশ আইনের জটিল মারপ্যাঁচে মাত্র এক ভোটের ব্যবধানে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন ম্যাগডালেনা অ্যান্ডারসন। সুইডিশ পার্লামেন্ট বা রিক্সড্যাগের ৩৪৯ সদস্যের মধ্যে অ্যান্ডারসনের পক্ষে ভোট দেন ১১৭ জন, বিপক্ষে ভোট পড়ে ১৭৪টি। আর ভোটদান থেকে বিরত থাকেন ৫৭ সদস্য।

সুইডেনের নিয়ম অনুসারে, প্রধানমন্ত্রী হতে কারও তার পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট পড়ার দরকার নেই, শুধু সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য তার বিরোধিতা না করলেই হলো।

সেই মতে অ্যান্ডারসনের পক্ষে ভোটের সঙ্গে বিরত থাকা সদস্যদের সংখ্যা যোগ হয়ে বিপক্ষ ভোটের সমান হয়ে যায়। আর তাতেই প্রথমবারের মতো কোনো নারীকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে পায় সুইডেন।

আরও পড়ুন :  মহানবীর ব্যঙ্গচিত্র আঁকা সুইডিশ কার্টুনিস্ট সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত

সূত্র: রয়টার্স, বিবিসি

Categories
পশ্চিমবঙ্গ বিশ্ব

প্রকৌশলীর বাসার পাইপ লাইনে পাওয়া গেল লাখ লাখ টাকা

ভারতের এক প্রকৌশলীর বাসায় পানি নিস্কাশনের জন্য নয়, বরং টাকার পাইপলাইনের সন্ধান মিলেছে। যা খোলা মাত্রই স্রোতের মতো বেরিয়ে আসতে থাকে রুপির পর রুপি। যার পরিমাণ প্রায় ২৫ লাখ রুপি। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ ২৮ লাখ ৮১ হাজার ৪২১।

দ্য হিন্দু, ইন্ডিয়া টিভি নিউজসহ ভারতের একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, ব্যাঙ্গালুরুতে গণপূর্ত দপ্তরের এক প্রকৌশলীর বাসায় হানা দিয়ে এমনই টাকার পাইপলাইন খুঁজে পেয়েছেন কর্ণাটকের দুর্নীতি দমন ব্যুরোর কর্মকর্তারা। তারা জানান, রাজ্যে দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে সন্দেহভাজন দুর্নীতিবাজ সরকারি কর্মকর্তাদের বাড়িতে অভিযানের অংশ হিসেবে এ অভিযান চালানো হয়েছে।

দুর্নীতি দমন ব্যুরোর কর্মকর্তারা বলেন, কালবুর্গি জেলায় গণপূর্ত বিভাগের যুগ্ম প্রধান প্রকৌশলী সানথা গাউদা বিরাদারের বাসায় তারা টাকা পাইপলাইনটির খোঁজ পান। পাইপলাইন খোলা মাত্র বেরিয়ে আসতে থাকে কাড়ি কাড়ি রুপি। যার পরিমাণ প্রায় ২৫ লাখ রুপি। এ ছাড়াও উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল স্বর্ণালংকার।

গোপন সূত্রে টাকার পাইপলাইনের খবর আগেই পেয়েছিলেন দুর্নীতি দমন ব্যুরোর কর্মকর্তারা। তাই অভিযানের সময় তারা একজন মিস্ত্রিকে সঙ্গে করে নিয়ে যান। তাকে দিয়ে পাইপ খোলার পর টাকা বেরিয়ে আসতে থাকে।

কর্মকর্তারা জানান, মূলত বাসার মধ্যে এ ধরনের পাইপলাইন বসানোই হয়েছিল টাকা লুকিয়ে রাখার জন্য। কারণ পাইপলাইনের সঙ্গে অন্য কোনো ধরনের সংযোগ ছিল না।

পরে এমন আরও পাইপলাইনের খোঁজ পাওয়া যায়। এটি ছাড়াও রাজ্যের ৬০টি ঠিকানায় ১৫ জন সন্দেহভাজন দুর্নীতিবাজ ও অবৈধ সম্পদের মালিক সরকারি কর্মকর্তাদের বাসায় অভিযান চালিয়েছেন বলেও জানান দুর্নীতি দমন ব্যুরোর কর্মকর্তারা।

আরও পড়ুন : দেশজুড়ে তিতাসের ১৩ হাজার কিমি মেয়াদোত্তীর্ণ পাইপ লাইন

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
পশ্চিমবঙ্গ বিশ্ব

বধূ সাজে পরীক্ষা দিলেন তরুণী

বধূ সাজে আর দশজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে পরীক্ষা দিতে এসেছেন এক তরুণী। দুই হাতে সোনার চুড়ি-গহনা, নাকে নথ, গায়ে জড়ানো লাল বেনারসি, আর সেই মুহূর্তের কয়েকটি ছবি বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। বিয়ের সাজে আসা ওই তরুণীর নাম শিবাঙ্গী, আর ঘটনাটি পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের।

পরীক্ষার হলে কনের সাজে শিবাঙ্গীর যে ছবিগুলো ছড়িয়ে পড়েছে, সেখানে নানা মানুষ নানা মন্তব্য করেছেন। কেউ কেউ শিবাঙ্গীর এই ইচ্ছেকে বলেছেন অতিরঞ্জিত। তবে তাদের পাল্টা উত্তর দিয়ে অন্য একটি অংশ বলছে, নিন্দুকদের কথায় কান না দিতে। বিয়ের চেয়ে শিক্ষাকে বড় করে দেখানোর শিবাঙ্গীর যে প্রয়াস, তাকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন অনেকেই।

জানা যায়, বিয়ের দিন ঠিক হয়ে যাওয়ার পরই শিবাঙ্গীর পরীক্ষার তারিখ দেয়। দিনটি বাতিল করা তাদের পরিবারের পক্ষে সম্ভব ছিল না। আর বিয়ের দিন সকাল থেকেই প্রথা মেনে পাত্র-পাত্রীর বাড়িতে নানা অনুষ্ঠান লেগেই থাকে। তাতে কনেকে অংশ নিতে হয়। শিবাঙ্গীও তার ব্যতিক্রম নন। তাই বিয়ের পোশাক পরেই পরীক্ষার কেন্দ্রে উপস্থিত হন তিনি।

হবু স্বামী ও শিবাঙ্গী একই বিষয়ের শিক্ষার্থী। দুইজনই তারা শান্তিনিকেতন কলেজের শিক্ষার্থী। এদিন তাদের পঞ্চম সেমিস্টারের পরীক্ষা ছিল। শিবাঙ্গী কনের সাজে সেই পরীক্ষা দেওয়ার পরই বিয়ের পিঁড়িতে বসেন।

এ প্রসঙ্গে কনে শিবাঙ্গী বলেন, ‘এছাড়া আমার কাছে আর কোনো উপায় ছিল না। হবু স্বামীর পরিবার থেকেও কোনো আপত্তি ওঠেনি। বরং তারা আমাকে উৎসাহ যুগিয়েছেন।’

ভয়েসটিভি/এমএম

Categories
বিশ্ব

বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৭ হাজার, শনাক্ত ৬ লাখ ২৫ হাজার

করোনায় বিশ্বেজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭ হাজার ৭৬৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬ লাখ ২৫ হাজার ৭৮৯ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৭০ হাজার ৬৬১ জন।

বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১ লাখ ৯১ হাজার ৭৬২ জনে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন ২৫ কোটি ৯৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪৯৭ জন। সুস্থ হয়েছেন ২৩ কোটি ৪৮ লাখ ৩১ হাজার ২৩৯ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও সংক্রমিত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে মোট সংক্রমিত হয়েছেন ৪ কোটি ৯৬ লাখ ৬৯ হাজার ৭৯২ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৭ লাখ ৯৮ হাজার ২৪২ জন।

ভারতে এ পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৪৫ লাখ ৪১ হাজার ৩৪৯ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৬৬ হাজার ৫৮৪ জনের। আর করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৩ কোটি ৩৯ লাখ ৫৭ হাজার ৬৯৮ জন।

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটিতে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ১৩ হাজার ৪১৬ জনের। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ কোটি ২০ লাখ ৪৩ হাজার ৪১৭ জন। দেশটিতে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ১২ লাখ ৬৪ হাজার ৭১৩ জন।

তালিকায় এরপরের স্থানগুলোতে রয়েছে যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, জার্মানি, আর্জেন্টিনা, স্পেন, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৩১ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৭৪ হাজার ৯৪৮ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৭ হাজার ৯৬১ জন। দেশে এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সেরে উঠেছেন ১৫ লাখ ৩৯ হাজার ১৯৩ জন।

ভয়েসটিভি/এমএম